kalerkantho

শনিবার। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ৫ ডিসেম্বর ২০২০। ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২

অদম্য

সাগরের লড়াই

১৬ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাগরের লড়াই

জন্ম থেকেই দুই পা ও বাঁ হাতটি অকেজো সাগর হোসাইনের। কিন্তু এতে দমে যায়নি যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার আকিজ কলেজিয়েট স্কুলের দ্বাদশ শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র সাগর।

হাজিরবাগ ইউনিয়নের দেউলি (দক্ষিণ) গ্রামের বাসিন্দা সাগরের বাবা কাউসার আলী পেশায় একজন কৃষক। মা ফরিদা বেগম গৃহিণী। দুই ভাইয়ের মধ্যে ছোট সে। অভাব ও শারীরিক এই সমস্যার পরও ছোটবেলা থেকেই ভালো রেজাল্ট করে এসেছে সাগর। জুনিয়র ও প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায়ও জিপিএ ৫সহ বৃত্তি লাভ করেছিল। ২০১৭ সালে এসএসসি পরীক্ষায় বিজ্ঞান বিভাগ থেকে জিপিএ ৫ পায়। অসুস্থতার কারণে এ বছর এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেনি। আগামী বছর ভালো রেজাল্ট করার জন্য পড়ালেখা করছে এখন।

চলতি বছরের শিক্ষা সপ্তাহে সাগর উপজেলায় কলেজ পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ শিক্ষার্থী নির্বাচিত হয়েছে। সেরা হয়েছে সংস্কৃতিতেও। নজরুলগীতি, রবীন্দ্রসংগীত ও দেশাত্মবোধক গানেও পৃথকভাবে শ্রেষ্ঠ হয়েছে। সাগর যখন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়ে, তখন ওস্তাদ শাহ আলম লালন তার বড় ভাই ইউসুফ আলীকে সংগীতের তালিম দিতে বাড়িতে আসতেন। একপর্যায়ে সাগরই শিষ্যত্ব গ্রহণ করে ওই ওস্তাদের কাছে সংগীতের তালিম নিতে থাকে। সম্বল ডান হাতটি দিয়ে লেখাপড়াসহ নিজের সব কাজ করে। টেবিলের বই পড়তে টুলের ওপর পা রেখে চেয়ারে বসতে হয়। প্রতিবন্ধীরা বোঝা বা অভিশাপ নয়; বরং আশীর্বাদ হতে পারে—সেটাই দেখাতে চায় সাগর। তার লক্ষ্য প্রকৌশলী হওয়া। সেবা করতে চায় অবহেলিত, দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষের।

            এম আর মাসুদ

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা