kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৫ অক্টোবর ২০১৯। ৩০ আশ্বিন ১৪২৬। ১৫ সফর ১৪৪১       

আক্কেলপুরে প্যানেল বানিয়ে আ. লীগ নেতা বিতর্কে

আক্কেলপুর (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি   

২ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



আক্কেলপুরে প্যানেল বানিয়ে আ. লীগ নেতা বিতর্কে

জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসরের ফেসবুক স্ট্যাস্টাস

জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর সঙ্গে পছন্দের দুই ভাইস চেয়ারম্যানকে নিয়ে প্যানেল বানিয়ে সমালোচনার কবলে পড়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসর। দলীয়ভাবে প্যানেলের বিষয়টি না থাকলেও তিনি টাকার বিনিময়ে ওই কাজ করছেন বলে অভিযোগ তোলা হয়েছে।

জানা গেছে, আক্কেলপুরে চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোকছেদ আলী মাস্টার। পুরুষ ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদ দুটি উন্মুক্ত থাকায় দলের অনেকেই ওই দুই পদে মনোনয়নপত্র তুলেছেন। কিন্তু এ ক্ষেত্রে ভাইস চেয়ারম্যান পদে আনোয়ারুল ইসলাম বাবলু ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আছিয়া খানম সম্পাকে নিয়ে প্যানেল বানিয়ে এটিকে দলীয় প্যানেল হিসেবে প্রচার চালাচ্ছেন গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসর। এ নিয়ে দলের নেতাকর্মীরা ক্ষোভ প্রকাশ করছে।

এ ক্ষেত্রে গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসরের দাবি, তিনি স্থানীয় নেতাদের সমর্থনের ভিত্তিতেই ওই তিনজনকে নিয়ে স্থানীয়ভাবে প্যানেলটি তৈরি করেছেন। জনপ্রিয়তা না থাকা অন্য প্রার্থীরা এখন নৌকার বিপক্ষে মিথ্যা কথা রটাচ্ছেন।

ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী উপজেলা কৃষক লীগের আহ্বায়ক জিয়াউল হক জিয়া বলেন, ‘গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসর ওই প্রার্থীদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে প্যানেল তৈরি করেছেন। আমরা যেন তাঁর অন্যায়ের বিরুদ্ধে কথা বলতে না পারি, সে জন্য তিনি এ কাজ করেছেন।’

নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ইসমত আরা শিল্পী বলেন, ‘গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসরকে এখন আর আক্কেলপুরবাসী চায় না। তিনি টাকা ছাড়া কিছুই বোঝেন না। টাকার বিনিময়ে তিনি ওই কাজ করছেন। উপজেলাবাসী এখন অনেক সচেতন, তাঁর ধোঁকাবাজির জবাব জনগণ ভোটের মাধ্যমে দেবে।’

ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ বদিরুজ্জামান টিপু বলেন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ভাইস চেয়ারম্যান পদে যে কেউ নির্বাচন করতে পারবে। এ ক্ষেত্রে কোনো প্যানেল থাকার সুযোগ নেই। গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসর দলের বিরুদ্ধে কাজ করছেন।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা সাদেকুর রহমান সাদেক বলেন, আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মোকছেদ আলী মাস্টার। কিন্তু ভাইস চেয়ারম্যান পদে দল থেকে কোনো প্রার্থী ঘোষণা করা হয়নি। গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসর ২০ লাখ টাকার বিনিময়ে প্যানেল বানিয়ে তাঁদের পক্ষে ভোট চাইছেন। এটি দলীয় সিদ্ধান্ত নয়।

আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোকছেদ আলী মাস্টার বলেন, দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে মনোনীত করেছেন। দলের স্বার্থে একটি প্যানেল করা হয়েছে। এলাকায় তাদের জনপ্রিয়তা ভালো। কিন্তু নৌকাকে পরাজিত করতে কিছু লোক মিথ্যা প্রচার চালাচ্ছে।

আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকের ওপর হামলা : এদিকে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুস সালাম আকন্দের সমর্থক হাবিবুর রহমানের ওপর হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বৃহস্পতিবার রাতের ওই ঘটনায় গুরুতর অবস্থায় রাতেই তাঁকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

আব্দুস সালাম আকন্দের ছেলে আহাম্মেদ সাব্বির আকন্দ বলেন, ‘নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আমার বাবার এক সমর্থকের ওপর নৌকার সমর্থকরা হামলা চালিয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।’

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসর বলেন, ‘তাদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক বিরোধ চলে আসছিল। ওই ঘটনার জের ধরে বৃহস্পতিবার রাতে তাদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে বলে শুনেছি।’

আক্কেলপুর থানার ওসি কিরণ কুমার রায় বলেন, গত বৃহস্পতিবার রাতে পৌর এলাকার শান্তা গ্রামে সংঘর্ষের ঘটনায় শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত কেউ কোনো লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা