kalerkantho

শনিবার । ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭। ৮ আগস্ট  ২০২০। ১৭ জিলহজ ১৪৪১

রেসিপি

বৃষ্টির মুচমুচে বিকাল

বৃষ্টির বিকালে মুচমুচে মুখরোচক পদের রেসিপি দিয়েছেন ফাহা হোসাইন

৬ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৯ মিনিটে



বৃষ্টির মুচমুচে বিকাল

ক্রিসপি ফুচকা

উপকরণ

ময়দা ১ কাপ, সুজি ১/৩ কাপ, তালমাখনা ১ চা চামচ, তেল ২ টেবিল চামচ, লবণ ১/৩ চা চামচ, পানি ২-৩ কাপ।

 

যেভাবে তৈরি করবেন

১.      প্রথমে একটি পাত্রে ময়দা, লবণ ও তালমাখনা একসঙ্গে নিয়ে তেল দিয়ে মিশিয়ে নিন। এবার এতে অল্প অল্প করে পানি মিশিয়ে ময়ান করে নিন।

২.      ময়ান ঘণ্টাখানেক ঢেকে রেখে দিন। এরপর খামির ৪-৫টি ভাগে ভাগ করে বাকিগুলো আবারও ঢেকে রেখে ১ ভাগ নিয়ে ময়দা ছিটিয়ে পাতলা করে রুটি বেলে নিন। এই রুটির এক পাশ আরেক পাশের ওপর বসিয়ে একটু চেপে দিন।

৩.     রুটিটি আবারও পাতলা করে বেলে নিন এবং কাটার দিয়ে গোল করে কেটে নিন।

৪.     ফুচকা বানিয়ে ৪-৫ মিনিট ঢেকে দিন। তেল ধোঁয়া ওঠা গরম করে অনেক আঁচে ফুচকা তেলে দিন।

৫.     ফুচকা তেলের ওপর উঠে এলে আঁচ কমিয়ে মাঝারি করে নিন এবং বাদামি রং করে দুই পাশ ভেজে নিন। তেল থেকে উঠিয়ে ঠাণ্ডা করে এয়ারটাইট বয়ামে ভরে সংরক্ষণ করুন। এতে মচমচে থাকবে।

 

ফুচকার পুরের উপকরণ

শুকনা মটর ৫০০ গ্রাম, আলু ৫০০ গ্রাম, ডিম ২টি, তেঁতুলবীজ ছাড়ানো ১০০ গ্রাম, শুকনা মরিচ ১২টা, জিরা ১ টেবিল চামচ, ধনিয়া ১ টেবিল চামচ, রাঁধুনি ১ টেবিল চামচ, মেথি ১ চা চামচ, গোলমরিচ ২০টি, কালিজিরা ১ চা চামচ, মৌরি ২ চা চামচ, লবঙ্গ ৫টি, পাঁচফোড়ন ১ চা চামচ, চিনি ২ চা চামচ।

 

ফুচকার পুর যেভাবে তৈরি করবেন

১.      শুকনা মটর ধুয়ে ডুবো পানিতে সারা রাত ভিজিয়ে রাখুন। পরদিন সকালে আবারও ধুয়ে পরিমাণমতো পানিতে সিদ্ধ করুন। তাড়াতাড়ি সিদ্ধ করতে চাইলে আধা চা চামচ খাবার সোডা দিতে পারেন।

২.      এবার তেঁতুল ধুয়ে পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। কিছুক্ষণ পর চালনিতে চেলে তেঁতুলের মাড় তুলে নিন।

৩.     এতে চিনি, ১ চা চামচ ভাজা জিরা গুঁড়া, আধা চা চামচ মরিচ গুঁড়া দিয়ে মিশিয়ে নিন। প্রয়োজনে কিছুটা পানি যোগ করতে পারেন।

৪.     আলু সিদ্ধ করে খোসা ছাড়িয়ে টুকরা করে নিন।

৫.     এবার সব মসলা আলাদা আলাদা টেলে নিয়ে একসঙ্গে গুঁড়া করে নিন। এরপর হালকা টেলে নিন। এটি চটপটি মসলা।

৬.     মটর ভালোভাবে সিদ্ধ হলে আলু, লবণ এবং আরো গরম পানি প্রায় ডুবিয়ে দিয়ে কম আঁচে এক ঘণ্টা রান্না করুন। এর মধ্যে কিছুটা তেঁতুলের টক দিয়ে দিন।

৭.      নামানোর ১০-১৫ মিনিট আগে চটপটির মসলার প্রায় অর্ধেক ও বিট লবণ দিন আন্দাজমতো।

৮. এবার চটপটি মসলা, ফুচকা, ডিম ইত্যাদি দিয়ে পরিবেশন করুন।

 

বিফ সমুচা

উপকরণ

গরুর মাংসের কিমা ২ কাপ, আদা বাটা ১ চা চামচ, রসুন বাটা ১ চা চামচ, গরম মসলা গুঁড়া ১ চিমটি, গোলমরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ, কাঁচা মরিচ কুচি ২ চা চামচ, পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ, পুদিনাপাতা কুচি ২ চা চামচ, লবণ ১/৩ চা চামচ, তেল ২ কাপ।

 

সমুচার ডো তৈরি করতে যা যা লাগবে :

ময়দা ২ কাপ, লবণ ১/৩ চা চামচ, পানি ময়ান করতে যতটুকু লাগে।

 

যেভাবে তৈরি করবেন

১.      কিমার সঙ্গে পেঁয়াজ কুচি, পুদিনাপাতা, কাঁচা মরিচ বাদে সব উপকরণ এক সঙ্গে মেখে চুলায় বসিয়ে ঢেকে অল্প আঁচে ১৫-২০ মিনিট রেখে দিন।

২.      এরপর ঢাকনা উঠিয়ে চুলার আঁচ বাড়িয়ে দিন। আলাদা করে রাখা পেঁয়াজ, পুদিনা, কাঁচা মরিচ দিয়ে কিছুক্ষণ নেড়ে নামিয়ে রাখুন।

৩.     এখন ময়দার সঙ্গে লবণ, অল্প পানি দিয়ে মেখে সাধারণ রুটির মতো করে ডো করে নিন। এই ডো থেকে ছোট ছোট বল বানিয়ে তা থেকে রুটি বানিয়ে নিন।

৪.     রুটির ওপর অল্প ময়দার গুঁড়া ছিটিয়ে দিন। এবার রুটিতে সামান্য তেল মেখে আর একটি রুটি দিয়ে চেপে দিন।

৫.     পুনরায় ময়দার গুঁড়া, তেল মেখে আরেকটি রুটি দিন। এভাবে সব রুটি একসঙ্গে করে আবার বেলে নিন।

৬.     এবার ননস্টিক তাওয়ায় রুটি হালকা করে এপাশ ওপাশ ভেজে নিন। খেয়াল রাখুন, যাতে নরমাল রুটি ভাজার মতো না হয়ে যায়, কাঁচা ভাবটা যাতে থাকে।

৭.      এবার রুটিটি মাঝ বরাবর লম্বা করে কেটে নিন। ঠিক একইভাবে অপর দিকও কেটে নিন। ত্রিকোনাকার শেপ হবে প্রতিটি রুটির টুকরা।

৮.     এবার খুব সাবধানে সবগুলো রুটি আলাদা আলাদা করে ছাড়িয়ে নিন।

৯.      এখন একটি করে অংশ নিয়ে পানের খিলির মতো ভাঁজ দিয়ে ভেতরে কিমার পুর দিয়ে বাড়তি অংশ আটার গোলা (আটা পানি দিয়ে গুলিয়ে) দিয়ে আটকে দিন।

১০.    সবশেষে গরম তেলে ভেজে পরিবেশন করুন মজাদার বিফ সমুচা।

 

সফট চিকেন রোল

উপকরণ

ময়দা ১ কাপ, চালের আটা সিকি কাপ, লবণ আধা চা চামচ, ডিম ১টি, চিকেন কিমা ১ কাপ, আলু কিউব করে কাটা ১ কাপ, আদা বাটা ১ চা চামচ, রসুন বাটা ১ চা চামচ, মরিচ গুঁড়া ১/৩ চা চামচ, গরম মসলা গুঁড়া ১ চা চামচ, তেল পরিমাণমতো, পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ, ডিম ২টি, ব্রেডক্রাম ১ কাপ, তেল ভাজার জন্য ২ কাপ।

 

যেভাবে তৈরি করবেন

১.      প্রথমে একটা বড় পাত্রে ময়দার সব উপকরণ নিয়ে বাটার তৈরি করে নিন।

২.      পুর তৈরি করার জন্য ফ্রাইপ্যানে তেল দিয়ে আলু ভেজে নামিয়ে নিন।

৩.     আবার প্যানে তেল দিয়ে চিকেন কিমা ভেজে নিন। আদা, রসুন বাটা, মরিচ গুঁড়া, ধনে গুঁড়া, হলুদ গুঁড়া, সব মসলা দিয়ে চিকেন কষিয়ে নিন। এবার ভাজা আলু ও পেঁয়াজ কুচি দিয়ে আরো কিছুক্ষণ কষিয়ে নামিয়ে ঠাণ্ডা করে নিন।

৪.     ফ্রাইপ্যানে তেল ব্রাশ করে গোল বড় চামচের এক চামচ বাটার দিয়ে প্যানটা ঘুরিয়ে নিন দুই থেকে তিন মিনিট। হয়ে গেলে নামিয়ে নিন।

৫.     বড় থালা থেকে রুটি নিয়ে আবার প্যানে তেল দিয়ে আবার বাটার দিয়ে প্যান ঘুরিয়ে নিন। এর ফাঁকে হয়ে যাওয়া রুটির মধ্যে রান্না করা পুর দিয়ে রোল তৈরি করে নিন। একেক করে সবগুলো রোল তৈরি করে নিন।

৬.     এবার একটি প্লেটে ব্রেডক্রাম নিন। আরেকটি পাত্রে ডিম ফেটিয়ে নিন। বানানো রোল একটি করে ফেটানো ডিমে ডুবিয়ে নিন। এরপর তাতে ব্রেডক্রাম ভরে প্লেটে রেখে দিন। এভাবে সবগুলো হয়ে গেলে আধাঘণ্টা ফ্রিজে রেখে দিন। ফ্রিজ থেকে বের করে ডুবো তেলে ভেজে নিন।

৭.   এবার সস দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

 

ফ্রেঞ্চ ফ্রাই

উপকরণ

বড় সাইজের আলু ৪টি, লবণ ১ টেবিল চামচ, পানি পরিমাণমতো এবং ভাজার জন্য তেল পরিমাণমতো।

 

যেভাবে তৈরি করবেন

১.      আলুগুলো যেন পানিতে ডুবে থাকে এই পরিমাণ পানি গরম করতে দিন। এবার আলুগুলো লম্বা মোটা করে কেটে পানিতে ভিজিয়ে রাখুন।

২.      পানিতে বলক আসলে আলু দিন। সঙ্গে এক টেবিল চামচ লবণ দিয়ে সিদ্ধ করুন ঘড়ি ধরে ৫ মিনিট চুলার আঁচ ফুল রেখে।

৩.     এরপর আলু চুলা থেকে নামিয়ে একটা ঝাঁজরিতে ঢেলে দিন।

৪.     এবার একটি কিচেন টাওয়েলের ওপর এক পাশে আলুগুলো ছড়িয়ে দিন আর টাওয়েলের আরেক পাশ দিয়ে আলুগুলো মুছে দিন। এভাবে ২০মিনিট রেখে দিন। আলুর পানি শুকিয়ে যাবে।

৫.     আলুগুলো ডুবো তেলে ডাবল ফ্রাই করতে হবে। এ জন্য বেশি করে তেল গরম করে আলুগুলো তেলে দিয়ে চুলার আঁচ ফুল রেখে ঘড়ি ধরে ৩ মিনিট ভেজে নিন।

৬.     এরপর আলু তেল থেকে উঠিয়ে ১০ মিনিট রেখে দিন।

৭.      ১০ মিনিট পর আলুগুলো লালচে হওয়ার আগ পর্যন্ত চুলার আঁচ ফুল রেখে ভেজে নিন।

৮.  ব্যস, হয়ে গেল পারফেক্ট ফ্রেঞ্চ ফ্রাই। এবার ওপরে একটু লবণ ছিটিয়ে কেচাপ দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

 

মাসালা ওয়েজেস

উপকরণ

বড় আলু ৫-৬টি, দুধ ১ কাপ, ডিম ১টি, ময়দা আধা কাপ, লবণ ১/৩ চা চামচ, মরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ, গোলমরিচ গুঁড়া সিকি চা চামচ, আদা বাটা সিকি চা চামচ।

 

যেভাবে তৈরি করবেন

১.      প্রথমে আলু কেটে আদা বাটা ও সামান্য লবণ দিয়ে পানিতে সামান্য সিদ্ধ করে নিন। পানি ফুটলে তাতে আলু মাত্র ২ মিনিট রাখবেন। খেয়াল রাখবেন পুরো সিদ্ধ যেন না হয়ে যায়। পুরো সিদ্ধ হলে খেতে ভালো লাগবে না।

২.      একটি বাটিতে ডিম ফেটিয়ে তাতে দুধ দিয়ে খুব ভালো করে মিশিয়ে নিন।

৩.     এরপর আলুর টুকরাগুলো ঠাণ্ডা করে ডিমের মিশ্রণে চুবিয়ে রেখে দিন ১৫-২০ মিনিট।

৪.     একটি পাত্রে ময়দা, মরিচ গুঁড়া, গোলমরিচ গুঁড়া, লবণ, টেস্টিং সল্ট একসঙ্গে মিশিয়ে রাখুন।

৫.     একটি প্যান গরম করে এতে ডুবো তেলে ভাজা যায় তেমনভাবে তেল ঢালুন। চুলার আঁচ মাঝারি রাখবেন। তেল বেশি গরম করবেন না। তেল বেশি গরম হলে ওয়েজের ওপরের অংশ পুরে যাবে কিন্তু ভেতর কাঁচা রয়ে যাবে।

৬.     এরপর ডিম ও দুধের মিশ্রণ থেকে আলুগুলো তুলে ময়দার মিশ্রণ দিয়ে ভালোমতো ঢেকে দিন। ময়দার শুকনা মিশ্রণ আলুর গায়ের ডিম ও দুধের মিশ্রণে লেগে যাবে।

৭.      তারপর গরম তেলে আলুগুলো দিয়ে ভাজতে থাকুন। সব দিক ভালো করে ভাজার জন্য আলুগুলো মাঝে মাঝেই নেড়ে দিন।

৮.     ২ মিনিট ভেজে তেল থেকে নামিয়ে ফেলুন। একদম ঠাণ্ডা হতে দিন।

৯.      এরপর আবার তেলে দিয়ে ৫ মিনিট ভেজে নামিয়ে ফেলুন। সসের সঙ্গে গরম গরম পরিবেশন করুন মজাদার পটেটো ওয়েজেস।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা