kalerkantho

শুক্রবার । ১২ আগস্ট ২০২২ । ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১৩ মহররম ১৪৪৪

নতুন জুতায় ঈদ

ঈদে নতুন পোশাকের সঙ্গে চাই নতুন জুতা। এবারও ঈদ ঘিরে নতুন নতুন ডিজাইনের জুতা পাওয়া যাচ্ছে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের শোরুমে। শপিং মলগুলো ঘুরে এসে বিস্তারিত জানাচ্ছেন আতিফ আতাউর

৪ জুলাই, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



নতুন জুতায় ঈদ

ছবি: কালের কণ্ঠ

ঈদ উত্সব ও নানা উপলক্ষে নতুন জুতার আকাঙ্ক্ষা থাকে সবার। নতুন পোশাকের ট্রেন্ডের সঙ্গে যুক্ত হয় জুতা। এ জন্য তাই মার্কেটগুলোর জুতার শোরুমেও ক্রেতাদের আনাগোনা বাড়ছে।

মাকে নিয়ে মিরপুর থেকে নিউ মার্কেটে এসেছিল উচ্চ মাধ্যমিক দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী রাইসা আফরিন।

বিজ্ঞাপন

ঈদের পোশাক কেনাকাটা সেরে ফেলেছে সে। জানাল, এখন শেষ মুহূর্তের কেনাকাটায় ব্যস্ত। পছন্দের জুতা খুঁজছিল একটি ব্র্যান্ডের শোরুমে। জুতা সবার শেষে কেন জানতে চাইলে তার উত্তর, ‘পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে জুতা পরতে পছন্দ করি। তাই সবার শেষে জুতা কিনি। এরপর যাব গয়না কিনতে। সেটিও কিনব পোশাকের রং আর প্যাটার্নের সঙ্গে মিলিয়ে। ’

এবার যেহেতু বৃষ্টি ও রোদ এমন আবহাওয়ায় ঈদ, তাই দুই জোড়া জুতা কেনার পরিকল্পনা আফরিনের। এক জোড়া বৃষ্টিবান্ধব; আরেক জোড়া স্টাইলিশ। যাতে শাড়ি বা থ্রি পিসের সঙ্গে পরে উত্সবের দিন ঘোরাঘুরি করতে পারে।

জুতার ব্র্যান্ডগুলোরও মনোযোগ ক্রেতাদের আরাম আর ফ্যাশনের দিকে। প্রায় প্রতিটি জুতার ব্র্যান্ড রোদ, বৃষ্টি, উত্সব, জিম বা হাঁটা ও ঘরে পরার জন্য ভিন্ন ভিন্ন ডিজাইন ও ম্যাটেরিয়ালের জুতা এনেছে ঈদ উপলক্ষে। বাটার মার্কেটিং ম্যানেজার ইফতেখার মল্লিক জানালেন, প্রতি ঈদেই পাঁচ শর বেশি নতুন ডিজাইনের জুতা আনার পরিকল্পনা করেন তাঁরা। এবার ঈদেও সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়নের চেষ্টা করেছেন। বাটার শোরুমগুলোতে এরই মধ্যে নতুন নকশার জুতাগুলো শোভা পাচ্ছে। আরো নতুন নতুন ডিজাইনের জুতা পাইপলাইনে রয়েছে।

মূলত পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে জুতা কেনার চল থাকলেও এখন ফ্যাশনেবল ও শাইনি জুতার প্রতিও ক্রেতাদের আগ্রহ বাড়ছে। জুতা মানেই কালো আর চকোলেট রঙের, সেই ধারণায় পরিবর্তন এসেছে। কালো ও চকোলেটের পাশাপাশি লাল, সাদা, বাদামি, বেগুনি, নীলসহ একাধিক রঙের মিশেলেও জুতা তৈরি হচ্ছে। বলা যায়, জুতা এখন আর শুধু ফ্যাশন অনুষঙ্গ নয়, স্টাইল স্টেটমেন্টেরও অবিচ্ছেদ্য অংশ। পাঞ্জাবি বা কাবলির সঙ্গে লোফার বা স্নিকারস পরার চল বেশি তরুণদের মধ্যে। এ জন্য দেশীয় ব্র্যান্ডগুলোও নিয়ে এসেছে বিশেষ ডিজাইএনর লোফার।

মেয়েদের জুতায় ক্ল্যাসিক ফ্যাশনের ফ্ল্যাট স্যান্ডেল এখনো ট্রেন্ডে এগিয়ে। এই জুতার বৈশিষ্ট্য হচ্ছে শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ, টপস, জিন্স বা স্কার্ট সব ধরনের পোশাকের সঙ্গে সহজে মানিয়ে যায়। ঈদে এমন জুতায় উত্সবের আমেজ দিতে এবার জরি, চুমকি, কুন্দন ও সেলাইয়ের কারুকাজ করা হয়েছে। এ ছাড়া পাওয়া যাবে পাথর ও ফুলের নকশা করা জুতা। মেয়েদের জুতার ফিতার বুননে দেখা যাচ্ছে বাহারি ঢং। যাদের উচ্চতা অপেক্ষাকৃত কম, তাদের জন্য এমন ফ্ল্যাট স্যান্ডেল না পরাই ভালো। একটু উঁচু হিলওয়ালা জুতাই তাদের বেশি মানানসই। এক, দেড় ইঞ্চি বা দুই ইঞ্চি উচ্চতার হিলের জুতা এবারও থাকছে এগিয়ে। কয়েক বছর ধরেই গ্লিটার বেজড ম্যাটেরিয়াল ব্যবহূত হচ্ছে ব্র্যান্ডের মেয়েদের জুতায়। এবারও দেখা যাচ্ছে এই ধারা।

ফ্যাশনে তরুণ-তরুণীদের চাহিদার পুরোটা মেটাতে খামতি নেই দেশি ব্র্যান্ডগুলোর। তাইতো এবারও পোশাকের সঙ্গে ম্যাচিং করে জুতা এনেছে আড়ং, সেইলর, লা রিভ, নয়্যার, অঞ্জন’স, কে ক্রাফটসহ অনেক প্রতিষ্ঠান। পাওয়া যাবে কাপড়ের তৈরি বাহারি নকশা করা জুতা। ছোট ছোট পাথর, চুমকি আর চিকন ও মোটা সুতার কাঁথা ফোর সেলাইয়ের সমন্বয়ে আকর্ষণীয় ডিজাইন ফুটিয়ে তোলা হয়েছে এমন জুতায়।

এ ছাড়া বাটা, এপেক্স, বে এম্পোরিয়াম, লেদারেক্স, লোটোর মতো জুতার ব্র্যান্ডগুলোর আয়োজনেও থাকছে ঈদের জুতার সমাহার। রংবেরঙের চামড়ায় তৈরি জুতাগুলোতে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে নানা মোটিফ। উত্সবের কথা মাথায় রেখে রঙের ক্ষেত্রেও দেওয়া হয়েছে বাড়তি মনোযোগ।

ছেলেদের ক্যাজুয়াল ও ফরমাল দুই ধরনের জুতায়ই থাকছে উত্সবের আমেজ। ক্যাজুয়ালের মধ্যে রয়েছে স্যান্ডেল, স্লিপার, কেডস, স্নিকারস, কনভারস ও লোফার। পাশাপাশি লেদার ও আর্টিফিশিয়াল লেদারে তৈরি জুতাও পাওয়া যাবে শোরুমগুলোতে। ফরমাল শুর মধ্যে রয়েছে মোকাসিনো, লেদার ও এসপাড্রিল বুট শু। গরমে মোজা ছাড়া পরতে চাইলে বেছে নিতে পারেন সেমিফরমাল শু। ক্যাজুয়াল হলেও দেখতে অনেকটা ফরমাল লাগে। এ জন্য ফরমাল শার্ট-প্যান্টের সঙ্গেও সহজে মানিয়ে যায়।

বৃষ্টির মধ্যে স্বস্তিতে হাঁটাচলা করতে চাইলে প্লাস্টিক বা পানি নিরোধক জুতা বেছে নিতে পারেন। বৃষ্টিতে ভিজে যাতে নষ্ট না হয় এ জন্য প্লাস্টিক ম্যাটারিয়ালে তৈরি জুতা এনেছে ব্র্যান্ডগুলো। এসব জুতায় একটু উঁচু হিল দেওয়া হয়েছে, যাতে হাঁটতে গেলে পানিতে পা না ভেজে।



সাতদিনের সেরা