kalerkantho

বুধবার  । ১৮ চৈত্র ১৪২৬। ১ এপ্রিল ২০২০। ৬ শাবান ১৪৪১

পাঞ্জাবি পরতে না চাইলে

অনেকেই বৈশাখে পাঞ্জাবি পরতে চান না। তাঁরা বেছে নিত   

১৩ এপ্রিল, ২০১৫ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পাঞ্জাবি পরতে না চাইলে

পোশাক : রঙ, নবরূপা ও বিন্দু

বৈশাখের পোশাক মানেই যেন সাদা-লাল রঙের পোশাক। আজকাল অবশ্য এ দুটি রঙের সঙ্গে কমলা, হলুদ, নীল ও অন্যান্য রংও ব্যবহার করা হচ্ছে বৈশাখের পোশাকে। বরাবরের মতো এবারও দেশীয় বিভিন্ন মোটিফে তৈরি করা হয়েছে ছেলেদের পোশাক। পোশাক পরিকল্পনার অনুপ্রেরণা হিসেবে নেওয়া হয়েছে নকশি কাঁথা, টেরাকোটা, পুরনো জমিদারবাড়ি, শখের হাঁড়ি, সরাচিত্র, মুখোশ, রিকশা, লুঙ্গি-গামছা, হাতপাখা, পালকিসহ আরো কত কী। হারিয়ে যাওয়া ঐতিহ্যকে নতুন করে পরিচয় করাতে ফ্যাশন হাউসগুলোর এ প্রয়াস।
ফ্যাশন হাউস নিত্য উপহারের স্বত্বাধিকারী বাহার রহমান জানান, ‘বৈশাখের সঙ্গে লাল-সাদা রঙের রয়েছে ঐতিহ্যগত সম্পর্ক। তাই আমাদের বৈশাখের ফতুয়া ও টি-শার্ট তৈরির ক্ষেত্রে এ দুটি রংকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। এর পাশাপাশি অফহোয়াইট, সবুজ, কালো, হলুদ, বেগুনি আর নীলের মতো  উৎসবধর্মী অনেক রং ব্যবহার করা হয়েছে।’
নববর্ষে ৫০ রকমের টি-শার্ট এনেছে ফ্যাশন হাউস ডুয়েট অ্যাড ঐতিহ্য। প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার অনুপ কুমার পাল জানালেন, ‘বাঙালিয়ানা ফুটিয়ে তুলতে এবারও টি-শার্টে রিকশা পেইন্ট, মুখোশ, সরাচিত্র, বাংলার শ্যামল প্রকৃতি প্রভৃতি ফুটিয়ে তোলা হয়েছে ছেলেদের টি-শার্টের ক্যানভাসে।’
বাজার ঘুরে দেখা গেল, আবহমান গ্রামবাংলার হাতপাখার বর্ণিল নকশা, লোকজ মোটিফসহ নানা ফ্লোরাল ও জ্যামিতিক মোটিফের ব্যবহার করা হয়েছে টি-শার্ট, ফতুয়া, শার্ট ও পাঞ্জাবিতে। সুতি, অ্যান্ডি সুতি, ভয়েল, জয় সিল্কসহ বিভিন্ন কাপড়ে স্ক্রিন প্রিন্ট, অ্যামব্রয়ডারি করে ফতুয়া করা হয়েছে। 
ছেলেদের শার্টেও থাকছে কিছু কিছু পরিবর্তন। ফ্যাশন হাউস  রঙ-এর ডিজাইনার ও সত্ত্বাধিকারী বিপ্লব সাহা জানালেন, ‘এবারের শার্টের ট্রেন্ড একরঙা আর চেক। দুই ধরনের শার্টেরই কলার ছোট, যাকে কেতাবি ভাষায় অ্যারো কলার বলে। এবার একরঙায় অন্যান্যবারের মতো বেশি কনট্রাস্ট থাকছে না। হালকা প্রিন্ট থাকছে। রঙের মধ্যে প্রাধান্য পেয়েছে লাল, নীল, মেরুন, গাঢ় মেরুন, আকাশি, সাদা প্রভৃতি রং। 
শার্টের প্লেটেও নতুনত্ব আনার চেষ্টা আছে। যেমন-অর্ধেক প্লেট ঢেকে দেওয়া হয়েছে আলাদা কাপড়ে। এই সামান্য পরিবর্তনের ফলে বদলে গেছে শার্টের সামনের অংশই। অনেকেরই একরঙা পছন্দ নয়, সে ক্ষেত্রে আছে এমন ধরনের শার্ট, যার ভেতরে এক রং আর বাইরে অন্য। শার্টের হাতা ভাঁজ করলেই ভেতরের রংটি বাইরের রঙের সঙ্গে মিলে আলাদা লুক তৈরি করবে বলে মনে করছেন ডিজাইনার। চেক শার্টে এবারের ট্রেন্ড ছোট ছোট চেক। কালো-সাদা, নেভি ব্লু, লাল-নীলের যৌথ ব্যবহারে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে চেকগুলো, যা উৎসবেরও রং।
পোশাক : রঙ, নবরূপা ও বিন্দু

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা