kalerkantho

মঙ্গলবার । ২১ জানুয়ারি ২০২০। ৭ মাঘ ১৪২৬। ২৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

এমপির বিরুদ্ধে বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ

কমলগঞ্জে স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থককে মারধর

শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি   

১০ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মৌলভীবাজার-৪ (শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদের বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠেছে। গত শুক্রবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী অধ্যাপক রফিকুর রহমান।

এদিকে গত বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার দেওড়াছড়া চা বাগানে স্বতন্ত্র প্রার্থী ইমতিয়াজ আহমদ বুলবুলের কর্মী কামাল মিয়াকে মারধর করেন রফিকুর রহমানের সমর্থকরা। এর প্রতিবাদে বুলবুল সমর্থকদের নিয়ে ওই দিন রাতে মৌলভীবাজার-কমলগঞ্জ সড়ক এক ঘণ্টা অবরোধ করে রাখেন। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। এ ঘটনায় কামাল রহিমপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জুনেল আহমদ তরফদারসহ কয়েকজনকে অভিযুক্ত করে বুধবার রাতে কমলগঞ্জ থানায় অভিযোগ করেন। কামাল রহিমপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সহসভাপতি।

আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী অধ্যাপক রফিকুর রহমান কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান। তিনি দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও কমলগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। অন্যদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী ইমতিয়াজ আহমদ বুলবুল মৌলভীবাজার-৪ আসনের সংসদ সদস্য মো. আব্দুস শহীদের ছোট ভাই। বুলবুলের আরেক ভাই মোসাদ্দেক আহমদ মানিক কমলগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি।

শুক্রবার দুপুরে কমলগঞ্জে নিজ বাড়িতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে অধ্যাপক রফিকুর রহমান বলেন, ‘এমপি আব্দুস শহীদ নিজ এলাকায় অবস্থান করে তাঁর ভাইকে উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত করার জন্য নানামুখী তৎপরতা চালাচ্ছেন, যা একজন এমপি হিসেবে তা আচরণবিধি লঙ্ঘনের শামিল।’

ইমতিয়াজ বলেন, বিধি অনুযায়ী তাঁরাই তো (নৌকার প্রার্থী) আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন।

আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ সম্পর্কে মৌলভীবাজার-৪ আসনের সংসদ সদস্য উপাধ্যক্ষ মো. আব্দুস শহীদ বলেন, ‘শ্রীমঙ্গল ও কমলগঞ্জের এমপি হিসেবে নিজের এলাকার সরকারি উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে অংশ নিতে হয়। সভা-সমিতিতে উপস্থিত থাকতে হয়। কিন্তু নির্বাচনে ভাইয়ের পক্ষে কোনো প্রচারণায় অংশ নিইনি।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা