kalerkantho

রবিবার । ২৮ আষাঢ় ১৪২৭। ১২ জুলাই ২০২০। ২০ জিলকদ ১৪৪১

অষ্টম শ্রেণি
অষ্টম অধ্যায় : বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়

বাংলাদেশের দুর্যোগ

৩০ মে, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



 বাংলাদেশের দুর্যোগ

বাংলাদেশে প্রায় প্রতিবছরই যেসব দুর্যোগ দেখা দেয় তার মধ্যে বন্যা অন্যতম। প্রতিবছর আমাদের দেশের শতকরা ২০ ভাগ এলাকা বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়। কিন্তু দুুর্যোগ অস্বাভাবিক আকার ধারণ করলে দেশের শতকরা ৬৮ ভাগ এলাকা ডুবে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।

 

গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

১। জলবায়ু পরিবর্তনের মূল কারণ—বৈশ্বিক উঞ্চায়ন

২। হঠাত্ শৈত্য প্রবাহ দেখা দেয়—শীতকালে

৩। বাংলাদেশ অবস্থিত—ক্রান্তীয় মৌসুমি জলবায়ু অঞ্চলে

৪। সমুদ্রপূষ্ঠ থেকে ট্রপোস্ফিয়ারের উচ্চতা—১২ কিলোমিটার

৫। তাপ বৃদ্ধিকারক বস্তু হলো—গ্রিনহাউস গ্যাস

৬। সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি শোষণ করে—ওজোন স্তর

৭।  প্রাকৃতিক দুর্যোগ ঘটে—আকস্মিকভাবে

৮। জলাবদ্ধতা সৃষ্টি ও মরুকরণ—মানবসৃষ্ট দুর্যোগ

৯। সুনামি সৃষ্টি হয়—সমুদ্রের তলদেশে ভূমিকম্পনের ফলে

১০। ভূমিধসের কারণ হলো—অধিক বৃষ্টিপাত

১১। বাংলাদেশের নদীসমূহের উত্স—ভারত ও নেপাল

১২। বাংলাদেশের অধিকাংশ ভূ-ভাগ—সাম্প্রতিককালের প্লাবন সমভূমি

১৩। জলোচ্ছ্বাসের পরোক্ষ ফলাফল হলো—মাটির উর্বরতা হ্রাস

১৪। বাংলাদেশে দুর্যোগের প্রথম শিকার হয়—দরিদ্র জনগোষ্ঠী

১৫। দুর্যোগে প্রথম করণীয়—ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্য করা

 

জ্ঞানমূলক প্রশ্নোত্তর

১। বাংলাদেশ দুর্যোগপ্রবণ হওয়ার মূল কারণ কী?

উত্তর : ভৌগোলিক অবস্থান ও বৈশ্বিক উঞ্চায়ন

২। অনাবৃষ্টি ও অত্যধিক খরা দেখা দেয় কোন মৌসুমে?

উত্তর : শুষ্ক মৌসুমে

৩। ওজোন স্তর কত কিলোমিটার পর্যন্ত বিস্তৃত?

উত্তর : ২০ কিলোমিটার পর্যন্ত

৪। সমুদ্রপৃষ্ঠের পানির উচ্চতা বাড়ার মূল কারণ কী?

উত্তর : বৈশ্বিক উঞ্চায়ন

৫। বায়ুর মূল উপাদান কী কী?

উত্তর : নাইট্রোজেন ও অক্সিজেন

৬। বায়ুমণ্ডলের গৌণ গ্যাসগুলোকে কী বলা হয়?

উত্তর : গ্রিনহাউস গ্যাস বলা হয়

৭। গ্রিনহাউস কী?

উত্তর : গ্রিনহাউস হলো পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলকে ঘিরে কতগুলো গ্যাসের সমন্বয়ে গঠিত একটি আচ্ছাদন।

৮। ওজোন স্তরের ক্ষয়ের কারণে ভূপৃষ্ঠে অতিবেগুনি রশ্মির প্রভাব শতকরা কত ভাগ বৃদ্ধি পেয়েছে?

উত্তর : শতকরা ৫ ভাগ

৯। বায়ুমণ্ডলের প্রথম স্তরের নাম কী?

উত্তর : ট্রপোসিফয়ার

১০। ওজোন স্তরের পূর্বের স্তুরের নাম কী?

উত্তর : স্ট্রাটোস্ফিয়ার

১১। মানবসৃষ্ট দুর্যোগের প্রধান কারণ কী?

উত্তর : মানুষের অসচেতনতা ও দূরদৃষ্টির অভাব

১২। বাংলাদেশের উত্তরে অবস্থিত পর্বতের নাম কী?

উত্তর : হিমালয়।

 

অনুধাবনমূলক প্রশ্নোত্তর

১। প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয় কেন?

উত্তর : প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় পানি ও বায়ুদূষণের কারণে রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়।

বন্যা, জলোচ্ছ্বাস, ঘূর্ণিঝড় প্রভৃতি দুর্যোগের ফলে আবর্জনা, জীবজন্তু ও মরদেহ, মলমূত্র প্রভৃতি আমাদের চারপাশের পানি ও বায়ুকে দূষিত করে। এ কারণে ডায়রিয়া, আমাশয়, জন্ডিস, চর্মরোগ, ম্যালেরিয়াসহ নানা রোগ ছড়িয়ে পড়ে। এভাবে দুর্যোগ-পরবর্তী সময়ে মানুষের স্বাস্থ্যক্ষতির সম্মুখীন হয়।

২। দুর্যোগ মোকাবেলায় সতর্ক সংকেতের প্রয়োজনীয়তা ব্যাখ্যা করো।

উত্তর : দুর্যোগ মোকাবেলায় বিভিন্ন সতর্ক সংকেত দুর্যোগকালীন করণীয় সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নিতে অত্যন্ত সহায়ক।

দুর্যোগের সতর্ক সংকেত থেকে দুর্যোগের তীব্রতা সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়। যেমন—৫নং বিপত্সংকেত অর্থ হলো দ্রুত আশ্রয়কেন্দ্রে যেতে হবে। এভাবে দুর্যোগের সতর্ক সংকেত সম্পর্কে জানা থাকলে সহজেই দুর্যোগ মোকাবেলা করা সম্ভব হয়।

৩। উন্নত দেশগুলো বৈশ্বিক উঞ্চতা বৃদ্ধির জন্য দায়ী কেন?

উত্তর : অধিক হারে গ্রিনহাউস গ্যাস নিঃসরণ করে বলে উন্নত দেশগুলো বৈশ্বিক উঞ্চায়নের জন্য দায়ী। বিশ্বের উন্নত দেশগুলো অধিক হারে জীবাশ্ম জ্বালানি ব্যবহার করে পরিবেশ নষ্ট করছে। তা ছাড়া এসব দেশ পারমাণবিক চুল্লি ব্যবহার করে, যা থেকে প্রচুর বর্জ্য সৃষ্টি হয়। এই বর্জ্যও গ্রিনহাউস গ্যাস বৃদ্ধি করছে। এসব দেশের শিল্প-কারখানার বর্জ্যও বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধির জন্য দায়ী।

 

উদ্দীপক : সাম্প্রতিক ঘূর্ণিঝড় আম্ফান হওয়ার আশঙ্কার খবর শুনে সাতক্ষীরা জেলার সাদিক গ্রামবাসীকে নিয়ে নদীর কাছে বেড়িবাঁধ দিয়েছিল। কিন্তু ঘূর্ণিঝড় আর জলোচ্ছ্বাস কবলে সাদিকসহ অনেকের বাড়িঘর, গাছপালা সব পানিতে তলিয়ে লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে। তারা হয়ে পড়েছে অসহায়। সাদিক পরিবার-পরিজন নিয়ে খুলনা শহরের এক বস্তিতে উঠেছেন। তবে তিনি বাপ-দাদার ভিটামাটি ও ফসলি জমির জন্য আফসোস করেন।

 

ক। বাংলাদেশ কত সালে আইলায় আক্রান্ত হয়?

খ। সুনামি বলতে কী বোঝায়?

গ। সাদিকের পরিবারের করুণ পরিণতির জন্য কোন দুর্যোগকে দায়ী করবে? ব্যাখ্যা করো।

ঘ। আর কাউকে যেন এমন পরিস্থিতির শিকার না হতে হয় তার জন্য তুমি কী কী পদক্ষেপ সুপারিশ করবে? বিশ্লেষণ করো।

 

উত্তর

ক। বাংলাদেশে ২০০৯ সালে আইলায় আক্রান্ত হয়।

খ। সুনামি একটি প্রাকৃতিক দুর্যোগের নাম। জাপানি ভাষার শব্দটির অর্থ হলো সমুদ্রতীরের ঢেউ। সমুদ্রের তলদেশে প্রচণ্ড ভূমিকম্প বা অন্য কোনো কারণে ব্যাপক ভূ-আলোড়ন সৃষ্টি হলে বিস্তৃত এলাকাজুড়ে সুনামির সৃষ্টি হয়। এই প্রবল ঢেউ উপকূলে তীব্র বেগে আছড়ে পড়ে। এতে জানমালের ব্যাপক ক্ষতি হয়।

 

গ ও ঘ এর উত্তর সংকেত

ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাসের ফলে নদীতে ভাঙন দেখা দেয়। এসব সম্পর্কে উদ্দীপকের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে বাস্তব প্রয়োগ দেখাতে হবে।

ঘ-এর উত্তরে নদীভাঙন রোধে আমাদের করণীয়গুলো কী কী হতে পারে সেসব বিশ্লেষণ করতে হবে। ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাসের সতর্কতার বিষয়গুলোও লিখতে হবে।

            গ্রন্থনা : এম এম মুজাহিদ উদ্দীন

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা