kalerkantho

রবিবার। ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭। ৯ আগস্ট ২০২০ । ১৮ জিলহজ ১৪৪১

চাকরি দায়িত্ব ও পদসোপান

রন্টি পোদ্দার, সহকারী প্রকৌশলী (সিভিল), বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ, ঢাকা

৪ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চাকরি দায়িত্ব ও পদসোপান

সড়ক, পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সেতু বিভাগের অধীন সংস্থা ‘বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ’। সরকারের রুলস অব বিজনেস অনুযায়ী ১৫০০ মিটার বা তদূর্ধ্ব সেতু বাস্তবায়ন ও রক্ষণাবেক্ষণ, টোল সড়ক, ফ্লাইওভার, এক্সপ্রেসওয়ে, রিং রোড ইত্যাদির দায়িত্ব সেতু কর্তৃপক্ষের ওপর অর্পণ করা হয়েছে। সেতু কর্তৃপক্ষের একজন কর্মকর্তা হিসেবে আপনার পোস্টিং হবে মূলত প্রধান দপ্তরে (সেতু ভবন, বনানী, ঢাকা)। এর বাইরে বর্তমানে চলমান ‘পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণ প্রকল্প, ঢাকা’ এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে প্রজেক্টে, কর্ণফুলী টানেল প্রজেক্টসহ সেতু কর্তৃপক্ষের যেকোনো প্রজেক্টেই আপনার পদায়ন হতে পারে। প্রজেক্টে পদায়নের ক্ষেত্রে ট্রান্সপোর্ট ও আবাসন সুবিধা পাওয়া যাবে। আর প্রধান দপ্তরে পদায়ন হলেও ট্রান্সপোর্ট সুবিধা পাবেন। দপ্তরে পদায়ন হলে এর চমৎকার কর্মপরিবেশ আপনাকে মোহিত করবে। প্রতিষ্ঠানটির পদসোপান জেনারেল কোরে প্রশাসনিক কর্মকর্তা/উপসহকারী পরিচালক> সহকারী পরিচালক> উপপরিচালক> অতিরিক্ত পরিচালক>পরিচালক এবং ইঞ্জিনিয়ারিং কোরের পদসোপান উপসহকারী প্রকৌশলী>সহকারী প্রকৌশলী>নির্বাহী প্রকৌশলী> তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী>প্রধান প্রকৌশলী। প্রতিষ্ঠানটির সব বিভাগের প্রধান হিসেবে আছেন একজন নির্বাহী পরিচালক। আপনার দক্ষতা ও কর্মতৎপরতা বৃদ্ধির জন্য কর্তৃপক্ষের নিজস্ব ইনহাউস ট্রেনিংয়ের পাশাপাশি দেশের ভেতরে বিভিন্ন সরকারি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে এবং দেশের বাইরে বিভিন্ন দেশে সেমিনার ও প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করতে হতে পারে। এছাড়া সময়মতো প্রমোশনের সুযোগ তো আছেই। জনবল সীমিত হওয়ায় আপনাকে কর্মক্ষেত্রে মোটামুটি সব সময়ই কাজের মধ্যে ব্যস্ত থাকতে হবে। তাই দেশের ট্রান্সপোর্ট সেক্টরের এই গুরুত্বপূর্ণ দপ্তরে রাষ্ট্রীয় সেবায় ভূমিকা রাখতে ও প্রথম শ্রেণির সম্মানজনক পেশা হিসেবে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষে আপনার ক্যারিয়ার গঠন করতে পারেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা