kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ২৬  মে ২০২০। ২ শাওয়াল ১৪৪১

নিজেই বানান হ্যান্ড স্যানিটাইজার

করোনার প্রকোপে হঠাৎ করেই বহুগুণে বেড়ে গেছে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের চাহিদা। বাড়িতেই বানাতে পারেন এটি। গার্ডিয়ান ও ডেইলি মেইল অবলম্বনে লিখেছেন নাবীল আল জাহান

৩০ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নিজেই বানান হ্যান্ড স্যানিটাইজার

করোনাভাইরাস থেকে নিরাপদ থাকতে বারবার ভালো করে হাত ধোয়ার কোনো বিকল্প নেই। সে জন্য সাবান রাখুন এক নম্বর তালিকায়। হাতে মেখে অন্তত ২০ সেকেন্ড ভালো করে ঘষে হাত ধুতে হবে। কিন্তু সব সময় সাবান দিয়ে হাত ধোয়া সম্ভব হয় না, বিশেষ করে বাইরে থাকলে। যদিও বাসায় থাকতে বলা হচ্ছে, তবু কিছু কাজে বের হতেই হয়। নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস ও ওষুধ-পথ্য কিনতে, প্রয়োজনীয় চিকিৎসা নিতে বের হতেই হবে। এসব ক্ষেত্রে সাবানের বিকল্প হ্যান্ড স্যানিটাইজার।

এটার জন্যও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কিছু নির্দেশনা দেওয়া আছে। ব্যবহার করতে হবে সাবানের মতো করে। মাখতে হবে ২০ সেকেন্ড ধরে। ভালো করে ঘষতে হবে পুরো হাত। আঙুলের ফাঁক এমনকি হাতের উল্টো পিঠও। মূলত হাত জীবাণুমুক্ত করার কাজ করে স্যানিটাইজারে থাকা অ্যালকোহল। কার্যকরী ভূমিকা পালনের জন্য এর পরিমাণ হতে হয় ৬০ শতাংশের বেশি।

এসব কারণে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বিশ্বজুড়ে চাহিদা বেড়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের। সাধারণ সময়ের তুলনায় বিক্রি হচ্ছে বহুগুণ বেশি। তাই কেবল দামই বাড়েনি। অনেক সময় বাজারেও পাওয়া যাচ্ছে না। তেমন ক্ষেত্রে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বানাতে পারেন বাসায় বসেই। সে জন্য অনুসরণ করতে পারেন নিচের কোনো একটি ফর্মুলা।

ঘৃতকুমারীর স্যানিটাইজার

যা যা লাগবে

রাবিং অ্যালকোহল (আইসোপ্রপিল অ্যালকোহল), ঘৃতকুমারীর (অ্যালোভেরা) জেল, গন্ধসার তেল বা এসেনশিয়াল অয়েল।

 

যেভাবে বানাবেন

একটা পাত্রে রাবিং অ্যালকোহল ও ঘৃতকুমারীর জেল (ঘৃতকুমারীর পাতার আঠাল রস) নিন। এই অ্যালকোহল কিনতে পারবেন সাধারণ হার্ডওয়্যারের দোকানে। এটার পরিমাণ হবে জেলের দুই গুণ। পুরোপুরি না মেশা পর্যন্ত ভালো করে নাড়তে থাকুন। এবার তাতে ৮-১০ ফোঁটা এসেনশিয়াল অয়েল দিন। এটা অবশ্য ঐচ্ছিক উপাদান। না দিলেও কাজ চলবে। এবার এটা সুবিধাজনক কোনো পাত্রে রাখুন, যাতে সহজেই ব্যবহার করা যায়।

 

গ্লিসারিনের স্যানিটাইজার

যা যা লাগবে

রাবিং অ্যালকোহল (আইসোপ্রপিল অ্যালকোহল), গ্লিসারিন বা গ্লিসারল, হাইড্রোজেন পারঅক্সাইড, বিশুদ্ধ পানি, গন্ধসার তেল বা এসেনশিয়াল অয়েল।

 

যেভাবে বানাবেন

একটা পাত্রে ১/৩ কাপ অ্যালকোহল, সিকি চা চামচ গ্লিসারিন, ১ চা চামচ হাইড্রোজেন পারঅক্সাইডের সঙ্গে আধা টেবিল চামচ বিশুদ্ধ পানি নিন। বিশুদ্ধ পানি বাজারে ‘ডিস্টিল্ড ওয়াটার’ নামে কিনতে পাওয়া যায়। কিংবা বাড়িতে পানি ফুটিয়ে সেটা ঠাণ্ডা করে ব্যবহার করতে পারেন। উপাদানগুলো ভালোভাবে নেড়ে বা ঝেঁকে মিশিয়ে নিন। চাইলে সঙ্গে ৮-১০ ফোঁটা এসেনশিয়াল অয়েল দিতে পারেন। ব্যবহারের জন্য রাখুন স্প্রে লাগানো বোতলে। এই স্যানিটাইজারে অ্যালকোহলের পরিমাণ থাকে প্রায় ৮০ শতাংশ। ফলে জীবাণুমুক্ত করার কাজে অনেক বেশি কার্যকর হয়। তাই স্প্রে করেই ব্যবহার করা যায়। শুধু তা-ই নয়, সাধারণ টিস্যুতে এটা স্প্রে করে ওয়াইপ বা জীবাণুনাশক তোয়ালে হিসেবেও ব্যবহার করতে পারেন। তা দিয়ে মুছে জীবাণুমুক্ত রাখতে পারেন বাড়ির নিত্যব্যবহার্য জিনিসপত্র।

অবশ্য অনেকেই বাড়িতে নিজে নিজে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বানাতে নিষেধ করছেন। কারণ বানানোর সময় উপাদানের পরিমাণে কমবেশি হলে কিংবা ব্যবহূত উপাদানে ভেজাল থাকলে হতে পারে হিতে বিপরীত। তাই বানানোর সময় থাকতে হবে খুবই সতর্ক। সুযোগ থাকলে স্যানিটাইজার নয়, ব্যবহার করুন সাবান। বাসা থেকে যতটা সম্ভব কম বের হন। আর শুধু বাড়ির বাইরেই ব্যবহার করুন স্যানিটাইজার।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা