kalerkantho

বুধবার । ২৬ জুন ২০১৯। ১২ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

মানিকগঞ্জ

আ. লীগে বিদ্রোহীর ভিড় বিএনপিতেও কম নয়

সাব্বিরুল ইসলাম সাবু, মানিকগঞ্জ   

২ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মানিকগঞ্জের সাতটি উপজেলার মধ্যে চারটিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে লড়তে হবে বিদ্রোহী প্রার্থীর বিরুদ্ধে। অন্যদিকে বহিষ্কারের ঝুঁকি নিয়ে চারটি উপজেলায় বিএনপি নেতারা প্রার্থী হয়েছেন।  এর মধ্যে একটি উপজেলায় রয়েছে বিএনপির তিনজন প্রার্থী। একটি উপজেলায় প্রার্থী দিয়েছে জাসদ। জাকের পার্টি প্রার্থী দিয়েছে একটি উপজেলায়। তৃতীয় দফায় আগামী ২৪ মার্চ মানিকগঞ্জের সাতটি উপজেলায় নির্বাচন হবে।

মানিকগঞ্জ সদর উজেলায় আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী ইসরাফিল হোসেন। তিনি সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি। গতবার তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে পরাজিত হন। তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী হচ্ছেন বিএনপির আতাউর রহমান আতা। বিএনপির প্রার্থী হিসেবে তিনি গত দুইবারের উপজেলা চেয়ারম্যান।

ঘিওর উপজেলায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব। তাঁর বিরুদ্ধে কোনো বিদ্রোহী প্রার্থী নেই। এই উপজেলায় বিএনপির তিন নেতা প্রার্থী হয়েছেন। তাঁরা হচ্ছেন বর্তমান চেয়ারম্যান খোন্দকার লিয়াকত হোসেন, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল আলিম মনোয়ার ও উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক ফিরোজ আলম বাবু। আফজাল হোসেন জকি প্রার্থী হয়েছেন জাসদ থেকে। তিনি প্রথম উপজেলা নির্বাচনে নির্বাচিত চেয়ারম্যান। এ ছাড়া জাকের পার্টির প্রার্থী হয়েছেন শাহজাহান কবির।

দৌলতপুর উপজেলায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী নুরুল ইসলাম রাজাকে লড়তে হবে দুজন বিদ্রোহী প্রার্থীর বিরুদ্ধে। তাঁরা হচ্ছেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের ও আমিনুর রহমান। এই উপজেলায় বিএনপির প্রার্থী হয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান তোজাম্মেল হক তোজা।

শিবালয় উপজেলায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী রেজাউর রহমান জানু। তিনি শিবালয় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি। তাঁকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হবে এই উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান আবদুর রহিম খানের সঙ্গে। রহিম খান জেলা আওয়ামী লীগের অর্থবিষয়ক সম্পাদক।

সাটুরিয়া উপজেলায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী আবদুল মজিদ ফটো। জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আবদুল মজিদ ফটো এক দফায় এই উপজেলায় চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেছেন। তাঁকে লড়তে হবে বিএনপির প্রার্থী বশির উদ্দিন ঠাণ্ডুর বিরুদ্ধে। তিনি সাটুরিয়া উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক। বর্তমানে সাটুরিয়া উপজেলার চেয়ারম্যান।

সিংগাইর উপজেলায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী শহিদুর রহমান শহিদ। তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক। তাঁর বিরুদ্ধে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন মুশফিকুর রহমান হান্নান, ওবায়দুর রহমান ও লুত্ফর রহমান। মুশফিকুর রহমান সাবেক চেয়ারম্যান। ওবায়দুর রহমান সিংগাইর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং লুত্ফর রহমান সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক। এ ছাড়া রয়েছেন জাকের পার্টির এ কে এম সায়েদুর রহমান।

হরিরামপুরে আওয়ামী লীগের প্রার্থী দেওয়ান সায়েদুর রহমান। তিনি জেলা আওয়ামী লীগের  সমাজকল্যাণ সম্পাদক এবং সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান। তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী একই উপজেলার আওয়ামী লীগের কৃষিবিষয়ক সম্পাদক আলী হায়দার।

মন্তব্য