kalerkantho

রবিবার । ১৭ শ্রাবণ ১৪২৮। ১ আগস্ট ২০২১। ২১ জিলহজ ১৪৪২

বইয়ের বাইরে চাকরির প্রস্তুতি

চাকরির নিয়োগ পরীক্ষাগুলোতে অন্যান্য প্রার্থীর চেয়ে এগিয়ে থাকতে চান? তাহলে সাধারণ প্রস্তুতির পাশাপাশি বইয়ের বাইরেও প্রস্তুতির অনেক মাধ্যম আছে। বিস্তারিত লিখেছেন ৩৮তম বিসিএস (অডিট অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস) ক্যাডার প্রণয় কুমার পাল

১২ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৭ মিনিটে



বইয়ের বাইরে চাকরির প্রস্তুতি

মডেল : নিলয় ছবি : মোহাম্মদ আসাদ

চাকরির পরীক্ষার কেন্দ্রগুলোতে পরীক্ষা দিতে গিয়ে যখন লাখো প্রার্থীর ভিড় দেখা যায়, তখন তুমুল প্রতিযোগিতায় নিজের অবস্থান নিয়ে অনেকেই শঙ্কায় পড়েন। এটা অস্বাভাবিক নয়; কারণ নির্দিষ্ট পদের তুলনায় আবেদনকারী প্রার্থীর সংখ্যাটা অনেক বেশি থাকে। তাই বোঝাই যাচ্ছে প্রতিযোগিতায় নিজেকে অন্যদের চেয়ে আলাদা করে প্রস্তুত করতে হবে। সবাই তো একই বই পড়ছে, তবে কিভাবে নিজেকে আলাদা করবেন? আবার অনেকের ক্ষেত্রে দেখা যায় একই বই পড়তে পড়তে বিরক্ত হয়ে যান, আর পড়তে ভালো লাগে না; সে ক্ষেত্রে কী করা যায়?

নিয়মিত বই পড়ার বাইরেও প্রস্তুতিকে শাণিত করার অনেক উপায় আছে।

 

প্রথমেই বাছাই করা দরকার, আপনি কোন বিষয়গুলোর ওপর বাড়তি জোর দেবেন। এটা নির্ভর করছে প্রার্থীর বিষয়ভিত্তিক দুর্বলতা, গুরুত্ব ও সিলেবাসের ওপর। তবে সাধারণভাবে দেখা যায়, গণিত ও ইংরেজিতেই বেশির ভাগ প্রার্থী দুর্বল থাকেন। ব্যাংক হোক কিংবা বিসিএস, গণিত ও ইংরেজিতে বেসিক ভালো থাকলে আপনি এখানে অনেকটাই এগিয়ে থাকবেন। তাই শুরুতেই গণিত ও ইংরেজি নিয়ে আলোচনা করা যাক।

 

গণিত

প্রথমেই বলেছি, আমরা আজ বইয়ের বাইরে পড়া নিয়ে আলোচনা করব। গণিত বিষয়টা বোঝার বা সমাধানের জন্য অন্য কারো সহায়তার দরকার হতে পারে। বোঝার ক্ষেত্রে বর্তমান সময়ে সবচেয়ে কার্যকর লার্নিং টুল মনে হয়েছে ইউটিউবকে। চাকরির প্রস্তুতিতে ইউটিউব কতটা কাজে আসতে পারে, তা অনেকেরই ধারণার বাইরে।

 

♦ ব্যাংক নিয়োগ পরীক্ষায় গণিতে যেসব প্রশ্ন আসে, এর বেশির ভাগই বিভিন্ন ওয়েবসাইট ও বিদেশি বইয়ের আদলে তৈরি। আমাদের দেশের তুলনায় বিদেশি সাইটগুলোতে স্টাডি ম্যাটেরিয়াল প্রচুর। আপনি যদি ইংরেজি বা হিন্দি জানেন, তাহলে আপনার জন্য সহায়ক হবে এমন অসংখ্য ভিডিও পাবেন। দেশের ব্যাংকগুলোর নিয়োগ পরীক্ষায় যে ধরনের টপিক থেকে প্রশ্ন করা হয়, সেসব টপিকের ওপর করা ভিডিও বা লেকচার ওয়েবসাইট থেকে খুঁজে শুনুন।

যেমন—গণিতে গুরুত্বপূর্ণ টপিকের মধ্যে আছে Work, Time & Speed, Interest, Profit & Loss, Permutation, Combination ইত্যাদি। এসবের ওপর মানসম্পন্ন ভিডিও পাওয়া যায়। এগুলো দেখে পরবর্তীকালে নিজে নিজে অনুশীলন করুন। নিঃসন্দেহে এই লেকচারগুলো শুনলে আপনার বেসিক ভালো হবে এবং দ্রুততম সময়ে সমাধানের কৌশল রপ্ত করতে পারবেন। ব্যাংক ম্যাথের জন্য কিছু চ্যানেল আমার ভালো লেগেছে। যেমন : Exam Centric By Exam By Sumit Sir, Adda247 ইত্যাদি।

 

♦ বিসিএসের প্রশ্নের ধরন ব্যাংকের চেয়ে আলাদা। এ ক্ষেত্রে আমাদের বোর্ড বইগুলো, বিশেষ করে অষ্টম, নবম ও দশম শ্রেণির সাধারণ গণিত, উচ্চতর গণিত এবং উচ্চ মাধ্যমিকের কিছু নির্বাচিত অধ্যায় আয়ত্ত করতে পারলে প্রায় শতভাগ কমন পাওয়া যায়। যাঁরা নিজেদের গণিতে দুর্বল মনে করেন, তাঁরা বইয়ের যে অধ্যায়গুলো বুঝতে অসুবিধা হয়, সেগুলোর ইউটিউব ভিডিও দেখতে পারেন। যেমন ধরুন—বিন্যাস, সমাবেশ, সম্ভাব্যতার মতো জটিল বিষয়গুলো আপনি Onnorokom Pathsala চ্যানেলে পেয়ে যাবেন। এ ছাড়া Amader School, 10 Minutes School-সহ বিভিন্ন চ্যানেল আছে। আপনি পছন্দমতো ভিডিওগুলো খুঁজে নিতে পারেন। ধারণা স্পষ্ট হলে বই থেকে অনুশীলন করুন।

 

♦ গণিত প্রস্তুতি যাচাইয়ের জন্য পরীক্ষার বিকল্প নেই। শুধু সমাধান করতে পারাটা যথেষ্ট নয়, বরং দ্রুততম সময়ে সমাধান করতে পারাটাই গুরুত্বপূর্ণ। সে জন্য আপনাকে পরীক্ষা দিতে হবে। অনলাইনে এমন অনেক প্ল্যাটফর্ম আছে, যেখানে আপনি পরীক্ষা দিয়ে নিজেকে যাচাই করতে পারবেন। এর মধ্যে www.prep.youth4work.com, www.pareeksha.net, www.indiabix.com/online-test ইত্যাদি ফ্রি পরীক্ষার ওয়েবসাইট রয়েছে। আপনারা খুঁজলে আরো পাবেন। বাংলাদেশেও কিছু কিছু প্ল্যাটফর্ম তৈরি হচ্ছে, তার মধ্যে LIVE MCQ APP আমার কাছে ভালোই লেগেছে।

 

ইংরেজি

ইংরেজি প্রস্তুতিকে মোটামুটি কয়েকটি ভাগে ভাগ করা যায়—গ্রামার, ভোকাবুলারি, লিটারেচার, ট্রান্সলেশন ও ফ্রি হ্যান্ড রাইটিং। চলুন জেনে নিই—আমরা কী কী টুল ব্যবহার করতে পারি।

♦ গ্রামার একটু বুঝে বুঝে পড়তে হবে। কয়েকটি ইউটিউব চ্যানেল থেকে আপনি হেল্প নিতে পারেন Gradeup : IBPS, SBI & other Bank Exams Preparation, Electric English, Adda 247 ইত্যাদি।

 

♦ যে টপিকগুলো পড়লেন, সেগুলোর ওপর অথবা র‌্যান্ডমলি পরীক্ষা দিন। www.freeonlinetest.in, www.fresherslive.com এই ধরনের ওয়েবসাইটগুলোতে প্রস্তুতি যাচাই করুন।

 

♦ যাঁরা ফ্রি হ্যান্ড রাইটিংয়ে নিজের ভুল ধরতে পারেন না অথবা যাঁরা অনুবাদ সঠিক হলো কি না বুঝতে পারেন না, তাঁরা Grammarly : Free Online Writing Assistant-এ লিখতে পারেন অথবা অনুবাদ করতে পারেন। এটি ভুল ধরার জন্য অসাধারণ একটি সাইট। আপনার অনেক দুর্বলতা এই সাইট ব্যবহার করে ধরতে পারবেন। কয়েক দিন ব্যবহার করলে নিজেই দুর্বলতা বুঝে যাবেন। অনুবাদ করতে পারলে ফ্রি হ্যান্ড রাইটিংও পারবেন, কারণ আপনার আইডিয়াগুলো আপনি ইংরেজিতে অনুবাদ করলেই তো রাইটআপ হয়ে গেল।

 

♦ ভোকাবুলারিতে দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য GRE Vocabulary Builder - Magoosh GRE আপনার স্মার্টফোনে ইনস্টল করে রাখুন। অবসর সময়ে চর্চা করুন। mnemonicdictionary.com সাইটে ভোকাবুলারি মনে রাখার সুন্দর সুন্দর কৌশল দেওয়া আছে, সেগুলো রপ্ত করতে পারেন।

 

♦ প্রতিদিন ইংরেজি দৈনিক পড়ুন, অজানা শব্দগুলো E2B Dictionary-তে ফেভারিট হিসেবে সেইভ করে রাখুন। সপ্তাহে বা মাসে পিডিএফ বের করে পড়ে ফেলুন।

 

অন্যান্য বিষয়

♦ বাংলায় যাঁরা সাহিত্য নিয়ে সমস্যায় ভুগছেন, তাঁরা অবসর সময়ে সাহিত্যকেন্দ্রিক যতগুলো মুভি হয়েছে সেগুলো দেখে ফেলুন, বিশেষ করে বিসিএস লিখিত পরীক্ষায় এটা আপনার দারুণ কাজে দেবে। চরিত্রের নামসহ পুরো ঘটনাই মাথায় সেট হয়ে যাবে। যেমন—পথের পাঁচালী, চোখের বালি, পোস্টমাস্টার, পদ্মা নদীর মাঝি ইত্যাদি।

 

♦ বিজ্ঞান বিসিএসের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। নন-সায়েন্স ব্যাকগ্রাউন্ডের প্রার্থীরা অষ্টম, নবম ও দশম শ্রেণির ইউটিউব ভিডিওগুলো টপিক অনুসারে দেখুন। বিজ্ঞান মুখস্থ করার বিষয় নয়। একবার বুঝে গেলে পরে ভুল হওয়ার আশঙ্কা কম।

 

♦ সাধারণ জ্ঞানের প্রস্তুতি মানে সব সময় আপডেটেড থাকা। এই অংশের জন্য আপনি অবসর সময়ে যেকোনো একটি টিভি চ্যানেলের রাতের খবর দেখতে পারেন। অনেক টিভি চ্যানেল আন্তর্জাতিক খবর আলাদাভাবে সম্প্রচার করে; সেগুলো দেখুন। প্রতিদিন ৩০ মিনিট খবর শুনলে বা পত্রিকা পড়তে পারলে এই অংশে আপনার প্রস্তুতি ভালো হবে। আর কিছু ঐতিহাসিক বিষয় আছে, যেগুলো অপরিবর্তনীয়। যেমন—ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ইত্যাদি। এগুলোর ওপর ইউটিউবে যেসব তথ্যসমৃদ্ধ ডকুমেন্টারি আছে, সেগুলো দেখে নিতে পারেন।

 

♦ অনেকেই বিসিএস, ব্যাংক বা অন্য চাকরির পরীক্ষার ভাইভা নিয়ে চিন্তিত; কিভাবে বোর্ডে কথা বলবেন, বডি ল্যাঙ্গুয়েজ কেমন হবে ইত্যাদি বিষয়ে সংশয় আছে। আপনারা ইউটিউবে Drishti IAS চ্যানেলের (ভারতীয়) UPSC Mock Interview-গুলো দেখুন। এই ডেমো ভাইভাগুলো প্রার্থীদের জন্য খুবই কার্যকর। উত্তরগুলো আমাদের পরীক্ষার উপযোগী করে সাজিয়ে অনুশীলন করলে ভাইভায় ভালো করা সহজ হবে।

এককথায়, পড়াশোনাটাকে একটা ভিন্ন মাত্রা দিতে হবে। গবেষণায় দেখা যায়, আমরা পড়ার সময় যদি কয়েকটা ইন্দ্রিয়কে কাজে লাগাতে পারি, তাহলে এটি আমাদের মস্তিষ্কে বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়। আর একই বই বারবার অনেকক্ষণ ধরে পড়তে প্রায়ই বিরক্তি লাগে। তখন যদি আপনি এই কৌশলগুলো ব্যবহার করতে পারেন, তাহলে আপনার অবসর সময় কাজে লাগিয়ে নিজেকে একজন স্মার্ট প্রার্থী হিসেবে গড়ে তুলতে পারবেন। এই কৌশলগুলো অবশ্যই আপনাকে অন্যান্য প্রতিযোগীর চেয়ে এগিয়ে রাখবে।

 

* প্রস্তুতির জন্য যেসব ওয়েবসাইট কিংবা চ্যানেলের কথা এখানে বলা হয়েছে, সেগুলো কেবল ধারণা নেওয়ার জন্য। খোঁজ নিলে এ ধরনের আরো অনেক কনটেন্ট অনলাইনে পেয়ে যাবেন।



সাতদিনের সেরা