kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

আচরণবিধি লঙ্ঘনের হিড়িক

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

১৩ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



আচরণবিধি লঙ্ঘনের হিড়িক

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলা পরিষদের নির্বাচন সামনে রেখে প্রার্থীরা আচরণবিধি ভঙ্গ করে নারুয়া ইউনিয়ন পরিষদের দেয়ালে পোস্টার লাগিয়েছেন। ছবি : কালের কণ্ঠ

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্ঘনের হিড়িক পড়েছে। কোথাও কোথাও নির্বাচন কমিশন ব্যবস্থা নিচ্ছে। আবার কোথাও নিচ্ছে না। নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর আগৈলঝাড়া (বরিশাল) : বরিশালের উজিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন না পেয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন হাফিজুর রহমান ইকবাল। তিনি বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি। বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগটি করেছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আব্দুল মজিদ সিকদার বাচ্চু।

বাচ্চু গত শনিবার পৃথকভাবে বরিশাল জেলা রিটার্নিং ও উপজেলা সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে লিখিত অভিযোগপত্র দেন। অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, ইকবাল শনিবার ৯টি ইউনিয়ন ও পৌরসভার বিভিন্ন এলাকার সড়কগুলোতে দুই শতাধিক মোটরসাইকেল নিয়ে শোডাউন করেন। এতে একদিকে লঙ্ঘন হয়েছে নির্বাচনী বিধিমালা, অন্যদিকে আতঙ্কিত হয়ে পড়ছে ভোটাররা। এ সময় ভোগান্তিতে পড়ে স্কুল-কলেজপড়ুয়া শিক্ষার্থীসহ পথচারীরা।

অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয়েছে, ইকবাল তাঁর নির্বাচনী প্রচারণার পোস্টার-লিফলেটে শেখ হাসিনার নাম ও আওয়ামী লীগের স্লোগান ব্যবহার করে করেছেন। তিনি নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর প্রচার-প্রচারণাকে বাধাগ্রস্ত করতে ভোটার ও দলীয় নেতাকর্মীদের ওপর প্রভাব বিস্তার করছেন।

এ বিষয়ে ইকবাল বলেন, ‘পোস্টার-লিফলেটে শেখ হাসিনার নাম ও দলীয় স্লোগান ব্যবহার করেছি। তবে নির্বাচন কমিশন যদি নিষেধ করে, তাহলে তুলে নেব।’ উজিরপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং কর্তকর্তা মোহাম্মদ আলীমুদ্দিন জানান, ‘অভিযোগের বিষয়টি নির্বাচন কমিশনকে জানানো হয়েছে।’

মুন্সীগঞ্জ : প্রতীক বরাদ্দের আগে প্রচারণা চালাচ্ছেন এক প্রার্থী। মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. জাকির হোসেনের পক্ষে এই প্রচার-প্রচারণা চালানো হচ্ছে। তিনি কেন্দ্রীয় যুবলীগের সহসম্পাদক। এদিকে প্রচারণার কাজে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের ব্যবহার করা হচ্ছে। তাদের হাতে লিফলেট দিয়ে অভিভাবকদের কাছে ভোট চাওয়ার দৃশ্য লক্ষ করা যাচ্ছে। উপজেলার কেয়টখালী, বাড়ৈগাঁও, আটপাড়ার একাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গত বুধ ও বৃহস্পতিবার এ ধরনের প্রচার চালাতে দেখা গেছে। জাকির হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি ‘বিষয়টি ভুল হয়েছে’ বলে স্বীকার করেন। সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও শ্রীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জাহিদুল ইসলাম বলেন, ‘আগামী ১৪ মার্চ প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে। এর আগে গণসংযোগ, নির্বাচনী সভা ও প্রচার-প্রচারণা চালানো নির্বাচন আচরণবিধি লঙ্ঘনের শামিল। অভিযোগ পাওয়া গেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রার্থীর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

শেরপুর : নালিতাবাড়ী উপজেলায় আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীকে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। আচরণবিধি লঙ্ঘন করে পৌর এলাকায় একসঙ্গে দুই মাইক ব্যবহার করায় ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়। এ ছাড়া সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী আশুর বেগমকে একই অভিযোগে এক হাজার টাকা জরিমানা গুনতে হয়েছে।

রাজবাড়ী : একসঙ্গে তিন প্রার্থীর প্রচারণা চালানোর অভিযোগে এক ব্যক্তির কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শাহ মো. সজীব জানান, সদর উপজেলার বড় নূরপুরে শাজাহান সেখের ছেলে নাহিদ সেখ গত সোমবার সকাল ৯টা থেকে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার ছাদে দুটি প্রচার মাইক বের করে। মাইকে নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী সফিকুল ইসলাম সফি, উড়োজাহাজ প্রতীকের ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী অ্যাডভোকেট শফিকুল হোসেন এবং কলস প্রতীকের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মীর মাহফুজা খাতুন মলির প্রচারণা চালানো হয়, যা আচরণবিধির লঙ্ঘন।

ফরিদপুর : নগরকান্দা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আচরণ বিধিমালা লঙ্ঘন করার দায়ে আওয়ামী লীগ ও বিদ্রোহী প্রার্থীদের কারণ দর্শাতে বলেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. নওয়াবুল ইসলাম। গত রবিবার রাত এবং সোমবার সকালে দুই প্রার্থীর দুই প্রধান নির্বাচনী এজেন্টের কাছে চিঠি দেওয়া হয়েছে। এ নোটিশ হস্তান্তর করেন সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আল-আমিন।

নোটিশ থেকে জানা গেছে, নৌকা প্রতীকের প্রার্থী জেলা আ. লীগের সহসভাপতি মনিরুজ্জামান সরদারের বিরুদ্ধে গাছে পেরেক দিয়ে বিলবোর্ড স্থাপন এবং গত ৯ মার্চ মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা করা হয়েছে। অন্যদিকে আনারস প্রতীকের প্রার্থী কেন্দ্রীয় উপকমিটির সাবেক সহসম্পাদক কাজী শাহ্জামান বাবুলের বিরুদ্ধে গত ১ মার্চ নগরকান্দা উপজেলা পরিষদের ডাকবাংলোতে অবস্থান করে নির্বাচন কার্যক্রম পরিচালনা করা, মিছিল-পরবর্তী উপজেলা পরিষদ চত্বরের শহীদ মিনারে সমাবেশ করা, গাছে পেরেক দিয়ে বিলবোর্ড স্থাপন এবং গত ৯ মার্চ উপজেলা পরিষদের সামনের রাস্তা দিয়ে মিছিল করার অভিযোগ করা হয়েছে।

শাজাহানপুর (বগুড়া) : শাজাহানপুরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে একের পর এক আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠেছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার নয়মাইলে ব্যক্তিগত অফিসে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী (আনারস প্রতীক) সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আবুল বাশার এ অভিযোগ করেন।

আবুল বাশার বলেন, মনোনয়ন সংগ্রহের পর থেকেই আওয়ামী লীগ পদপ্রার্থী প্রভাষক সোহরাব হোসেন ছান্নু (নৌকা প্রতীক) ও তাঁর কর্মীবাহিনী হুমকিধমকি দিয়ে আসছে। মনোনয়ন প্রত্যাহার না করায় বেপরোয়া হয়ে ওঠেন ছান্নু। প্রতীক বরাদ্দের পর থেকে তাঁর কর্মীদের মাঠে প্রচারণায় বাধা দিচ্ছে। কর্মীদের মারধর করা হচ্ছে। হ্যান্ডবিল কেড়ে নেওয়া হচ্ছে। পোস্টার ছিঁড়ে ফেলা হচ্ছে। সব সময় শতাধিক মোটরসাইকেল বহর নিয়ে তাঁকে ও তাঁর কর্মীদের ধাওয়া করছে। বাড়ি বাড়ি গিয়ে হুমকিধমকি দিচ্ছে। ফলে ভয়ে কর্মীরা প্রচার-প্রচারণা চালাতে পারছে না।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা