kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৩ কার্তিক ১৪২৭। ২৯ অক্টোবর ২০২০। ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

ত্বকের যত্নে গোলাপের পাপড়ি

শুকনা গোলাপ ফুলের পাপড়িচূর্ণ ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সাহায্য করে। দূর করে ত্বকে থাকা নানা রকম দাগ। কিভাবে ব্যবহার করবেন জানালেন বায়োকেয়ার বাংলাদেশের সিইও ডা. মো. শরিফুল ইসলাম। লিখেছেন আতিফ আতাউর

২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



ত্বকের যত্নে গোলাপের

পাপড়ি

 

 

পনির নুডলস

 

 

উপকরণ

 

নুডলস ১ প্যাকেট, পনির টুকরা ১ কাপ, ডিম ২টি, পেঁয়াজকুচি আধা কাপ, কাঁচা মরিচ ২-৩টি, গোলমরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ, চাট মসলা সামান্য, সয়া সস ১ টেবিল চামচ, টমেটো সস ১ টেবিল চামচ, সয়াবিন তেল ও লবণ।

 

যেভাবে তৈরি করবেন

 

১.   প্রথমে একটি হাঁড়িতে পানি গরম করুন। পানি ফুটে উঠলে তাতে নুডলস ছেড়ে দিন। পরিমাণমতো লবণ ও  ২ চা চামচ সয়াবিন তেল দিন। সিদ্ধ হয়ে গেলে ঝাঁঝরিতে ঢেলে সঙ্গে সঙ্গে ঠাণ্ডা পানি ঢালুন। এতে নুডলস একটির সঙ্গে আরেকটি লেগে যাবে না। পরে পানি ঝরাতে দিন।

২.   একটি কড়াইয়ে তেল নিন। তেল গরম হলে ডিম ভেঙে দিন। নেড়ে ডিম ঝুরি করে নিন। এবার পেঁয়াজকুচি দিয়ে ভালোভাবে নাড়ুন। একটু নেড়ে সয়া সস দিন। মরিচ মিশিয়ে নাড়ুন। সয়া সস ভালোভাবে মিশে গেলে টমেটো সস দিন। অল্প আঁচে দুই মিনিট নাড়ুন।

৩.   এবার সিদ্ধ করা ঝরিয়ে রাখা নুডলস মেশান। গোলমরিচের গুঁড়া, চাট মসলা ও পনির ছিটিয়ে দু-এক মিনিট নাড়ুন। ব্যস, তৈরি হয়ে গেল পনির নুডলস।

 

প্রাচীনকাল থেকেই সুগন্ধ, সৌন্দর্য ও চিকিত্সাশাস্ত্রে ব্যবহূত হয়ে আসছে গোলাপ। অন্দরের সৌন্দর্য বাড়াতে তাজা গোলাপ ফুল ব্যবহার করেন অনেকেই। ব্যবহার শেষে শুকনা গোলাপ ফেলে দেন কেউ কেউ। এটা ফেলে না দিয়ে সংরক্ষণ করতে পারেন। গোলাপ রোদে শুকিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে মিহি গুঁড়া করে কাচের পাত্রে বা প্লাস্টিকের ব্যাগে ভরে রাখুন।

 

কিভাবে ব্যবহার করবেন

গোলাপের পাপড়িচূর্ণ মূলত ফেস মাস্ক হিসেবে বেশি ব্যবহার করা হয়। সকালে বা রাতে একটি পাত্রে আধা চা চামচ গোলাপের পাপড়ি গুঁড়া নিন। সমপরিমাণ পানি মেশান। এরপর মুখে হাতের আঙুলের সাহায্যে সামান্য পুরু করে প্রলেপ দিন। গোলাপ পাপড়ির প্রলেপ দেওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই ত্বকে টান ধরবে। পাপড়ির মিশ্রণ শুকিয়ে যাওয়ার কারণে ত্বকে এমন টান ধরে। এভাবে ১৫ মিনিট রেখে দিন। এরপর মুখে আস্তে আস্তে পানির ঝাপটা দিন। চাইলে নরম কাপড় ভিজিয়ে মুখের ওপর দিয়ে রাখতে পারেন। হাত দিয়ে ডলে দ্রুত প্রলেপ তুলতে যাবেন না। গোলাপের গুঁড়ার ফেস মাস্ক ভিজে নরম হতে দিন। তারপর ধীরে ধীরে ত্বকের ওপর থেকে তুলে ফেলুন। এরপর ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ভালো করে ধুয়ে গামছা বা তোয়ালের সাহায্যে মুছে নিন।

 

উপকার

গোলাপের পাপড়ির ফেস মাস্ক ব্যবহারে তাত্ক্ষণিক ত্বকে উজ্জ্বল ভাব আসে। মিশ্রণে সামান্য হলুদ গুঁড়া মিশিয়ে নিলে আরো ভালো ফল পাবেন। এতে ত্বকে হলুদ আভা দেখায়। নিয়মিত ব্যবহারের ফলে গোলাপে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট উপাদান ত্বকের বিভিন্ন দাগ দূর করে। প্রাকৃতিক স্ক্র্যাব হিসেবেও কাজ করে এটি। এতে লোমকূপের মুখে থাকা তেল শুষে নেয়, ত্বকের গভীর থেকে ময়লা দূর হয়। সপ্তাহে একবার গোলাপচূর্ণের সঙ্গে সমপরিমাণ দুধ মিশিয়ে ঘন মিশ্রণ বানিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। এতে রুক্ষ ত্বক নরম ও কোমল হয়। দুধের পরিবর্তে মধু মিশিয়েও ব্যবহার করতে পারেন। একই ফল পাওয়া যাবে। রোদে গেলে ত্বকে অনেক সময় জ্বালাপোড়া করে। রোদ থেকে এসে গোলাপচূর্ণ ব্যবহার করুন। ত্বক ঠান্ডা হবে। গোলাপে থাকা অ্যান্টি-অ্যাজিং উপাদান ত্বকে বয়সের ছাপ পড়তে বাধা দেয়। বলিরেখা দূর করতে সাহায্য করে।

বাজারে অনেক ধরনের গোলাপ পাপড়িচূর্ণ কিনতে পাওয়া যায়। চাহিদা বাড়ানোর জন্য অনেক সময় এতে কৃত্রিম সুগন্ধি ও নানা রাসায়নিক ব্যবহার করা হয়। এ জন্য ভালো ব্র্যান্ডের গোলাপ পাপড়িচূর্ণ ব্যবহার করুন। সবচেয়ে ভালো হয় গোলাপ ফুল কিনে বাড়িতে শুকিয়ে চূর্ণ তৈরি করে নিলে। 

ছবি : আবু সুফিয়ান নিলাভ

 

মন্তব্য