kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

চমক লাগুক চোখের সাজে

দরকার নেই গয়না। শুধু চোখের সাজেই পূর্ণতা এনে হতে পারে পরিপূর্ণ সাজ। পারসোনার ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুজহাত খান জানিয়েছেন বিস্তারিত। লিখেছেন জিনাত জোয়ার্দার রিপা

২১ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৬ মিনিটে



চমক লাগুক চোখের সাজে

মডেল: কর্ণিয়া; সাজ: মিতা চৌধুরী; পোশাক: রঙ বাংলাদেশ ছবি: আবু সুফিয়ান নিলাভ

চোখের সাজে এই সময়ের ট্রেন্ডকে এককথায় নাম দেওয়া যায় ‘নাটকীয়তা’। এই ধারা পশ্চিম থেকে এলেও বেশ জায়গা করে নিয়েছে বলা বাহুল্য। উত্সব থেকে শুরু করে অনুষ্ঠান, আয়োজন কিংবা র্যাম্পের মঞ্চ—চোখের সাজে নজর কাড়ছে এই নাটকীয়তাই। আর এই সাজ এতটাই জোরদার যে তাতে মানিয়ে যাচ্ছে যেকোনো পোশাক। বাহুল্য লাগছে গয়নাকেও। এই সাজে বেইজ মেকআপ মিনিমাল, কখনো তা প্রাধান্য পাচ্ছে ট্যানড বা ব্রোঞ্জ টোনে। চোখের সাজই লক্ষণীয় ও বিশেষ।

সাজের ক্ষেত্রে বেছে নিন ম্যাট ফাউন্ডেশন। যেকোনো ঋতুতে এ ধরনের ফাউন্ডেশনের কার্যকারিতা ভালো। ত্বকের ময়েশ্চারাইজার বজায় রাখতে এবং দীর্ঘ সময় ত্বকে মেকআপ ধরে রাখতে ফাউন্ডেশন লাগানোর আগে প্রাইমার লাগিয়ে নিতে হবে। এরপর নিজের চেহারার আকার ও ত্বকের ধরন বুঝে করে নিন কনট্যুরিং। তারপর কম্প্যাক্ট পাউডার মুখে বুলিয়ে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন ত্বকে ভালোভাবে মিশে যাওয়ার জন্য। ব্যস, হয়ে গেল বেইজ। আর কিচ্ছু দরকার নেই। এবার আসুন চোখে। চোখের নিচ, নাক, চোয়াল ও কপালে কনসিলার ব্যবহার করুন। চোখের সাজ শেষ হলে ব্লাশন দিয়ে সেটিং  স্প্রে ব্যবহার করুন। এতে মেকআপ দীর্ঘস্থায়ী হবে।

চোখের সাজে নানা উপাদান যোগ হচ্ছে। গ্লিটারি আই এখন বেশ জনপ্রিয়। মানে শ্যাডোর ওপর গ্লিটার বসিয়ে দেওয়া। এর ব্যবহারে চোখে ভিন্নতা চলে আসে এক লহমায়। রাতের সাজে পারফেক্ট হলেও চলতে পারে দিনেও। আর একটি ব্যাপার চোখে চলছে এখন। নিচের কোলে কাজল বা লাইনারের জায়গা দখল করেছে নানা রঙের আইশ্যাডো। ন্যাচারাল লুক চাইলে আইলাইনার বাদ দিয়ে শুধু মাশকারাই লাগান।  চোখের নিচে ভেতরের অংশে ন্যুড বা সাদা রঙের কাজল লাগাতে পারেন। চোখ দেখতে বড় লাগবে। চোখের ওপর সোনালি বা রুপালি হাইলাইটার বেশ চলবে আগামী বছরগুলোতেও। নানা রঙের আইশেডও নিজের রাজত্ব বজায় রাখবে। আইব্রোতে পেনসিলের টান হবে মোটা ও গাঢ়।

মনে রাখুন

১।    আইশ্যাডো দেওয়ার বেশ খানিকক্ষণ আগে প্রাইমার লাগিয়ে নিন। ময়েশ্চারাইজারও ব্যবহার করতে পারেন। আই ব্রাশ, শ্যাডো ব্রাশ বা হাত দিয়ে ব্লেন্ড করে শেড ব্যবহার করুন চোখে। ব্রাশে বা হাতে শেড লাগিয়ে শ্যাডোর গুঁড়া আগে ঝেড়ে ফেলে দিন।

২।    আইলাইনার চোখে দেওয়ার আগে হাতের ত্বকে দিয়ে দেখুন। প্রদাহ বা চুলকানি হলে সেটি চোখে দেবেন না।

৩।    অনেক দিনের অব্যবহূত আইলাইনার বা মাশকারা ব্যবহার করবেন না। জীবাণু সংক্রমণের আশঙ্কা থাকে।

৪।    অতিমাত্রায় সংবেদনশীল চোখ হলে এক টানে আইলাইনার দেবেন না।

৫।    আইলাইনার দেওয়ার সময় চোখের কোল থেকে শুরু করবেন না। মাঝ বরাবর শুরু করে শেষ প্রান্তে যান। এরপর কোল থেকে আবার টানুন।

৬।    চোখের নিচের অংশে কাজল ব্যবহার করলে সাবধানে করুন।

৭।    মাশকারা লাগানোর সময় তাড়াহুড়া করবেন না। সাবধানে, ধীরে ব্যবহার করুন।

৮।    কনট্যাক্ট লেন্স না পরলেই ভালো। পরতেই যদি হয়, ভালো ব্র্যান্ডের পণ্য কিনুন। সংরক্ষণের সঠিক নিয়ম অনুসরণ করুন। লেন্স পরার আগে হাত ভালোভাবে ধুয়ে নিন। নিয়ম মেনে লেন্স লাগাতে হবে। খোলার সময়ও নিয়ম মানতে হবে। একটানা পরে থাকা যাবে না। লেন্স পরে চুলকানি বা প্রদাহ হলে সঙ্গে সঙ্গেই খুলে ফেলুন। লেন্স ভিজিয়ে রাখার নির্দিষ্ট দ্রবণের মেয়াদ খেয়াল রাখুন।

৯।    চোখের মেকআপ তোলার সময়ও সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। চোখে মেকআপ নিয়ে ঘুমিয়ে পড়বেন না।

১০। চোখে যেকোনো প্রসাধনী ব্যবহারের আগে মেয়াদ দেখে নিন। মানসম্পন্ন সামগ্রী ব্যবহার করুন। চোখে কোনো ধরনের সমস্যা হলে চক্ষু বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।

শাড়িতে স্মোকি টোনড আই

চোখের সাজে স্মোকি টোন পেয়েছে বিপুল জনপ্রিয়তা। গাঢ় বলে আগে কেবল রাতের সাজে এর চল শুরু হলেও এখন দিন, বিকেল বা সন্ধ্যার সাজেও এই টোন বেশ মানিয়ে যাচ্ছে। কর্ণিয়ার পরনের শাড়ি নীল বলে কালো শেডের ওপরে গাঢ় নীল শেডের টান এসেছে। হলুদ বেইজড ব্লাউজের সঙ্গে মিলিয়ে চোখের দুই কোল হাইলাইটেড হয়েছে ব্রোঞ্জ মিক্সড ইয়েলো টোনে। চোখের সাজটাই পূর্ণ বলে লিপস্টিকের টোন হালকা, নেই গয়নাও।

কুর্তিতে কাজলই ভালো

কুর্তির সঙ্গে কাজলের গাঢ় টানই যেকোনো বেলার সাজে মানিয়ে যায়। সে ক্ষেত্রে গাঢ় শেডেরও দরকার নেই। দিলে পোশাকের বেইজ রং ধরে এক শেড বুলিয়ে নিতে পারেন। শুধু কাজলের সাজে টান মোটা হবে। তাই আগে এঁকে নিতে পারেন। চোখের নিচের দিকেও কাজলের টান দিতে ভুলবেন না। ব্রাশের সাহায্যে শুধু শেড দিয়েও ব্লেন্ড করে নিতে পারেন।

 

গ্লিটারি আই

চোখের নিচের কোলে কাজলের বদলে চলছে নানা রঙের আইশ্যাডো

চমক লাগুক চোখের সাজে

চোখের সাজে এখন চলছে নানা নিরীক্ষা। কখনো কাজলের দুই টান তো কখনো চোখই হয়ে উঠছে ক্যানভাস। তাতে চলছে রঙের স্বতঃস্ফূর্ত ব্যবহার।

চোখ যেন শিল্পীর ক্যানভাস। চলেছে মনমতো আঁকিবুকি। চোখের এই সাজ রেইনবো আই নামেই পরিচিত। নানা শেডের ব্যবহার আছে বলে যেকোনো রঙের পোশাকেই মানিয়ে যাবে এই সাজ।

 হাইলাইটের চিরায়ত রঙের প্রথা ভেঙেছে এই সাজ। মিনিমাল অরেঞ্জে হাইলাইট করা হয়েছে। প্রচলিত সিলভার নেমে এসেছে আইশেডের বর্ডার লাইনে। পার্পেল আইশেডের টান এমনভাবে টানা হয়েছে যে আলাদা করে লাইনার প্রয়োজন পড়েনি।

ট্যানড ব্রোঞ্জ টোনড মেকআপে শুধুই ময়ূরকণ্ঠী নীল আইশেডের গাঢ়ত্ব। আইল্যাশে মাশকারা বসেছে, আইব্রোতে পেনসিলের টান। বসেনি আইলাইনার বা কাজলের টান।

লেমন টোনের শেডের সঙ্গে ইউনিটি বজায় রেখেছে একই রঙের লিপস্টিক। চোখকে হাইলাইট করেছে হাইলাইটার।

ছবি কৃতজ্ঞতা : নুজহাত খান

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা