kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চার উপজেলায় মাঠে বিএনপির সাত নেতা

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৬ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তৃতীয় ধাপে অনুষ্ঠেয় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চাঁপাইনবাবগঞ্জের চার উপজেলায় স্বতন্ত্র পদপ্রার্থী হিসেবে মাঠে রয়েছেন বিএনপির সাত নেতা। নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার বিএনপির কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে এ নির্বাচনে অংশ নেওয়া প্রার্থীদের মধ্যে উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মতো পদধারী নেতারাও রয়েছেন। তাঁদের অনেকেই নির্বাচনের শেষ পর্যন্ত লড়াইয়ে থাকার ঘোষণা দিয়েছেন। তবে দলের পক্ষ থেকে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হলেও কেউই তাতে সাড়া দিচ্ছেন না।

জেলার শিবগঞ্জ, নাচোল, গোমস্তাপুর ও ভোলাহাট উপজেলা নির্বাচনে অংশ নিতে ৬২ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এর মধ্যে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ের সময় তিন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীসহ ছয়জনের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়। তবে বিএনপির কোনো প্রার্থীরই মনোনয়নপত্র বাতিল হয়নি।

গোমস্তাপুর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে তিনজন প্রার্থী রয়েছেন। এর মধ্যে রয়েছেন গোমস্তাপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান বাইরুল ইসলাম দাবি করেন, নেতাকর্মীদের চাপেই তিনি প্রার্থী হয়েছেন। তিনি বলেন, সারা দেশে ক্ষমতাসীন দলের ভোট চুরির মধ্যেও একাদশ সংসদ নির্বাচনে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনে বিএনপির প্রার্থী জিতেছেন। এ ছাড়া বর্তমান গোমস্তাপুর উপজেলা চেয়ারম্যানও বিএনপির। এই অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে তিনি নির্বাচনে স্বতন্ত্র পদপ্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

ভোলাহাটে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আনোয়ারুল ইসলাম, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক চুটু, জেলা বিএনপির সহসভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বাবর আলী বিশ্বাস এবং ভোলাহাট ইউপি চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা ইয়াজদানী জর্জ।

বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আনোয়ারুল ইসলাম জানান, ভোলাহাট হচ্ছে বিএনপির ঘাঁটি। তাই দলের নেতাকর্মীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ছেড়ে দিতে চাচ্ছে না।

নাচোল উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন উপজেলা বিএনপির সভাপতি মাঈনুল ইসলামের জামাতা আমানুল্লাহ আল মাসুদ। তিনি বলেন, বিএনপির কোনো সাংগঠনিক পদে তিনি নেই। তাই নির্বাচনে অংশ নিতে দলের কোনো নিষেধাজ্ঞা তাঁর জন্য প্রযোজ্য নয়।

শিবগঞ্জে চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন পৌর বিএনপির সাবেক নেতা মাসুদ রানা টুটুল। তিনিও নির্বাচনের শেষ পর্যন্ত লড়বেন বলে জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদরের সংসদ সদস্য ও বিএনপির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব হারুনুর রশিদ জানান, যাঁরা মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করবেন না, তাঁদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা