kalerkantho

রবিবার । ২০ অক্টোবর ২০১৯। ৪ কাতির্ক ১৪২৬। ২০ সফর ১৪৪১                

ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি

ভিএলএসআই প্রশিক্ষণ

ক্যাম্পাস ডেস্ক   

৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ভিএলএসআই প্রশিক্ষণ

• চলছে প্রশিক্ষণ

ভেরি লার্জ স্কেল ইন্টেগ্রেশন (ভিএলএসআই)। অসংখ্য ট্রানজিস্ট বর্তনীর সমন্বয়ে ইন্টিগ্রেটেড সার্কিটের চিপ তৈরির প্রক্রিয়া চলছে। ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষার্থীদের মধ্যে যাঁরা অধিক চ্যালেঞ্জিং এবং সৃজনশীল কাজ করতে চান, তাঁদের ভিএলএসআই প্রশিক্ষণ নেওয়ার সুযোগ এনে দিয়েছে ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (ইউআইইউ)। প্রযুক্তির প্রতিনিয়ত পরিবর্তনে চিপ ডিজাইন ভূমিকা রাখে। চিপ ডিজাইনাররা মূলত চিপের গঠন, সার্কিট ডিজাইন, সিমুলেশন চালানো, লেআউট তত্ত্বাবধান করা, চিপ ল্যাবরেটরি থেকে ফেরত আসার পর প্রোটোটাইপ মূল্যায়ন করার কাজ করেন। চিপের গঠন, লজিক ডিজাইন, সার্কিট ডিজাইন এবং ফিজিক্যাল ডিজাইনসহ ফাইনাল ভেরিফিকেশন পর্যন্ত কাজ করেন তাঁরা।

আধুনিক কর্মক্ষেত্রের প্রতিটি সেক্টরেই চিপের চাহিদা রয়েছে, হোক সেটা অটোমোবাইল, ইলেকট্রনিকস কিংবা উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন সার্ভার। এ পেশায় একজন নতুন গ্র্যাজুয়েট কিংবা অভিজ্ঞ পেশাদার—যে কারো কাজ হতে পারে টেকনিক্যাল ইনডিভিজুয়াল কন্ট্রিবিউটর থেকে টেকনিক্যাল লিডার এবং ইঞ্জিনিয়ার ম্যানেজার পর্যন্ত। কেননা চিপ ডিজাইনে ডিজাইন ইঞ্জিনিয়ার, প্রডাক্ট ইঞ্জিনিয়ার, টেস্ট ইঞ্জিনিয়ার, সিস্টেম ইঞ্জিনিয়ার, প্রসেস ইঞ্জিনিয়ার, প্যাকেজিং ইঞ্জিনিয়ার, ক্যাড ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কাজের সুযোগ রয়েছে। এ জন্য ভিএলএসআই শিখে নেওয়া তাঁদের জন্য উপকারী। এটি শিখতে একজন আইসি (ইন্টিগ্রেটেড সার্কিট) ডিজাইনারকে অন্তত স্নাতক ডিগ্রিধারী হতে হয়। এর বাইরে পোস্ট-গ্র্যাজুয়েশন কিংবা শর্ট টার্ম কোর্সও করা যেতে পারে। বর্তমানে চিপ ডিজাইনিং কোর্স ইলেকট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ের সঙ্গে পড়ানো হয়। এ জন্য আইসি সম্পর্কিত জ্ঞান ছাড়াও প্রগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ জানা থাকা চাই। এর বাইরে কম্পিউটার সফটওয়্যার এবং হার্ডওয়্যার-বিষয়ক ভালো জ্ঞান, অ্যানালিটিক্যাল এবং সমস্যা সমাধানের দক্ষতা, যোগাযোগ দক্ষতা এবং টিমভিত্তিক কাজ করার সক্ষমতা থাকা জরুরি।

দেশে প্রথমবারের মতো ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ভিএলএসআই ট্রেনিং একাডেমি অ্যান্ড আইসি ডিজাইন চালু হয় ২০১৬ সালে। এই একাডেমির মূল লক্ষ্য উচ্চ দক্ষতাসম্পন্ন পেশাদার জনবল তৈরি করা। অল্প সময়েই একাডেমিটি দেশীয় চিপ ডিজাইনিং কম্পানিগুলোর কাছ থেকে দারুণ সাড়া পেয়েছে। অন্যদিকে চিপ ডিজাইনিংকে যাঁরা পেশা হিসেবে নিতে চান, তাঁদেরও আগ্রহ বেড়েছে। এই একাডেমিতে ইন্ডাস্ট্রি গ্রেড সফটওয়্যার বা ক্যাডেন্স ব্যবহারের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করার মতো দক্ষ করে গড়ে তোলা হয়। ইন্ডাস্ট্রি ও একাডেমিক লোকদের যৌথ পরামর্শে প্রতিনিয়ত আপডেট করা হয় সিলেবাস। শিক্ষার্থীরা ক্লাসরুমে পড়ার পাশাপাশি বাস্তবে এর প্রয়োগ করতে পারেন। ইন্ডাস্ট্রির চাহিদা অনুযায়ী এখানে দেওয়া হয় প্রশিক্ষণ। প্রস্তুতিমূলক প্রশিক্ষণ শেষে শিক্ষার্থীরা ভিএলএসআইর লজিক এবং অবকাঠামো উন্নয়নে কাজ করার সামর্থ্য অর্জন করেন। পুরো ভিএলএসআই প্রশিক্ষণ কোর্সের কাঠামো এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে, যেন একজন শিক্ষার্থী প্রয়োজনীয় দক্ষতা অর্জন করতে পারেন।

ভিএলএসআই ট্রেনিং একাডেমিতে বছরে তিনবার ভর্তি হওয়া যায়। প্রশিক্ষণ চলে তিনটি প্রগ্রামে—পিএনআর (প্লেস অ্যান্ড রাউট), এআইসি (এনালগ আইসি ডিজাইন) এবং স্ক্রিপ্ট রাইটিং। এ পর্যন্ত ১৭০ জন প্রশিক্ষণ নিয়েছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা