kalerkantho

শুক্রবার । ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৫ জুন ২০২০। ১২ শাওয়াল ১৪৪১

নন্দীগ্রামে সাপ্তাহিক হাট ভেঙে দিল প্রশাসন

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি   

১ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বগুড়ার নন্দীগ্রামে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করায় সাপ্তাহিক হাট ভেঙে দিল উপজেলা প্রশাসন। এদিকে আইন অমান্য করে দোকান খোলা রাখায় দুই প্রতিষ্ঠানকে ১১ হাজার ও চায়ের দোকানে আড্ডা দেওয়ায় দুজনকে ৬০০ টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। গতকাল মঙ্গলবার ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. শারমিন আখতার এ আদালত পরিচালনা করেন।

জানা গেছে, করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে উপজেলার ২৩টি ও পৌরসভার তিনটি সাপ্তাহিক হাট গণবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বন্ধ ঘোষণা করে প্রশাসন। এদিকে গতকাল সকালে পৌর শহরে সাপ্তাহিক হাট নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বসানো হয়। গাদাগাদি করে কাঁচাবাজারসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রী কিনতে শত শত মানুষ হুমড়ি খেয়ে পড়ে। বেড়ে যায় জনসমাগম। পরে সকাল ৯টার দিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোছা. শারমিন আখতার একদল পুলিশ নিয়ে এ হাট ভেঙে দেন। এ সময় পৌরসভার মেয়র কামরুল হাসান সিদ্দিকী জুয়েল উপস্থিত ছিলেন।

এ ছাড়া করোনাভাইরাস প্রতিরোধে জনসমাবেশ ঠেকাতে প্রশাসনের ঘোষিত আইন অমান্য করে পৌর শহরের বাসস্ট্যান্ড এলাকায় দোকান খোলা রাখায় দুই ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে ১১ হাজার টাকা ও কুন্দারহাটে চায়ের দোকানে আড্ডা দেওয়ায় দুজনকে ৬০০ টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এ বিষয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. শারমিন আখতার বলেন, ‘নিষেধাজ্ঞার পরও সাপ্তাহিক হাট বসার কারণে হাটটি ভেঙে দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া আইন অমান্য করে দোকান খোলা রাখায় ও চায়ের দোকানে আড্ডা দেওয়ায় জরিমানা করা হয়েছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা