kalerkantho

মঙ্গলবার । ২২ অক্টোবর ২০১৯। ৬ কাতির্ক ১৪২৬। ২২ সফর ১৪৪১              

কুলসুম নওয়াজের দাফন লাহোরে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের স্ত্রী কুলসুম নওয়াজের দাফন গতকাল শুক্রবার লাহোরে পারিবারিক কবরস্থান জাতি উমরায় সম্পন্ন হয়েছে। এক বছরেরও বেশি সময় ধরে গলার ক্যান্সারে আক্রান্ত কুলসুম গত ১১ সেপ্টেম্বর লন্ডনে চিকিৎসাধীন মারা যান।

কুলসুমের জানাজায় নওয়াজ শরিফের দল পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজের (পিএমএল-এন) হাজার হাজার সমর্থক, শুভাকাঙ্ক্ষী এবং দেশটির রাজনীতিবিদরা উপস্থিত ছিল। পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের পাশাপাশি পাঞ্জাবের গভর্নর চৌধুরী সারওয়ারও জানাজায় অংশ নেন। শীর্ষস্থানীয় নেতাদের নিরাপত্তায় জানাজায় ব্যাপক নিরাপত্তাব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিল। সাধারণ জনগণ থেকে নামিদামি ব্যক্তিদের পৃথক রাখতে কাঁটাতার ব্যবহার করা হয়েছিল। তা সত্ত্বেও টেলিভিশন ফুটেজে রাজনীতিবিদদের সঙ্গে সাধারণ নাগরিকদের ধাক্কাধাক্কি করতে দেখা যায়। এরই মধ্যে নওয়াজ শরিফ, শাহবাজ শরিফ এবং জানাজায় ইমামতি করা মাওলানা তারিক জামিল জানাজা স্থানে পৌঁছালে তাঁদের ঘিরে মানববন্ধন তৈরি করা হয়। দুর্নীতির দায়ে জেলে থাকা নওয়াজ শরিফকে স্ত্রীর মৃত্যুর কারণে পাঁচ দিন প্যারলে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। তবে পাঞ্জাবের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পরবর্তী সময় প্যারলের মেয়াদ ১২ ঘণ্টা বাড়িয়েছে। আগের মেয়াদ অনুসারে নওয়াজের মুক্তির সময় ছিল ১২ সেপ্টেম্বর থেকে বিকেল ৪টা থেকে ১৭ সেপ্টেম্বর বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

নওয়াজ শরিফের পরিবারকে সান্ত্বনা দিতে জাতি উমরায় গিয়েছিলেন সাবেক প্রেসিডেন্ট মামনুন হোসেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী শহিদ খাকান আব্বাসি, আজাদ জম্মু ও কাশ্মীরের প্রধানমন্ত্রী রাজা ফারুক হায়দারসহ দলের শীর্ষস্থানীয় নেতা ও কর্মীরা। গত বুধবার থেকে জাতি উমরায় সমর্থকদের ভিড় লেগেই ছিল। এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে শরীর ভালো না থাকায় নওয়াজ শরিফ বুধবার সমর্থকদের সঙ্গে দেখা সাক্ষাৎ করেননি। তবে নওয়াজ শরিফের এক আত্মীয় জানিয়েছেন, ‘সমর্থকদের সঙ্গে দেখা না করার বিষয়ে যা বলা হয়েছে, তা সঠিক নয়। নওয়াজ শরিফ বিধ্বস্ত এবং পরিশ্রান্ত তবে স্বজনদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। তাঁর মেয়ে মরিয়মও স্বজনদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন।’ সূত্র : ডন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা