kalerkantho

শনিবার । ১৪ চৈত্র ১৪২৬। ২৮ মার্চ ২০২০। ২ শাবান ১৪৪১

রূপচর্চা

চুলের যত্নে জলপাই তেল

শীতে সুন্দর ও ঝলমলে চুলের জন্য জলপাই তেল ব্যবহার করতে পারেন। ময়েশ্চারাইজার হিসেবেও দারুণ কাজ করে। জানালেন রেড বিউটি স্যালনের রূপবিশেষজ্ঞ আফরোজা পারভীন। লিখেছেন আতিফ আতাউর

২০ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



চুলের যত্নে

জলপাই তেল

সবার মাথার চুল এক রকম নয়। এ জন্য গুণাগুণ বুঝে চুলে তেল ব্যবহার করা উচিত। তবে জলপাই তেল এদিক দিয়ে নিরাপদ। শুষ্ক, স্বাভাবিক ও তৈলাক্ত চুলের পাশাপাশি সংবেদনশীল চুলেও জলপাই তেল ব্যবহার করা যায়। সংবেদনশীল চুলে জলপাই তেল ব্যবহারে কোনো অ্যালার্জি তৈরি হয় না।

 

মাথার ত্বক পরিষ্কার রাখতে

নিয়মিত চুলে জলপাই তেলের ব্যবহারে মাথার ত্বক পরিষ্কার থাকে। জলপাই তেলে থাকা অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি উপাদান মাথার ত্বক ভালো রাখতে সাহায্য করে। রাতে শোবার আগে জলপাই তেল ভালো করে চুলে লাগিয়ে নিন। সকালে ঘুম থেকে উঠে শ্যাম্পু করে ফেলুন। এতে চুল দেখতেও সুন্দর ও মৃসণ দেখাবে।

 

চুলের ময়েশ্চারাইজার হিসেবে

শীতের এই সময়ে ত্বকের শুষ্কতা খুব বেশি দেখা দেয়। এর প্রভাব পড়ে আমাদের মাথায়ও। এ জন্য চুল যথাযথ পুষ্টি পায় না। শুষ্ক ত্বকে খুশকির প্রকোপও বেশি হয়ে থাকে। মাথার ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখলে এই সমস্যা থেকে বাঁচা যায়। জলপাই তেল মাথার ত্বকে ভালো ময়েশ্চারাইজার হিসেবে কাজ করে। মাথার ত্বকের শুষ্কতা দূর করতে এক টেবিল চামচ জলপাই তেল, এক চামচ মধু, দুই চামচ টক দই ও একটি লেবুর রস ব্লেন্ডারে ভালো করে মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি মাথার ত্বকে ভালো করে লাগিয়ে নিন। এক ঘণ্টা পর মাথার ত্বক ও চুল ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাকটি মাথার ত্বকের ময়েশ্চারাইজার হিসেবে কাজ করবে। ত্বকে আর্দ্রতা ধরে রাখতে সাহায্য করবে। নিয়মিত ফল পেতে প্রতি সপ্তাহে একবার প্যাকটি ব্যবহার করুন।

 

খুশকি দূর করতে

শীতে চুলে খুশকির প্রাদুর্ভাব বেশি হয়। যাঁদের চুলে খুশকির প্রকোপ বেশি তাঁরা নিয়মিত জলপাই তেল ব্যবহার করতে পারেন। রাতে শোবার আগে পরিমাণমতো জলপাই তেল হালকা গরম করে নিন। এবার হাতের আঙুলের সাহায্যে পুরো মাথার ত্বকে আলতো করে তেল মালিশ করুন। সকালে ঘুম থেকে উঠে শ্যাম্পু করে ফেলুন। খুশকির প্রকোপ কমতে শুরু করবে। 

 

চুলপড়া রোধে

চুলপড়ার হার কমাতে ভূমিকা রাখে জলপাই তেল। সাধারণত পুষ্টি ও যত্নের অভাবে চুল বেশি পড়ে। চুলে নিয়মিত জলপাই তেল ব্যবহার করলে চুল পুষ্টি পায়। আবার মাথার ত্বকও পরিষ্কার থাকে। ফলে চুল পড়ার হার কমে। ভালো ফল পেতে এক চামচ জলপাই তেল, এক চামচ বাদাম তেল, এক চামচ ক্যাস্টর তেলের সঙ্গে একটি ভিটামিন ‘ই’ ক্যাপসুল ভালো করে মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি সপ্তাহে দুই দিন চুলে ব্যবহার করুন। নিয়মিত ব্যবহারে চুলপড়ার হার কমে এবং চুলের গোড়া শক্ত হয়।

 

চুলের কন্ডিশনার হিসেবে

চুলের যত্নে শ্যাম্পু ব্যবহারে আমরা যতটা সচেতন কন্ডিশনারের বেলায় কিন্তু ততটা নই। এটা ঠিক নয়। শ্যাম্পুর মতো কন্ডিশনারও চুলের জন্য জরুরি। শ্যাম্পু করার ফলে চুলের ওপর যে ধকল যায় সেটি মোকাবেলা করতে সাহায্য করে কন্ডিশনার। চুলের কন্ডিশনার হিসেবে এখন থেকেই জলপাই তেল ব্যবহার করতে পারেন। জলপাই তেল খুব ভালো কন্ডিশনার হিসেবে কাজ করে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা