kalerkantho

শনিবার । ৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৪ জুলাই ২০২১। ১৩ জিলহজ ১৪৪২

জামাই ষষ্ঠী

জামাই আদর বলে কথা!

জামাইষষ্ঠীতে জমজমাট জামাই আদর না হলে কি চলে? রেসিপি দিয়েছেন অসিত কর্মকার সুজন। ছবি : নীরব

১৪ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৬ মিনিটে



 জামাই আদর  বলে কথা!

পরশু মানে ১৬ জুন সনাতন ধর্মাবলম্বীদের জামাই ষষ্ঠী উত্সব। একসময় সংস্কার ছিল, ভারতবর্ষ তথা দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন দেশে মেয়ের বিয়ের পর তাঁর মা-বাবা মেয়ের বাড়িতে তত দিন পর্যন্ত যেতে পারবেন না, যত দিন না মেয়ে সন্তানসম্ভাবনা হন বা সন্তান জন্ম দেন। ফলে কোনো মেয়ে সন্তান ধারণে অক্ষম বা প্রসবে বাধা এলে মা-বাবার দীর্ঘদিন কেটে যেত মেয়ের মুখদর্শনে। বর্তমানে এ প্রথা একটু বদলেছে। এখন নিয়ম হয়েছে, যিনি কন্যাদান করবেন, তিনি এক বছর মেয়ের বাড়িতে কিছু খেতে পারবেন না। সে ক্ষেত্রে বিবাহিত কন্যার মুখদর্শন কিভাবে ঘটবে? জ্যৈষ্ঠ মাসের শুক্লাষষ্ঠীর দিনটিকে তাই বেছে নেওয়া হলো জামাই ষষ্ঠীর দিন হিসেবে। যেখানে মেয়ে-জামাইকে নিমন্ত্রণ করা হবে এবং তাঁদের সমাদর করা হবে। সঙ্গে মা ষষ্ঠীর পূজা করা হবে, যাতে মেয়ে-জামাই সত্বর সন্তানের মুখ দেখতে পান।

জামাই ষষ্ঠীর দিন জামাইয়ের হাতে হলুদ মাখানো সুতা বেঁধে দেওয়া হয় মা ষষ্ঠীর আশীর্বাদস্বরূপ। এই উত্সবই জামাই ষষ্ঠী নামে পরিচিতি পেল।

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা

কৃতজ্ঞতা : বিশ্বরঙ

 

 

রুই কালিয়া

উপকরণ

রুই মাছ ৪ টুকরা (মাঝারি আকারের), পেঁয়াজ বাটা আধা কাপ, আদা বাটা ২ চা চামচ, জিরা বাটা ২ চা চামচ, শুকনা মরিচ গুঁড়া ২ চা চামচ, হলুদ গুঁড়া ২ চা চামচ, টমেটো পেস্ট আধা কাপ, কাঁচা মরিচ ৪টি, তেজপাতা ১টি, শুকনা মরিচ ২টি, গরম মসলা গুঁড়া আধা চা চামচ, গোটা জিরা ১ চা চামচের চার ভাগের এক ভাগ, সরষের তেল ১ কাপ, লবণ স্বাদমতো।

যেভাবে তৈরি করবেন

১. মাছ ভালোভাবে ধুয়ে সামান্য লবণ-হলুদ মেখে ভেজে তুলে রাখুন।

২. এবার একই তেলে একে একে তেজপাতা, শুকনা মরিচ ও গোটা জিরা ফোড়ন দিয়ে পেঁয়াজ বাটা দিন। পেঁয়াজ বাটার কাঁচা গন্ধ চলে গেলে একে একে বাকি সব মসলা দিয়ে কষিয়ে টমেটো পেস্ট ও স্বাদমতো লবণ দিন।

৩. আবারও কষিয়ে এক কাপ পানি ও সামান্য চিনি দিন। ঝোল কিছুটা ঘন হয়ে এলে ভেজে রাখা মাছ ঝোলে দিয়ে আরো ২ মিনিট রান্না করুন। আস্ত কাঁচা মরিচ ও গরম মসলা ছড়িয়ে নামিয়ে ভাত বা পোলাওয়ের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

 

মোতি-মোহন পোলাও

উপকরণ

মোতি-মোহনের জন্য :

নারকেল বাটা ১ কাপ, ভাজা বাদাম কুচি আধা কাপ, কিশমিশ বাটা আধা কাপ, মাওয়া আধা কাপ, তরল দুধ আধা কাপ, ঘি ১ কাপ, ময়দা আধা কাপ, লবণ স্বাদমতো।

পোলাওয়ের জন্য :

পোলাও চাল ৫০০ গ্রাম, এলাচ ২টি, আস্ত জিরা ১ চা চামচ, দারচিনি ২ টুকরা, তেজপাতা ১টি, আদা বাটা ১ টেবিল চামচ, গুঁড়া দুধ ১ টেবিল চামচ, তেল আধা কাপ, ঘি ১ কাপ, লবণ পরিমাণমতো, গরম পানি পরিমাণমতো।

যেভাবে তৈরি করবেন

১. মোতি-মোহনের সব উপকরণ পরিমাণমতো নিয়ে ভালোভাবে মেখে ছোট ছোট মোতির আকারে গড়ে ঘিয়ে ভেজে তুলে রাখুন।

২. পোলাও চাল ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন।

৩. এবার পাত্রে ঘি ও তেল দিয়ে একে একে আস্ত ও বাটা মসলা দিয়ে চাল দিন। চাল ভাজা ভাজা হয়ে এলে পরিমাণমতো গরম পানি দিয়ে আঁচ কমিয়ে পোলাও দমে দিয়ে রাখুন ১৫ মিনিটের জন্য।

৪. ভেজে রাখা মোতি ও গুঁড়া দুধ পোলাওয়ের সঙ্গে মিশিয়ে ঢেকে রাখুন পাঁচ মিনিট। এরপর নামিয়ে পছন্দমতো সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

 

ভাপা মুরগি

উপকরণ

মুরগির মাংস ২৫০ গ্রাম, সরষে বাটা ১ চা চামচ, পোস্ত বাটা ২ চা চামচ, নারকেল বাটা ২ চা চামচ, পেঁয়াজ বাটা ২ চা চামচ, রসুন বাটা আধা চা চামচ, কাজুবাটা ২ চা চামচ, কাঁচা মরিচ বাটা ১ চা চামচ, ক্রিম ২ চা চামচ, গরম মসলা আধা চা চামচ, লেবুর রস ১ চা চামচ, লবণ স্বাদমতো, ঘি ৪ চা চামচ, পানি সামান্য।

যেভাবে তৈরি করবেন

১. মুরগির মাংসের টুকরা ভালো করে ধুয়ে লেবুর রস মেখে পাঁচ মিনিট রেখে দিন।

২. এবার বাকি সব উপকরণ দিয়ে মুরগি মেখে একটি টিফিন বক্সে নিয়ে ঢাকনা বন্ধ করে ১০ মিনিট ভাপে রান্না করুন।

৩. নামিয়ে আরো ১০ মিনিট পর ঢাকনা খুলে পরিবেশন করুন।

 

ছানা-আলু মাখা

 

উপকরণ

ছানা ২ কাপ, আলু ১০০ গ্রাম, আদাবাটা ২ চা চামচ, হলুদ গুঁড়া ২ চা চামচ, জিরা গুঁড়া ২ চা চামচ, শুকনা মরিচ গুঁড়া ২ চা চামচ, কিশমিশ বাটা ১ চা চামচ, তেজপাতা ২টি, আস্ত জিরা ১ চামচ, ভিনেগার অল্প, কাঁচা মরিচ ২টি, ঘি ২ চা চামচ, ময়দা সামান্য, লবণ স্বাদমতো।

যেভাবে তৈরি করবেন

১. তরল দুধে বলক এলে ভিনেগার দিয়ে পানি ভালো করে ছেঁকে নিন। ছানা পেয়ে যাবেন। ২. এবার ছানার মধ্যে পরিমাণমতো ময়দা ও সামান্য আদাবাটা ও হলুদ গুঁড়া দিয়ে মেখে পছন্দমতো আকারে গড়ে তেলে ভেজে তুলে রাখুন।

৩. আলু ডুমো করে কেটে ধুয়ে সামান্য লবণ ও হলুদ মেখে ভেজে রাখুন।

৪. এবার প্যানে পরিমাণমতো তেল দিয়ে তাতে জিরা ও তেজপাতা ফোড়ন দিয়ে একে একে সব মসলা দিয়ে কষিয়ে পানি দিন। বলক এলে ভেজে রাখা আলু দিন। আরো কিছু পরে ভেজে রাখা ছানা দিয়ে সাবধানে নাড়ুন। কিছুটা ঘন হয়ে এলে গরম মসলা ও ঘি ছড়িয়ে  নামিয়ে পরিবেশন করুন।

 

আনারস-গুড়ের খাট্টা

 

উপকরণ

আনারস বাটা ৪ কাপ, গুড় ১ কাপ, নারকেল বাটা আধা কাপ,  তেঁতুলের ক্বাথ ১ টেবিল চামচ, লবণ সামান্য, পানি ১ কাপ।

সরষে তেল ২ চা চামচ, পাঁচফোড়ন আধা চা চামচ।

যেভাবে তৈরি করবেন

১. পাঁচফোড়ন বাদে বাকি সব উপকরণ ভালোভাবে মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করুন।

২. প্যানে তেল গরম করে ফোড়ন দিয়ে মিশ্রণ ঢেলে দিন।

৩. কিছুটা ঘন হয়ে এলে নামিয়ে ঠাণ্ডা করে পরিবেশন করুন।