kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৭ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪১

রূপচর্চা

ছেলেদের চুলের প্যাক এই সময়ে

শীতে শুধু মেয়েদেরই নয়, ছেলেদের চুলের জন্যও চাই বিশেষ যত্ন। সে জন্য কার্যকর কয়েকটি ঘরোয়া প্যাকের কথা জানিয়েছেন শোভন মেকওভার স্যালনের রূপবিশেষজ্ঞ শোভন সাহা। লিখেছেন নাবীল আল জাহান

২৭ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ছেলেদের চুলের প্যাক এই সময়ে

শীতে ছেলেদের চুলে সাধারণত দুই ধরনের সমস্যা বেশি দেখা যায়—খুশকি ও তেলতেলে ভাব। আবার যে ছেলেরা চুল বড় রাখে, শীতে তাদের অনেকের চুল হয়ে পড়ে শুষ্ক ও রুক্ষ। এগুলোর সমাধানে প্রাথমিকভাবে ঘরেই প্যাক বানিয়ে ব্যবহার করতে পারেন।

শীতে অনেকেরই খুশকির সমস্যা বেড়ে যায়। তার প্রতিকারে ঘরোয়া প্যাক ব্যবহার করতে পারেন। তবে এ ব্যাপারে একটু সাবধান থাকা দরকার। কারণ খুশকি দূর করার ক্ষেত্রে অনেক ভেষজ উপাদানই খুব একটা উপকার দেয় না। উল্টো দেখা দিতে পারে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। খুশকি দূর করতে নিমপাতা দিয়ে এই প্যাকটি বানিয়ে ব্যবহার করতে পারেন—

নিমপাতার সঙ্গে গাঁদা ফুলের পাতা নিন। দুটো মিশিয়ে ব্লেন্ডারে পেস্ট করে নিন। সবুজ রঙের পেস্টটা ব্রাশ দিয়ে চুলে মেখে এক ঘণ্টা রেখে দিন। তারপর শ্যাম্পু করে ভালোমতো ধুয়ে নিন। এতে মাথার তালুতে ইনফেকশন হওয়া বন্ধ হবে।

তবে মনে রাখা দরকার, একেবারে ভেষজ উপাদান ব্যবহার করে খুশকি দূর করাটা বেশ মুশকিল। খানিকটা কেমিক্যালের সাহায্য লাগেই। বিশেষ করে জিংক। সব ড্যানড্রাফ ট্রিটমেন্টেই জিংক প্রোটিনযুক্ত শ্যাম্পু বা অন্য কিছু ব্যবহার করা হয়। তাই খুশকির সমস্যা সমাধানে প্যাক ব্যবহারের চেয়ে ড্যানড্রাফ ট্রিটমেন্ট বেশি কার্যকর হয়। ড্যানড্রাফ ট্রিটমেন্ট অবশ্যই পেশাদার কারো কাছ থেকে করাতে হবে। পাশাপাশি নিয়মিত ড্যানড্রাফ শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার ব্যবহার করা উচিত।

অনেকের চুল শীতকালে ভীষণ তেলতেলে হয়ে থাকে। দেখা যায়, শ্যাম্পু করার পরও আঠালো ভাব দূর হয় না। সেটি দূর করতে ব্যবহার করতে পারেন ডিপ ক্লিনজিং শ্যাম্পু। এতে চুলের তেল দূর হবে। এরপর নিচের দুটি থেকে যেকোনো একটি ব্যবহার করতে পারেন কন্ডিশনার হিসেবে—

পানিতে লেবু মিশিয়ে সেই পানিতে চুল ধুয়ে নিতে হবে। তাতে চুল ঝরঝরে থাকবে।

লেবুপানির বদলে ব্যবহার করতে পারেন চায়ের লিকার। সে জন্য চায়ের লিকার ভালো করে ফুটিয়ে নিতে হবে। তারপর ঠাণ্ডা করে ব্যবহার করতে হবে।

শীতে যাঁদের চুল শুষ্ক ও রুক্ষ হয়ে পড়ে, তাঁরা টক দইয়ের এই প্যাকটা ব্যবহার করতে পারেন—

টক দইয়ের সঙ্গে ডিমের কুসুম মিশিয়ে নিন। অনেকেই কুসুমের গন্ধ সহ্য করতে পারেন না। সে ক্ষেত্রে শুধু টক দই দিয়েই কাজ চলবে। চুলে মিশ্রণটা মেখে এক ঘণ্টা রেখে দিতে হবে। তারপর মাথা শ্যাম্পু করে ভালোমতো ধুয়ে নিতে হবে। পরে কন্ডিশনার হিসেবে চায়ের লিকার ব্যবহার করতে পারেন। প্যাকটা সপ্তাহে তিন থেকে চার দিন ব্যবহার করতে পারেন।

অনেকের চুলেই শীতে এ সমস্যাগুলোর কোনোটাই দেখা দেয় না। তারা চুলের স্নিগ্ধতা ও চকচকে ভাব বাড়াতে পাকা কলা ও মধু দিয়ে প্যাক বানিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। মধু চুলের চকচকে ভাব বাড়াতে ও কলার উপাদান স্নিগ্ধতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা