kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ভেজাল মদ পান

ভারতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১০৫

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভারতের উত্তরাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোতে বিষাক্ত মদ পান করার ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়ে ১০৫ জনে দাঁড়িয়েছে। এ ছাড়া গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে অসংখ্য মানুষ। এদিকে ভেজাল মদ বিক্রির সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের ধরতে অভিযান শুরু করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার দেশটির সরকারি কর্মকর্তারা এ কথা জানান।

পুলিশ মনে করে, মদের মধ্যে মুনসাইন নামক একটি পদার্থের সঙ্গে মিথানল মেশানোর কারণে সৃষ্ট বিষক্রিয়ায় এত লোকের মৃত্যু হয়েছে। মিথানল এক ধরনের রাসায়নিক পদার্থ। এটি অতিমাত্রায় গ্রহণ করলে অন্ধত্ব, যকৃতের ক্ষতি হওয়ার পাশাপাশি মৃত্যুও হতে পারে।

পুলিশের মুখপাত্র শৈলেন্দ্র কুমার শার্মা বলেন, শুধু উত্তর প্রদেশের একটি জেলায় বিষাক্ত মদ পান করে ৬৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। পুলিশের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা সংবাদমাধ্যমকে জানান, বিষাক্ত মদ বোতলে করে বিক্রির অভিযোগে এখন পর্যন্ত ৬৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে পাওয়া মদের নমুনা পরীক্ষার জন্য গবেষণাগারে পাঠানো হয়েছে।

সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে জানানো হয়, শুধু অবৈধভাবে মদ বেচাকেনার অভিযোগে রাজ্যটির বিভিন্ন এলাকা থেকে তিন হাজারের বেশি মানুষকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শুধু উত্তর প্রদেশেই নয়, উত্তরাখণ্ডেও বিষাক্ত মদ পানে মারা গেছে ৩৬ জন। ভেজাল মদ বিক্রির সন্দেহে সেখানে আটক করা হয়েছে দুজনকে।

কম দামি মদ পানে ভারতে প্রতিবছর অসংখ্য মানুষের মৃত্যু হয়। ২০১৫ সালে মুম্বাই শহরের একটি বস্তিতে মুনসাইন পানে মারা যায় ১০০ জন। ইন্টারন্যাশনাল স্পিরিট অ্যান্ড ওয়াইন অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্ডিয়ার মতে, ভারতের নাগরিকরা প্রতিবছর ৫০০ কোটি লিটার মদ পান করে, যার ৪০ শতাংশই অবৈধভাবে তৈরি করা হয়। সূত্র : এএফপি, রয়টার্স।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা