kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৬ আগস্ট ২০২২ । ১ ভাদ্র ১৪২৯ । ১৭ মহররম ১৪৪৪

কাজের মানুষ

ভাবিয়া করি কাজ

১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



ভাবিয়া করি কাজ

কোন তথ্য প্রয়োজনীয় আর কোনটি নয়, সেটা বোঝাও আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ। একটি ঘটনার চারপাশে হাজারো তথ্য ছড়ানো থাকে। কোন কোনটি আপনার কাজে লাগবে সেটা আপনাকে বুঝতে হবে। অপ্রয়োজনীয় তথ্যের পেছনে ছুটবেন না, সময় ও শ্রম দুই-ই নষ্ট হবে।

বিজ্ঞাপন

আপনি হবেন পথভ্রষ্ট

ভাবার ক্ষমতা বাড়ানোর সঙ্গে জীবনের লক্ষ্য অর্জন প্রত্যক্ষভাবে জড়িত। যার চিন্তাশক্তি, বিশ্লেষণী ক্ষমতা যত ভালো, প্রতিষ্ঠানে তার পূর্বানুমান সবচেয়ে বেশি সঠিক হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আর পূর্বানুমান যত ভালো ও সঠিক করতে পারবে, তার সিদ্ধান্ত সবচেয়ে সঠিক হবে। যার সিদ্ধান্ত সবচেয়ে সঠিক হবে, সে তত দ্রুত লক্ষ্য অর্জনে সক্ষম হবে। সুতরাং আসুন জেনে নিই চিন্তাশক্তি ও বিশ্লেষণ দক্ষতা বাড়ানোর ১০ পরামর্শ।

 

এক.

আপনার মধ্যে সবার আগে বিশ্লেষণ ক্ষমতা বাড়ানোর সত্যিকারের আগ্রহ থাকতে হবে। এই আগ্রহ থাকাটা একটা সাধারণ ব্যাপার মনে হতে পারে। কিন্তু এটাই সবচেয়ে জরুরি। যেকোনো কাজে আপনার যদি আগ্রহ থাকে, তাহলে কেউ আপনাকে নিরস্ত্র করতে পারবে না। আর যেদিন আগ্রহ মরে যাবে সেদিন আপনার অগ্রযাত্রাও থেমে যাবে।

 

দুই.

আপনি যা দেখছেন, যা শুনছেন, সব কিছু নিয়ে ভাবার চেষ্টা করুন। কেন ঘটল, কী করে হলো, এতে কার উপকার হলো, কার ক্ষতি হলো ইত্যাদি প্রাসঙ্গিক প্রশ্নের উত্তর খোঁজার চেষ্টা করুন। এই চর্চা আপনার বিশ্লেষণ ক্ষমতাকে বাড়িয়ে তুলবে এবং একসময় আপনাকে ইচ্ছা করে বিশ্লেষণ করতে হবে না। বিশ্লেষণী ক্ষমতা হবে আপনার স্বভাবজাত বিষয়। নিমেষেই আপনি কারণ ও ফলাফল আঁচ করতে পারবেন।

 

তিন.

বিশ্লেষণ করেই কাজ শেষ নয়, আপনার বিশ্লেষণ সঠিক ছিল কি না সেটাও দেখে নেওয়া দরকার। সব সময় যে এটা পরখ করা যায় তা নয়, তবে আপনার অনুসন্ধান চালিয়ে যেতে হবে। একটাই উদ্দেশ্য, আপনি সঠিক ছিলেন কি না। সঠিক না হলে এটাও জানতে হবে, আপনার ভুল ছিল কোথায়। পরবর্তী সময়ে বিশ্লেষণে এই ভুলগুলো আপনার করা চলবে না।

 

চার.

আপনার প্রশিক্ষক বা মেনটরের সহায়তা নিন। হতে পারে আপনার ভালো কোনো সহকর্মী, সেও আপনার সাহায্যে এগিয়ে আসতে পারে। আলোচনা করুন, শেয়ার করুন। যত বেশি ভাববেন, যত বেশি দৃষ্টিকোণ থেকে বিষয়টি দেখবেন, তত বেশি তথ্য-উপাত্ত পাবেন, যা আপনার বিশ্লেষণী ক্ষমতাকে বাড়াতেই থাকবে।

 

পাঁচ.

কোন তথ্য প্রয়োজনীয় আর কোনটি নয়, সেটা বোঝাও আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ। একটি ঘটনার চারপাশে হাজারো তথ্য ছড়ানো থাকে। কোন-কোনটি আপনার কাজে লাগবে সেটা আপনাকে বুঝতে হবে। অপ্রয়োজনীয় তথ্যের পেছনে ছুটবেন না, সময় ও শ্রম দুই-ই নষ্ট হবে। আপনি হবেন পথভ্রষ্ট।

 

ছয়.

মস্তিষ্কের ক্ষমতা বাড়াতে পাজল খেলুন। ছোট ছোট ধাঁধার উত্তর মেলান, গোয়েন্দা বই পড়ুন, গোয়েন্দা মুভি দেখুন। যেমন—শার্লক হোমস, তিন গোয়েন্দা, মাসুদ রানা, ফেলুদা ইত্যাদি, যার যেটা পছন্দ। মস্তিষ্কের আছে ব্যায়ামের প্রয়োজনীয়তা। এতে তার ধার বাড়বে।

 

সাত.

বিশেষ বিশেষ কেস স্টাডি নোট করুন। ঘটনাটা আগে লিখুন। তারপর লিখুন আপনার বিশ্লেষণ। এই নোটগুলো অসাধারণ ফল দেবে একদিন। যেদিন ফলাফল হাতে পাবেন সেদিন নোটখাতাটার পাতা উল্টাতে উল্টাতে ভাবতে পারবেন আপনি কী অনুমান করেছিলেন আর ফলাফল কী হলো! ভাবনাগুলো লেখা থাকায় আপনার পক্ষে মিলিয়ে দেখা অনেক সহজ হবে।

 

আট.

নিয়মিত সাম্প্রতিক ঘটনাবলির সঙ্গে নিজেকে আপডেটেড রাখুন। তথ্যজ্ঞান বিশ্লেষণ দক্ষতা বাড়াতে অনেক জরুরি।

 

নয়.

মানুষ চিনতে চেষ্টা করুন। অফিস সহকর্মীদের মধ্যে কে ভালো, কে মন্দ, কে মাঝারি, কে কথা বেশি বলে, কে চুপচাপ থাকে কিন্তু তথ্য পাচার করে, কে সহজ-সরল, কে কৌশলী এসব বোঝার চেষ্টা করুন। কার দ্বারা কী সম্ভব এটা অনেক সময়ই পূর্বানুমান করা দরকার হয়। আপনার যদি কমনসেন্স থাকে আর আপনি সব সময় চোখ-কান খোলা রাখেন তাহলে এটা কোনো কঠিন ব্যাপার নয়। নিজের ওপর আত্মবিশ্বাস রাখুন।

 

দশ.

যতটা সম্ভব একাকিত্ব এড়িয়ে চলবেন। সহকর্মীদের মধ্যে থাকুন। আড্ডায় অংশ নিন। মিংটিয়ে যথাসময় উপস্থিত থাকুন। যতটা সম্ভব আপনার পর্যবেক্ষণ বাড়ান আর তথ্য সংগ্রহ করা চালিয়ে যেতে থাকুন। কার পড়াশোনা ভালো, কে গোঁড়া, কে আধুনিক, কার দৃষ্টিভঙ্গি কেমন ইত্যাদি অনেক কিছু সম্পর্কে আপনার ধারণা পরিষ্কার হয়ে যাবে।

আপনার জন্য এই দিকনির্দেশনা একটি নিশানা মাত্র। আপনি নিজেও আরো অনেক কৌশল নিজের জন্য বের করতে পারেন, যা আপনার বিশ্লেষণী ক্ষমতাকে আরো বাড়াতে সাহায্য করবে।



সাতদিনের সেরা