kalerkantho

রবিবার । ২০ অক্টোবর ২০১৯। ৪ কাতির্ক ১৪২৬। ২০ সফর ১৪৪১                

অদম্য

লিটনের পথচলা

৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



লিটনের পথচলা

চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার হাজরাহাটি গ্রামের মো. লিটন আলী একটি স্থানীয় পত্রিকায় (দৈনিক মাথাভাঙা) কাজ করে। প্রতিদিন ভোরে ঘুম থেকে উঠে পত্রিকা ছাপা হয় যেখানে, অর্থাৎ সচিমা প্রিন্টার্সে যায়। তারপর প্রেস থেকে পত্রিকার বান্ডিল তুলে দেয় লোকাল বাসে। জাতীয় পত্রিকাগুলো চুয়াডাঙ্গা পৌঁছলে সেগুলো নিয়ে পুরনো বাইসাইকেলটিতে চড়ে শহরের দোকানপাট ও বাড়িতে বাড়িতে বিলি করে। ৯টা থেকে সাড়ে ৯টার মধ্যে তার কাজ শেষ হয়। এরপর আবার তাকে ছুটতে হয় চার কিলোমিটার দূরে, বাড়িতে। দ্রুত প্রস্তুত হয়ে সেই একই সাইকেলে লিটন আলীকে যেতে হয় সাত কিলোমিটার দূরের কলেজে। কলেজ থেকে ফিরে বিকেলে কোচিং সেন্টারে যায় পড়তে। সকালে পত্রিকায় কাজ করে মাসে তার আয় হয় প্রায় তিন হাজার টাকা। সেই টাকায় চলছে লিটনের লেখাপড়া।

বাবা সহিদুল ইসলাম কৃষক। লিটন ২০১৯ সালে এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়। এখন চুয়াডাঙ্গার নিগার সিদ্দিক ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র।

লিটন জানায়, আমরা গরিব। বাইসাইকেলটি অনেক পুরনো। সেটি নিয়েই ভোরে উঠে কাজে যেতে হয়। তারপর কলেজ, কোচিংয়ের পড়া। আমার ইচ্ছা ভবিষ্যতে সাংবাদিকতা বিষয়ে লেখাপড়া করে উচ্চতর ডিগ্রি নেওয়া। 

ছবি ও লেখা. মানিক আকবর

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা