kalerkantho

বুধবার । ২৫ চৈত্র ১৪২৬। ৮ এপ্রিল ২০২০। ১৩ শাবান ১৪৪১

অডিটর পদে নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি

২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অডিটর পদে নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি

অডিটর পদে ৩০৯ জন কর্মী নেবে কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেলের কার্যালয়। স্নাতক পাস হলেই আবেদন করা যাবে। অনলাইনে আবেদনের শেষ সময় ১৯ মার্চ ২০২০ বিকেল ৫টা। সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে বিস্তারিত জানাচ্ছেন ফরহাদ হোসেন

স্নাতক বা সমমানের ডিগ্রি পাস হলেই

অডিটর পদে আবেদন করা যাবে। সাধারণ প্রার্থীদের ক্ষেত্রে ১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে বয়স ১৮ থেকে ৩০ বছর এবং মুক্তিযোদ্ধা/শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের পুত্র-কন্যা এবং শারীরিক প্রতিবন্ধী প্রার্থীদের ক্ষেত্রে ১৮ থেকে ৩২ বছর হতে হবে।

 

পরীক্ষার বিষয়াদি

অডিটর পদের ২০১৮ সালের নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র অনুসারে জানা যায়, এ পদে নিয়োগে মোট ১০০ নম্বরের পরীক্ষা নেওয়া হয়েছিল। এর মধ্যে ৮০ নম্বরের এমসিকিউ পদ্ধতির লিখিত এবং ২০ নম্বরের মৌখিক পরীক্ষার নম্বর ছিল। তবে অডিট বিভাগের নিয়োগ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে জানা যায়, এ বছর প্রার্থী বাছাই ও চূড়ান্ত নিয়োগে প্রথমে প্রিলিমিনারি নেওয়া হতে পারে। উক্ত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে বসতে হবে সংক্ষিপ্ত পদ্ধতির লিখিত পরীক্ষায়। দুই পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের নেওয়া হবে মৌখিক পরীক্ষা। তবে গত বছরের সিজিডিএফের অডিটর নিয়োগ পরীক্ষায় প্রিলিমিনারিতে ১০০ নম্বর, লিখিত পরীক্ষায় ৮০ নম্বর এবং ২০ নম্বরের ভাইভা নেওয়া হয়েছিল। পরীক্ষা নেওয়া হতে পারে আইবিএ-এর মাধ্যমে। জানা যায়, আবেদন জমা নেওয়ার পর নিয়োগ কমিটি কর্তৃক সিদ্ধান্ত অনুসারে এবং জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের নিয়োগবিধি অনুসারে পরীক্ষার যাবতীয় বিষয়াদি নির্ধারণ করা হবে।

 

পরীক্ষার প্রস্তুতি

প্রিলিমিনারি : প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় প্রশ্ন করা হয় মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণির বাংলা, ইংরেজি ও গণিত পাঠ্য বই থেকে এবং সাম্প্রতিক সময়ের গুরুত্বপূর্ণ সাধারণ জ্ঞান বিষয়ে। বিশেষ করে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির পাঠ্য বই থেকেই সবচেয়ে বেশি প্রশ্ন করা হয়। মাধ্যমিক শ্রেণির বাংলার ব্যাকরণ অংশ, সাহিত্য, গদ্য ও পদ্য অংশগুলো ভালো করে পড়তে হবে। ইংরেজি গ্রামারের গুরুত্বপূর্ণ অংশ, লিটারেচার অংশ এবং বীজগণিত ও পাটিগণিত অংশে ভালো দখল রাখতে হবে। সাধারণ জ্ঞান বিষয়ে সমসাময়িক বিষয়, কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স, দৈনন্দিন বিজ্ঞান, বাংলাদেশ প্রসঙ্গ, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিষয়গুলোতে আপডেট থাকতে হবে।

লিখিত পরীক্ষা : আগের লিখিত পরীক্ষার আলোকে একজন অডিটর জানান, বাংলা, ইংরেজি ও গণিত পাঠ্য বই এবং সাম্প্রতিক সময়ের গুরুত্বপূর্ণ সাধারণ জ্ঞান বিষয়ে অন্যান্য সরকারি প্রতিষ্ঠানের তৃতীয় শ্রেণির পদগুলোর মতোই সংক্ষিপ্ত পদ্ধতির লিখিত পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি রাখতে হবে। গত বছরের লিখিত পরীক্ষার প্রশ্নগুলো ঘাঁটতে পারলে ভালো ধারণা পাওয়া যাবে। কর্মরতদের সহায়তা নিয়ে প্রস্তুতি নিলে অনেকের চেয়ে এগিয়ে থাকা যাবে। প্রফেসর জব সলিউশনসহ বাজারে বিভিন্ন প্রকাশনীর অডিটর পদের নিয়োগ পরীক্ষার নিয়োগ বই পাওয়া যায়। এসব বই  প্রস্তুতিতে সহায়ক হতে পারে।

ভাইভা : নিজেকে প্রতিনিয়ত আপডেট রাখতে পারলে ভাইভায় উত্তর দেওয়া খুব সহজ, বললেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন অডিটর। তিনি বলেন, সাধারণ জ্ঞানসহ প্রতিষ্ঠানের বিষয়ে আপডেট থাকতে হবে। সংশ্লিষ্ট পদের বিষয়ে স্বচ্ছ ধারণা রাখতে হবে। ইংরেজি ও ম্যাথ বিষয়ে ভালো করতে পারলে ভাইভা বোর্ডের কঠিন পথটা সহজই মনে হবে।

►  আবেদন প্রক্রিয়া, যোগ্যতা, বেতন, বাছাই প্রক্রিয়াসহ বিস্তারিত জানা যাবে বিজ্ঞপ্তিতে—

ocag.teletalk.com.bd/doc/Auditor.pdf

►  আবেদনের লিংক : http://ocag.teletalk.com.bd

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা