kalerkantho

বুধবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৩ রবিউস সানি     

ইন্টেরিয়র

দোলনায় ঘরের সাজ

আয়েশ করে অবসরে বই পড়া বা চায়ের কাপ হাতে দোল খেতে মন্দ লাগে না। আয়েশের পাশাপাশি দোলনার গৃহসজ্জা নিয়ে র্যাডিয়েন্ট ইনস্টিটিউট অব ডিজাইনের চেয়ারপারসন গুলসান নাসরীন চৌধুরীর পরামর্শ শুনে লিখছেন নাঈম সিনহা

১১ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



 দোলনায় ঘরের

সাজ

যেকোনো ঘরেই দোলনা মানিয়ে যায়। ফ্যামিলি লিভিং, ড্রয়িংরুম, শোবার ঘর, শিশুর ঘর, বারান্দা বা করিডর। তবে ছোট ঘরে ঢুকিয়ে দিলেন বিশাল এক দোলনা, তাতেই ঘর সজ্জার বারোটা বাজবে। দরকার একটু বড় জায়গা। বাজারে পাওয়া যায় হরেক রকমের দোলনা। কেমন দোলনা বাছাই করবেন, সেটা নির্ভর করবে ঘরের থিম আর অন্যান্য ফার্নিচারের ধরনের ওপর। ফ্যামিলি লিভিংরুমের ফার্নিচার কাঠের হলে কাঠের দোলনা বেছে নিন। রট আয়রন বা বেতের ফার্নিচার থাকলে দোলনাও একই রকম নিন। ফ্ল্যাটের করিডর বা লন বড় হলে সেখানেও মানানসই দোলনা রাখতে পারেন। মেটালের বা কাঠের কারুকাজ করা দোলনা এখানে ভালো মানাবে।

ড্রয়িংরুম

বসার ঘরের আসবাবের সঙ্গে মিলিয়েই দোলনাটি কিনুন। আসবাব যদি কাঠের হয়ে থাকে, তাহলে একটু সোনালি আভাযুক্ত কাঠের দোলনা বেছে নিন। কাঠের তৈরি আসবাবের রং যদি হয় কালচে কিংবা মেরুন, তাহলে সেই ধরনের দোলনাই সুন্দর দেখাবে বেশি। একই সঙ্গে খেয়াল রাখুন আপনার সোফা ও পর্দার দিকে। চাইলে পর্দা ও সোফার সঙ্গে মিলিয়ে দোলনায় কয়েকটি কুশন রাখতে পারেন। এতে দোলনাটি ভালো দেখাবে।

শোবার ঘর

অনেকেই শোবার ঘরে দোলনা রাখতে পছন্দ করেন। সে ক্ষেত্রে খেয়াল রাখুন, আপনার শোবার ঘরটি যাতে প্রশস্ত হয়। ঘরের রং, চাদর, পর্দার সঙ্গে মিলিয়ে দোলনা বাছাই করুন। যেমন ঘরের রং যদি হালকা হয়, তাহলে দোলনার কুশন একটু গাঢ়ো রঙের বেছে নিন। এতে একটু বৈপরীত্যও আসবে।

শিশুদের ঘর

শিশুদের ঘরের দোলনা যাতে অন্য আসবাবের চেয়ে একটু নিচু হয়, সে বিষয়ে খেয়াল রাখুন। যাতে দোলনায় উঠতে গিয়ে তারা পড়ে না যায়। আর আশপাশে সব কিছু নিরাপদ দূরত্বে রাখুন। যাতে দোল খেতে গিয়ে ধাক্কা না লাগে।

 

বারান্দা কিংবা ছাদ

এবার একটু খোলামেলা স্থানে আসা যাক। বারান্দা বড় হলে কাঠের বা লোহার দোলনা ব্যবহার করুন। বারান্দা যদি ছোট হয়, তাহলে বাঁশের বা বেতের দোলনা তো রয়েছেই। সে ক্ষেত্রে এমন দোলনা কিনুন, যা একজনের বসার জন্যই উপযোগী। খোলা ছাদে তো অবশ্য একটু জায়গা পাবেনই। সেখানে ইচ্ছামতো দোলনা ব্যবহার করতে পারেন। তবে ছাদের পরিচ্ছন্নতা এবং গাছের সমারোহের দিকে খেয়াল রাখুন।

 

লক্ষ রাখুন

♦    ছাদে বা বাড়ির আঙিনায় দোলনা রাখলে এর ওপর ছাউনির ব্যবস্থা করে নিন। যাতে রোদ-বৃষ্টিতে শখের দোলনার কোনো ক্ষতি না হয়।

♦    দোলনায় বসার আসনটি যাতে আরামদায়ক হয়।

♦    বসার ঘরের ক্ষেত্রে টেলিভিশন দেখা যায় এ রকম স্থানে দোলনাটি রাখুন। যাতে দোলনায় বসেও আপনি টেলিভিশন দেখতে পারেন।

♦    বাচ্চাদের দোলনা কেনার সময় উচ্চতা অনুযায়ী দেখে কিনুন।

♦    নিয়মিত দোলনা পরিষ্কার করুন। ঝুলঝাড়ু বা বাঁশের দোলনার ক্ষেত্রে পানি দিয়ে পরিষ্কার করে নিন। একই সঙ্গে আসনের ফোম খুলে রোদে দিন।

♦    দোলনার পাশে খালি দেয়াল পাওয়া গেলে সেখানে নকশাদার ফ্রেমের বড় আয়না রাখতে পারেন।

♦    যে ঘরেই দোলনা রাখুন না কেন, দোলনার সঙ্গে মানানসই লম্বাটে, গোল বা চারকোনা রঙিন কুশন দিন। কুশনের কাপড় বেছে নিন ঘরের অন্যান্য কাপড়ের সঙ্গে মিলিয়ে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা