kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতা

পরাজিতরা আক্রান্ত

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

১২ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পরাজিতরা আক্রান্ত

পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলা সদরের ফকিরগঞ্জ বাজারে গতকাল পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকদের ওপর হামলা চালায় বিজয়ী চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

প্রথম ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের পর বিভিন্ন স্থানে পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকদের ওপর বিজয়ী প্রার্থীর সমর্থকরা হামলা চালিয়েছে। এতে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে। কোথাও কোথাও পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকদের বাড়িঘর ভাঙচুর এবং দোকানপাট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বিস্তারিত আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো প্রতিবেদনে :

পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলা সদরের ফকিরগঞ্জ বাজারে গতকাল সোমবার পরাজিত প্রার্থী অ্যাডভোকেট আনিছুর রহমানের সমর্থকদের ওপর হামলা চালিয়েছে বিজয়ী চেয়ারম্যান প্রার্থী তৌহিদুল ইসলামের সমর্থকরা। এ সময় দুই পক্ষের সংঘর্ষে পুলিশসহ ১১ জন আহত হয়। এদের মধ্যে গুরুতর আহত পাঁচজনকে আটোয়ারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

আহতরা হলেন সুখাতি গ্রামের হাকিম উদ্দীনের ছেলে মো. বাবুল (৪০), তাহেরুলের ছেলে রাকিব ইসলাম (১৫) ও সেলিম (২৫), শামসুল হকের ছেলে হোসেন আলী (৩২), শহিদুলের ছেলে গোলাপ (১৫), রফিজুলের ছেলে মখিম উদ্দীন (২৮), ছোটদাপ গ্রামের সফিকুল ইসলাম বাতাসুর ছেলে আতিকুল ইসলাম (১৪), সামসুদ্দিনের স্ত্রী সুলতানা বেগম (২৫) এবং আটোয়ারী থানার এএসআই আতিক হাসান (৩৫), কনস্টেবল সুজা উদ্দীন (২২) ও রাজিউর রহমান (২৪)।

পুলিশ জানায়, খবর পেয়ে আটোয়ারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শারমিন সুলতানার নেতৃত্বে পুলিশ, বিজিবি, র‌্যাব ও স্ট্রাইকিং ফোর্স ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশকে টিয়ার গ্যাসের শেলও নিক্ষেপ করতে হয়।

রাজশাহীর দুর্গাপুরে বিজয়ী নৌকা প্রতীকের সমর্থকদের বিরুদ্ধে দলের বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের ওপর হামলা-ভাঙচুর ও জমি দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় দুজন আহত হয়েছে। এ সময় একাধিক বাড়ি ভাঙচুর করা হয়। গত রবিবার রাতে নির্বাচনের ফল ঘোষণার পর এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

জয়পুরহাটের ক্ষেতলালে নির্বাচনে জয়লাভের পর নৌকার সমর্থকদের বিরুদ্ধে এক ইউপি চেয়ারম্যানকে লাঞ্ছিত ও সংখ্যালঘু পরিবারে হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত রবিবার রাতে ও গতকাল সকালে এসব ঘটনা ঘটে। তা ছাড়া পরাজিত স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হয়। খবর পেয়ে এলাকায় পুলিশ গেলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

তা ছাড়া সিরাজগঞ্জের তাড়াশে বিজয়ী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের হামলায় পাঁচ ব্যক্তি আহত হয়েছে। এর মধ্যে তিনজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনপূর্ব সহিংসতা : এদিকে রংপুরের মিঠাপুকুরে স্বতন্ত্র প্রার্থীর মিছিলে নৌকার সমর্থকদের হামলায় পাঁচজন আহত হয়েছে। এ ছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান ভাঙচুরেরও অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় থানায় দুটি মামলা করা হয়েছে। গত রবিবার রাতে উপজেলার তিনটি স্থানে এসব হামলার ঘটনা ঘটে।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা