kalerkantho

বুধবার । ৫ কার্তিক ১৪২৭। ২১ অক্টোবর ২০২০। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

পূজায় পূজার মজার পদ

নৃত্যশিল্পী পূজা সেনগুপ্ত পূজার কয়েকটি দিন জমিয়ে খান। নিজের আগ্রহেই শিখেছেন পছন্দের পদগুলো রান্নার রেসিপি। এবার পূজায় নিজের চারটি সিগনেচার ডিশের রেসিপি দিলেন এ-টু-জেডের পাঠকদের

১৯ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



পূজায় পূজার মজার পদ

সাজ শোভন মেকওভার , ছবি আবু সুফিয়ান নিলাভ

লাউ ক্ষীর

 

উপকরণ

লাউ কুচি আধা কাপ, এলাচি ৫টি, সাবুদানা আধা কাপ, বাদাম ১০০ গ্রাম, তরল দুধ ১ লিটার, চিনি এক কাপ, কেওড়া জল পছন্দমতো।

যেভাবে তৈরি করবেন

১. প্রথমে এক লিটার দুধ গরম করুন। দুধ ফোটা শুরু হলে লাউ কুচি দিন। আগেই লাউয়ের মধ্য থেকে পানি বের করে নিন।

২. এবার সাবুদানা দিয়ে পরিমাণমতো গরম পানি দিন। ফুটতে ফুটতে একসময় মিশ্রণটি গাঢ় ও ঘন হয়ে আসবে। তখন বুঝবেন লাউ সিদ্ধ হয়ে গেছে।

৩. এরপর চিনি দিয়ে ভালোমতো নাড়ুন। ওপরে এলাচি ও বাদাম ছড়িয়ে দিন। একদম শেষে একটু কেওড়া জল দিন।

৪. মাটির পাত্রে ঢেলে ফ্রিজে ঠাণ্ডা করে পরিবেশন করুন মজাদার লাউয়ের ক্ষীর।

 

আচারি কুমড়া

উপকরণ

মিষ্টি কুমড়া এক ফালি, বেগুন ২টি, হলুদ ও মরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ করে, আস্ত জিরা আধা চামচ, শুকনা মরিচ ৪-৫টি, পাঁচফোড়ন ১ চা চামচ, টমেটো ফালি ১ কাপ, পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ, তেল ১ কাপ, আমসত্ত্ব পরিমাণমতো।

যেভাবে তৈরি করবেন

১.   বেগুন ও মিষ্টি কুমড়া কেটে হলুদ ও মরিচ গুঁড়া দিয়ে মেখে নিন।

২. এরপর চুলায় পাত্র বসিয়ে তেল গরম দিন। শুকনা মরিচ ও পাঁচফোড়ন দিন। মরিচ কালো হয়ে এলে পেঁয়াজ কুচি, জিরা দিন।

৩. এবার পরিমাণমতো লবণ দিয়ে টমেটো দিয়ে দিন। এতে মরিচের গুঁড়া দিন।

৪. এরপর টুকরো করে কেটে আমসত্ত্ব দিন।

৫.   ৫ মিনিট চুলায় ঢেকে রেখে নামিয়ে নিন। ব্যস, হয়ে গেল মজাদার আচারি কুমড়া।

 

লাল-সবুজ পনির

যেভাবে তৈরি করবেন

১. দুধ খুব ভালো করে ফুটিয়ে নিতে হবে। যখন দুধ ফোটা শুরু করবে তখন সেখানে ভিনেগার দিতে হবে। এরপর সেখান থেকে ছানা বের হবে। সুতির কাপড়ে ছানা ছেঁকে নিতে হবে। ছানা থেকে পানি ছেঁকে নিতে হবে।

২. এরপর কোনো ভারী কিছুতে চাপা দিয়ে পানি বের করতে হবে। পানি কোনোভাবেই রাখা যাবে না। একদিন ফ্রিজে রেখে দিতে হবে।

৩.  টমেটো ৪ টুকরা করে নিন। দুই লিটার দুধের সঙ্গে টমেটো মিশিয়ে নিন। এরপর কুচি কুচি করে চারটি পেঁয়াজ কেটে একটা কড়াইয়ে একটু বেশি পরিমাণে তেল দিয়ে তাতে দারচিনি, লবঙ্গ, হলুদ, পাঁচফোড়ন ও পেঁয়াজ দিয়ে নাড়তে হবে। এরপর রসুনের চারটি কোয়া দিয়ে নাড়ুন। রং বাদামি হলে দুধ মেশানো টমেটো দিয়ে ঢেকে দিন।

৩. সিদ্ধ হলে কড়াই নামিয়ে ঠাণ্ডা করতে হবে ফ্যানের বাতাসে। কাজুবাদাম ও কুমড়ার বিচি ভালোমতো গরম পানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে। একটা কড়াইয়ে এক টেবিল চামচ তেলের মধ্যে জিরা গুঁড়া, ধনেগুঁড়া, দারচিনি দিয়ে মিশিয়ে নিতে হবে। রং গাঢ় হলে মসলা নামিয়ে রাখুন। এই মসলা ফ্রিজে সংরক্ষণ করতে পারবেন এক সপ্তাহের মতো।

৪. এরপর মাখনের মধ্যে কিউব করে কাটা পনির দিয়ে একটু ভেজে তৈরি করে রাখা টমেটো ও ক্যাপসিকাম এর পাশে দিয়ে দিন। এরপর যে মসলা তৈরি করা হয়েছিল সেটা মিশিয়ে দিন। কিছুক্ষণ চুলার আঁচে রেখে দিলেই হয়ে যাবে লাল-সবুজ পনির।

 

উপকরণ

পনির, দুধ, ভিনেগার, টমেটো ৪টি, কাজুবাদাম ও মিষ্টি কুমড়া বিচি কয়েক টুকরা, জিরা গুঁড়া ও ধনেগুঁড়া আধা চা চামচ করে, লবঙ্গ ও দারচিনি তিন টুকরা করে, সয়াবিন তেল দুই কাপ, মাখন সামান্য, ক্যাপসিকাম কিউব করে কাটা একটা, হলুদ ও পাঁচফোড়ন সামান্য, চার কোয়া রসুন।

 

নারকেলের সন্দেশ

উপকরণ

নারকেল ১টি, কোরানো নারকেল ২ টেবিল চামচ, তরল দুধ ২৫০ গ্রাম, কনডেন্সড মিল্ক ৩ চা চামচ, চিনি এক কাপ।

 

যেভাবে তৈরি করবেন

১. নারকেল ছোট ছোট টুকরা করে কেটে নিন।

২. এরপর তরল দুধ ও নারকেল ব্লেন্ডারে ভালোমতো ব্লেন্ড করে নিন।

৩. আধা কাপ চিনি দিয়ে ব্লেন্ড করা মিশ্রণটি পাতিলে নিয়ে চুলায় বসিয়ে দিন। দুধের সঙ্গে যে পানি থাকে সেটা আস্তে আস্তে কমে যাবে।

৪. কোরানো নারকেল দিয়ে একেবারে ঘন হয়ে আসা পর্যন্ত নাড়তে থাকুন। এবার তিন চা চামচ কনডেন্সড মিল্ক দিন। মিষ্টি বেশি খেলে সঙ্গে দুই চা চামচ চিনি দিন।

৫. ঠাণ্ডা হলে খামিরে ভরে সন্দেশ   বানিয়ে নিন।

 

পূজা সেনগুপ্ত জানান, সবজি আর মিষ্টি তার পছন্দ তালিকার শীর্ষে। রেসিপি দেওয়ার বেলায়ও প্রাধান্য পেল তা।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা