kalerkantho

সোমবার । ২০ জানুয়ারি ২০২০। ৬ মাঘ ১৪২৬। ২৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

সুপার হোস্টেল

সুপার হোস্টেল সম্পর্কে জানিয়েছেন সুপার হোস্টেলের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার রাসেল কবির। সাক্ষাত্কার নিয়েছেন এ এস এম সাদ

৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সুপার হোস্টেল

ঢাকায় ব্যাচেলরদের প্রধান সমস্যা থাকার জায়গা। ব্যাচেলর পরিচয়ে ঢাকায় বাড়িভাড়া পাওয়া অনেক কষ্ট। আবার বাসা ভাড়া পাওয়া গেলেও খাওয়াদাওয়ার অনেক সমস্যা। বিশেষ করে যখন বাসার কাজের লোক আসে না, তখনই ঘটে বিপত্তি। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ালেখার জন্য ঢাকায় আসা অধিকাংশ শিক্ষার্থী থাকার জন্য বেছে নেন ছেলেদের মেস কিংবা হোস্টেল। কিন্তু এই মেস ও হোস্টেলে থাকা, খাওয়া ও পড়ালেখার জন্য উপযুক্ত পরিবেশ থাকে না। সেই একই খরচে ব্যাচেলরদের জন্য থাকা, খাওয়া ও পড়ালেখার সুব্যবস্থা নিয়ে এসেছে সুপার হোম। এই হোস্টেলে একসঙ্গে ২৫টি সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে। শিক্ষার্থী-চাকরিজীবী সবাই থাকতে পারবেন। সুপার হোস্টেলে ছেলে- মেয়ে উভয়ের জন্যই ব্যবস্থা আছে।

 

তিন বেলা খাবার

মেসে কাজের মানুষ না এলে অনেক সময় না খেয়েও থাকতে হয়। এ ছাড়া ঢাকার সাধারণ হোস্টেলের খাবারের মানও খুব একটা ভালো হয় না। ফলে ব্যাচেলরজীবনে খাওয়ার সমস্যা হয় বেশি। সুপার হোস্টেল তিন বেলা মানসম্পন্ন খাবার নিশ্চিত করবে। এখানে বাবুর্চি দিয়ে প্রতিদিন খাবার তৈরি করা হয়।

 

এসি রুম ও মাল্টিফাংশনাল বেড

ব্যাচেলর জীবনে ঘরে এসি পাওয়া সত্যি ভাগ্যের ব্যাপার। তবে এখানে এই সুবিধা পাওয়া যাবে। এ ছাড়া রুমের জানালায় জাল থাকায় ঘরে মশা ও অন্যান্য পোকামাকড়ের উপদ্রব নেই। এ ছাড়া প্রতি বেডের সঙ্গে পর্দার ব্যবস্থা করা হয়েছে। রুমে মাল্টিফাংশনাল বেডের ব্যবস্থা আছে।

আলাদা পড়ার ঘর

এখানে প্রত্যেকেই আলাদা ঘর পাবেন পড়ালেখার জন্য। ফলে বিশ্ববিদ্যালয় কিংবা অফিসের যেকোনো কাজ শান্ত পরিবেশে অনায়াসে করা যাবে।

 

জিম

সুপার হোস্টেলে থাকলে আলাদা জিমে ভর্তি হওয়া লাগবে না। এখানেই শরীরচর্চার ব্যবস্থা আছে। অফিস ও ক্লাস শেষ করে হোস্টেলে ফিরে জিমে চলে যেতে পারবেন।

 

লবি

অবসর সময় আড্ডা দেওয়ার জন্য রয়েছে উন্নত মানের লবি। এ ছাড়া খেলা ও অনুষ্ঠান দেখার জন্য রয়েছে এলইডি টিভি।

 

লন্ড্রি সার্ভিস

ক্লাস কিংবা অফিসের জন্য কাপড় আয়রন করার দরকার হলে সুপার হোস্টেলে লন্ড্রি সার্ভিস পেয়ে যাবেন খুব সহজে।

 

লকার ও সিসিটিভি

মেসে গুরুত্বপূর্ণ ও দামি জিনিস চুরি হয়ে যাওয়ার ঘটনা অহরহ ঘটছে। সুপার হোস্টেলে নিশ্চিন্তে জিনিস রেখে বাইরে যেতে পারবেন। কারণ এখানে সিসিটিভি দ্বারা পুরো হোস্টেল নিয়ন্ত্রিত ও লকার সিস্টেম খুবই ভালো। ফলে মূল্যবান জিনিস নিরাপদে থাকবে।

জেনারেটর

ইলেকট্রিসিটি চলে গেলে সঙ্গে সঙ্গে জেনারেটর সার্ভিস দেওয়া হয়।

 

ক্লিনিং সার্ভিস

প্রতিদিন ঘর পরিষ্কার রাখতে আছে ক্লিনিং সার্ভিস।

 

ওয়াশিং মেশিন ও ড্রায়ার

সময়মতো নিজের কাপড় পরিষ্কার করে নিতে পারেন অটোমেটিক ইলেকট্রিক ড্রায়ার দিয়ে। কষ্ট করে কাপড় ধুতে হবে না এখানে।

 

অন্যান্য সুবিধা

হাইস্পিড ইন্টারনেট, অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা, হেয়ার ড্রায়ার, দেয়ালঘড়ি ও হ্যাঙ্গার, শেলফসহ অনেক কিছু।

 

শাখা

ছেলেদের হোস্টেল : উত্তরা (স্ট্যান্ডার্ড ক্লাস), মিরপুর (স্ট্যান্ডার্ড ক্লাস), বাড্ডা (স্ট্যান্ডার্ড ক্লাস), বারিধারা (বিজনেস ক্লাস), শাহবাগ (বিজনেস ক্লাস)।

মেয়েদের হোস্টেল : মিরপুর (স্ট্যান্ডার্ড ক্লাস)।

রাজধানীতে সুপার হোমের বিভিন্ন শাখায় আবাসন সুবিধা পেতে ব্যাচেলরদের খরচ হবে স্ট্যান্ডার্ড ক্লাস ছয় হাজার ৯৯৯ টাকা, বিজনেস ক্লাস সাত হাজার ৯৯৯ টাকা এবং ফার্স্ট ক্লাস আট হাজার ৯৯৯ টাকা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা