kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

মোকছেদ-সালামে নৌকা দুলল

জয়পুরহাট ও আক্কেলপুর প্রতিনিধি   

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মোকছেদ-সালামে নৌকা দুলল

আসন্ন উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে চেয়ারম্যান পদে মাত্র এক দিনের ব্যবধানে আওয়ামী লীগ থেকে দুজনকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছিল। তাঁরা হলেন আক্কেলপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোকছেদ আলী মণ্ডল এবং সহসভাপতি ও মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম আকন্দ। গতকাল সোমবার তাঁরা দুজনই রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। তবে মোকছেদ দলীয় প্রার্থী আর সালাম স্বতন্ত্র (বিদ্রোহী) প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। গতকাল ছিল মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন।

একাধিক সূত্রে জানা যায়, উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলের মনোনয়নপ্রাপ্তির আশায় দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় গণসংযোগ করছেন আওয়ামী লীগ নেতা মোকছেদ। অন্যদিকে চেয়ারম্যান পদে আরেক মনোনয়নপ্রত্যাশী আওয়ামী লীগ নেতা সালাম নির্বাচনী ডামাডোল শুরু হলে মাঠে নামেন। এ দুজনের পক্ষ নিয়ে নেতাকর্মীরাও বিভক্ত হয়ে পড়ে, অংশ নেয় তাঁদের বিভিন্ন কর্মসূচিতে। তৃণমূলের সভায় তাঁদের সমর্থন দেওয়া নিয়ে মারধরের ঘটনাও ঘটে। এর মধ্যে গত ৮ ফেব্রুয়ারি গণভবনে দলের সংসদীয় বোর্ড ও স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের এক যৌথসভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় উপজেলা চেয়ারম্যান পদে ৮৭ প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত করা হয়। পরদিন ৯ ফেব্রুয়ারি তাঁদের নামের তালিকা প্রকাশ করা হয়। ওই তালিকায় সালামের নাম ছিল। এ খবর আক্কেলপুরে পৌঁছালে পর তাঁর সমর্থকরা মিষ্টি বিতরণ করে। কিন্তু ১০ ফেব্রুয়ারি ফেসবুকে আওয়ামী লীগ, সংসদীয় বোর্ড ও স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বাক্ষরিত দলীয় মনোনয়নপত্রের ছবির পোস্ট করলে তাতে মোকছেদকে মনোনয়ন দেওয়ার বিষয়টি জানা যায়। আর এ খবর জানাজানি হলে উল্লাসে মেতে ওঠে তাঁর সমর্থকরা।

আক্কেলপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র গোলাম মাহফুজ চৌধুরী জানান, আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে প্রথমে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম আকন্দের নাম ঘোষণা করা হয়েছিল। পরে আক্কেলপুরের রাজনৈতিক বিষয় যাচাই-বাছাই শেষে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোকছেদ আলীকে দলীয় মনোনয়নের চিঠি দেওয়া হয়।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা