kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৮ জুলাই ২০১৯। ৩ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৪ জিলকদ ১৪৪০

আমতলী

নৌকা ছেড়ে ঘোড়ায় চড়লেন আওয়ামী লীগ নেতারা!

বরগুনা প্রতিনিধি   

২৯ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নৌকাকে এড়িয়ে ঘোড়া প্রতীকে ভোট চাইছেন বরগুনার আমতলী উপজেলার প্রভাবশালী আওয়ামী লীগ নেতারা। আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর বিরুদ্ধে নানা রকম ষড়যন্ত্রও করছেন তাঁরা। এমন অভিযোগ এনে গতকাল বুধবার সকালে বরগুনা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ও আমতলী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জি এম দেলোয়ার।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জি এম দেলোয়ার বলেন, আমতলী পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মতিয়ার রহমানের নেতৃত্বে একদল ষড়যন্ত্রকারী সরাসরি নৌকার বিরোধিতা করে আসছে। তারা নির্বাচনের খরচের কথা বলে তাঁর কাছে দুই কোটি টাকা উেকাচও দাবি করেছে। তা ছাড়া যড়যন্ত্রকারীরা প্রকাশ্যে ‘শেখ হাসিনার সালাম নিন, ঘোড়া মার্কায় ভোট দিন’ বলে স্লোগান দিচ্ছে। যারা সারা বছর আওয়ামী লীগের সুবিধা নিয়ে এখন নৌকা প্রতীকের বিরোধিতা করছে তাদের চিহ্নিত করে যথাযথ সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ারও দাবি জানান জি এম দেলোয়ার।

সংবাদ সম্মেলনে নৌকার প্রার্থী জি এম দেলোয়ার আরো জানান, নৌকা প্রতীকের বিরোধিতাকারী নেতারা হলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও আমতলী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোতাহার উদ্দিন মৃধা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও হলদিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম মৃধা, চাওরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আক্তারুজ্জামান বাদল খান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও আঠারোগাছিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হারুণ অর রশীদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও কুকুয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন মাসুম তালুকদার, আরপাঙ্গাসিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নূরুল হক এবং পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবর রহমান। তাঁরা সবাই এখন ঘোড়া প্রতীকের হয়ে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছে। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন অ্যাডভোকেট এম এ কাদের মিয়া, অধ্যাপক জালাল আহমেদ, আওয়ামী লীগ নেতা ওয়াজেদ আলী খান, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জি এম মুসা, যুবলীগ সভাপতি জি এম হাসান, ছাত্রলীগ সভাপতি মাহবুবুর রহমান প্রমুখ।

এ বিষয়ে আমতলী পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মতিয়ার রহমান তাঁদের বিরুদ্ধে করা সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘জনসমর্থন কম থাকায় নেতাকর্মীদের বিশ্বাস করতে পারছেন না জি এম দেলোয়ার সাহেব। এ জন্য নেতাকর্মীরাও তাঁর থেকে একটু দূরে।’ দুই কোটি টাকা উেকাচ চাওয়ার বিষয়ে মেয়র মতিয়ার রহমান আরো বলেন, ‘সারা জীবনের রাজনীতিতে আমার উেকাচ নেওয়ার কোনো রেকর্ড নেই।’

 

 

মন্তব্য