kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বৈঠক করেও প্রার্থী চূড়ান্ত করা যায়নি পাকুন্দিয়ায়

পাকুন্দিয়া (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে অভ্যন্তরীণ কোন্দল চলছিল। গত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিনের এ কোন্দল ভুলে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা নৌকার পক্ষে একাট্টা হয়। কিন্তু আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন দেওয়া নিয়ে দফায় দফায় বৈঠক করেও কেন্দ্রীয় নির্দেশ অনুযায়ী তিনজন প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত করতে পারেনি উপজেলা আওয়ামী লীগ। এ অবস্থায় গত ৬ ফেব্রুয়ারি জেলা আওয়ামী লীগের কাছে সম্ভাব্য প্রার্থী সবার নামের তালিকাই পৌঁছে দিয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগ।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বাছাইয়ের জন্য দলের তৃণমূল নেতাদের নিয়ে বর্ধিত সভা হয়। সভায় চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হতে আওয়ামী লীগ থেকে সাতজনের জীবনবৃত্তান্তসহ আবেদনপত্র জমা পড়ে। ওই সাত মনোনয়নপ্রত্যাশী হলেন উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম রেনু, অ্যাডভোকেট মো. হুমায়ুন কবির, নারান্দী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শফিকুল ইসলাম, জেলা শ্রমিক লীগের উপদেষ্টা আতাউল্লাহ সিদ্দিক মাসুদ, প্রভাষক আতাউর রহমান সোহেল, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মেজবাহ উদ্দিন ও অধ্যক্ষ জসিম উদ্দিন। কিন্তু এ সাতজনের মধ্য থেকে তিনজন প্রার্থী বাছাইয়ে একমত হয়নি।

জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আহমেদ উল্লাহ জানান, সাতজনের নামই কেন্দ্রে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা