kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ১৯ চৈত্র ১৪২৬। ২ এপ্রিল ২০২০। ৭ শাবান ১৪৪১

একাদশ-দ্বাদশ

প্রথম পত্র । ব্যবসায় সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা

পপেল চন্দ্র সাহা, সহকারী অধ্যাপক, আবদুল কাদির মোল্লা সিটি কলেজ, নরসিংদী

২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ১০ মিনিটে



প্রথম পত্র । ব্যবসায় সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা

ছবি মোহাম্মদ আসাদ

নবম অধ্যায়

ব্যবসায় সহায়ক সেবা

সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

১। সুমনা এসএসসি পাস করে আর লেখাপড়া করতে পারেনি। এক বড় বোনের পরামর্শে আশা নামের একটি প্রতিষ্ঠানের প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করে। সেখানে সে সেলাই ও এমব্রয়ডারির ওপর প্রশিক্ষণ নেয়। অতঃপর কিছু টাকা জোগাড় করে কাজ শুরু করলেও অর্থের অভাবে কোনোভাবেই কাজ এগিয়ে নিতে পারছিল না। ব্যাংকের সঙ্গে যোগাযোগ করলে ব্যাংক কর্মকর্তা তার উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখে বিনা জামানতে একটি ফাউন্ডেশনের আওতায় এক ধরনের ঋণের ব্যবস্থা করে দেন। এ বরাদ্দকৃত ঋণ তার ভাগ্যের চাকা বদলাতে সহায়ক হয়েছে।

(ক) TMSS-এর পূর্ণরূপ লেখো।        

(খ) কর অবকাশ সমর্থনমূলক সেবার মধ্য পড়ে কেন? ব্যাখ্যা করো।

(গ) সুমনা আশা থেকে কী ধরনের সহায়ক সেবা পেয়েছে? ব্যাখ্যা করো।

(ঘ) সুমনাকে প্রদত্ত এ ধরনের ঋণ হাজারো উদ্যোক্তা গঠনে ভূমিকা রাখবে—এই বক্তব্যের যথার্থতা বিশ্লেষণ করো।

উত্তর : ক

Thengamara Mohila Sabuj Sangha.

উত্তর : খ

কোনো নির্দিষ্ট অঞ্চলে প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানগুলো বা বিশেষ ধরনের ব্যবসাকে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য সরকার কর প্রদানের দায় থেকে অব্যাহতি দিলে তাকে কর অবকাশ বলে।

একটি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান যখন মুনাফা করে তখন তাকে কর দিতে হয়। এই মুনাফা অর্জনের সুযোগ সর্বত্র ও সব ব্যবসায়ে এক ধরনের থাকে না। একজন উদ্যোক্তা ঝুঁকি নিয়ে কম সুবিধাজনক স্থানে ভবিষ্যতের আশায় তার ব্যবসায় গড়ে তোলে। সে ক্ষেত্রে সরকারের কর অবকাশ সুবিধা তাকে ভবিষ্যতের জন্য উৎসাহ জোগায়। তাই কর অবকাশ সমর্থনমূলক সেবা।

উত্তর : গ

সুমনা আশা থেকে উদ্দীপনামূলক সেবা লাভ করেছে।

একজন সম্ভাব্য উদ্যোক্তাকে ব্যবসায় গঠনে আগ্রহী করতে এবং প্রয়োজনীয় তথ্য দিতে যেসব সেবা সুবিধার প্রয়োজন হয় তাকে উদ্দীপনামূলক সেবা বলে। উদ্দীপনামূলক সেবা মূলত ব্যবসায় উদ্যোগ গ্রহণে সম্ভাব্য উদ্যোক্তাদের মধ্যে আগ্রহ সৃষ্টির সঙ্গে সম্পর্কিত। প্রশিক্ষণ প্রদান, তথ্য সরবরাহ ইত্যাদি এরূপ সেবার অন্তর্ভুক্ত।

সুমনা এসএসসি পাস করে লেখাপড়া করতে পারেনি। সে বসে না থেকে ভালো কিছু করার উদ্দেশ্য নিয়ে এক বড় বোনের পরামর্শে আশা নামের একটি প্রতিষ্ঠানের প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করে। সেখানে সে সেলাই ও এমব্রয়ডারির কাজ শেখে। এর ফলে তার নিজের পায়ে দাঁড়ানোর আগ্রহ সৃষ্টি হয়। যার ফলে সে ঋণ নিয়ে ব্যবসায় শুরু করে। তাই এরূপ প্রশিক্ষণ নিঃসন্দেহে উদ্দীপনামূলক সহায়ক সেবা।

উত্তর : ঘ

সুমনাকে এসএমই ফাউন্ডেশন প্রদত্ত এসএমই ঋণ হাজারো উদ্যোক্তা গঠনে ভূমিকা রাখবে—এ বক্তব্য যথার্থ।

দেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানগুলোকে সহায়তা প্রদানের মাধ্যমে এগিয়ে নিতে দাতা দেশ ও সংস্থাগুলোর সহায়তায় বাংলাদেশ সরকার যে বিশেষ ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেছে তাকে এসএমই ফাউন্ডেশন বলে। এরূপ প্রতিষ্ঠানগুলো যেন সহজে ও স্বল্পসুদে ঋণ পেয়ে উপকৃত হতে পারে সে জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক এসএমই ফাউন্ডেশনের অধীনে ঋণ দিচ্ছে।

সুমনা ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা। ব্যাংক কর্মকর্তা তাকে এমন এক ধরনের ঋণের কথা বলেছে, যা একটি ফাউন্ডেশন কর্তৃক নিয়ন্ত্রিত হয়। যেখানে নারী উদ্যোক্তাদের স্বল্প পরিমাণ (২৫ লাখ টাকা পর্যন্ত) ঋণের জন্য জামানত দেওয়ার প্রয়োজন পড়ে না। সুদের হারও কম। তাই নিঃসন্দেহে ঋণটি এসএমই ঋণ।

বাংলাদেশে নতুন উদ্যোক্তা শ্রেণি গড়ে ওঠার ক্ষেত্রে মূলধনের অভাব একটি বড় সমস্যা। ফলে নতুন ব্যবসায় গড়তে অনেক উদ্যোক্তা শুরুতেই হারিয়ে যায়। ব্যাংকগুলো ঋণ দিতে চায় না। এ ছাড়া সেখানে সুদের হারও বেশি। এ অবস্থায় বাংলাদেশ ব্যাংক এসএমই ফাউন্ডেশন গড়ে বিনা জামানতে স্বল্প সুদে যে ঋণ দিচ্ছে তা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ও যথার্থ।

২। কমল সাহেব একজন চিংড়ি রপ্তানিকারক। তিনি হিমায়িত চিংড়ি প্যাকেট করার জন্য উন্নত যন্ত্রপাতি ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। কিন্তু এ ক্ষেত্রে সরকারি সহায়তা পর্যাপ্ত না হওয়ায় যন্ত্রপাতি আমদানি বিলম্বিত হচ্ছে। সম্প্রতি সরকার চিংড়ি খাতে কর অবকাশ প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছে। বিষয়গুলো নিয়ে কমল সাহেব খুব চিন্তিত। অথচ কমল সাহেব ২০১২ সালে একটি সরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে সেরা রপ্তানিকারকের পুরস্কার পেয়েছিলেন। রপ্তানি উন্নয়নে ওই প্রতিষ্ঠানের প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতেও তিনি অংশগ্রহণ করেছেন।

(ক) বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা কী?

(খ) কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে SME ফাউন্ডেশন অন্যতম প্রতিষ্ঠান। ব্যাখ্যা করো।

(গ) কমল সাহেব কোন প্রতিষ্ঠান থেকে সেরা রপ্তানিকারকের স্বীকৃতি পান? ব্যাখ্যা করো।                                    

(ঘ) সমর্থনমূলক সহায়তার অভাবই কমল সাহেবের দুশ্চিন্তার মূল কারণ—তুমি কি একমত? যুক্তি দাও।

উত্তর : ক

দীর্ঘ আলোচনা, চেষ্টা-প্রচেষ্টা ও উন্নয়ন ধারার মধ্য দিয়ে বিশ্ব বাণিজ্যকে সবার জন্য কল্যাণকর করতে যে প্রতিষ্ঠান সবচেয়ে বেশি প্রভাবশালী ভূমিকা রাখে তাকে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা বলে।

উত্তর : খ

দেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানগুলোকে ঋণ সহায়তা প্রদানের মাধ্যমে এগিয়ে নিতে দাতা দেশ ও সংস্থাগুলোর সহায়তায় বাংলাদেশ সরকার যে বিশেষ ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেছে তাকে  SME ফাউন্ডেশন বলে।

যেকোনো উন্নয়নশীল দেশে ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা সর্বাধিক। ফলে ব্যাপক সংখ্যক মানুষ এরূপ ব্যবসায়ের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত থেকে জীবিকা নির্বাহ করে। বাংলাদেশে  ঝগঊ

 

ফাউন্ডেশন  প্রতিষ্ঠার পর এর প্রদত্ত সহযোগিতার ওপর নির্ভর করে এ ধরনের প্রতিষ্ঠানে উন্নতি লক্ষণীয়। ফলে এ খাতে ব্যাপক কর্মসংস্থান হচ্ছে। তাই কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে ঝগঊ

 

ফাউন্ডেশন অনন্য।

উত্তর : গ

কমল সাহেব রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো থেকে সেরা রপ্তানিকারকের স্বীকৃতি পান।

রপ্তানি আয় বৃদ্ধি করে দেশের অর্থনীতির বুনিয়াদকে শক্তিশালী করার জন্য বাংলাদেশে সরকারি মালিকানায় যে আধা স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান কাজ করছে তাই রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো নামে পরিচিত। ব্যুরো বাংলাদেশের উৎপাদিত পণ্য-দ্রব্যাদির আন্তর্জাতিক বাজার সৃষ্টি ও চাহিদা বৃদ্ধিকল্পে শুরু থেকেই নানা কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।

উদ্দীপকে বলা হয়েছে, কমল সাহেব ২০১২ সালে একটি সরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে সেরা রপ্তানিকারকের পুরস্কার পেয়েছিলেন। রপ্তানি উন্নয়নে ওই প্রতিষ্ঠানে প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে তিনি অংশগ্রহণ করেছেন। যেহেতু কমল সাহেব রপ্তানিকারক। তাই তিনি রপ্তানিকারক হিসেবেই সরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে সেরা রপ্তানিকারকের পুরস্কার পেয়েছিলেন। তাই নিঃসন্দেহে তা রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো।

ঘ-বিভাগ

সমর্থনমূলক সেবা সহায়তার অভাবই দুশ্চিন্তার কারণ—এ বিষয়ে আমি সম্পূর্ণ একমত।

একজন উদ্যোক্তা ব্যবসায় গঠনে আগ্রহী হওয়ার পর বাস্তবে তা গঠনে যে ধরনের সেবা সহায়তার প্রয়োজন হয় তাকে সমর্থনমূলক সেবা বলে। ব্যবসায় গঠন করতে চাইলেই পুঁজির প্রয়োজন পড়ে, লাইসেন্স নিতে হয়। বিদ্যুৎ, গ্যাস, পানি ইত্যাদির ব্যবস্থা করতে হয়, যা সমর্থনমূলক সেবাদানকারী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান সরবরাহ করে। শুধু শুরুতেই নয়, ব্যবসায়ের বিভিন্ন পর্যায়েও তার প্রয়োজন হয়ে থাকে।

উদ্দীপকে বলা হয়েছে, কমল সাহেব হিমায়িত চিংড়ি প্যাকেট করার জন্য উন্নত যন্ত্রপাতি ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। কিন্তু এ ক্ষেত্রে সরকারি সহায়তা না পাওয়ায় যন্ত্রপাতি আমদানিতে বিলম্ব হচ্ছে। অর্থাৎ তিনি সরকারের সহায়তা প্রত্যাশা করেছিলেন। তা পাচ্ছেন না। যা সমর্থনমূলক সেবা হিসেবে গণ্য।

ব্যবসায় গঠন ও পরিচালনায় ব্যবসায়ীদের নানা ধরনের সেবা সহায়তার প্রয়োজন পড়ে। যথাসময়ে যথাযথ সহযোগিতা না পেলে ব্যবসায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়। দেশের ব্যবসায়-বাণিজ্য এগিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে সরকার সহায়তা দেয়। যদি সরকার কোনো কারণে সহায়তা প্রত্যাহার করে বা সহায়তায় বিলম্ব করে, তবে ব্যবসায়ীদের দুশ্চিন্তায় পড়াই স্বাভাবিক। তাই সমর্থনমূলক সেবা না পাওয়ায় কমল সাহেবের দুশ্চিন্তার মুখ্য কারণ।

 

দশম অধ্যায়

ব্যবসায় উদ্যোগ

 

জ্ঞানমূলক প্রশ্ন ও উত্তর

১। ব্যবসায় উদ্যোগের জনক কে?

উত্তর : রিচার্ড ক্যানটিলন।

২। শিল্পোদ্যোগ বা ব্যবসায় উদ্যোগ পদবাচ্যের প্রতিষ্ঠাতা কে?

উত্তর : রিচার্ড ক্যানটিলন।

৩। রণদা প্রসাদ সাহার পৈতৃক নিবাস কোথায় ছিল?

উত্তর : কুমুদিনী হাসপাতাল।

৪। TMSS বাংলাদেশের কোন জেলা থেকে তার কার্যযাত্রা শুরু করে?

উত্তর : বগুড়া।

৫। SME প্রকল্পের আওতায় নারী উদ্যোক্তাদের বিনা জামানতে কত টাকা পর্যন্ত ঋণ মঞ্জুর করা হয়?

উত্তর : পঁচিশ লাখ টাকা।

৬। উদ্যোক্তা কে?

উত্তর : যে ব্যক্তি বা ব্যক্তিরা ইতিবাচক নতুন চিন্তা মাথায় রেখে তা বাস্তবায়নে প্রয়াসী হন তাঁকে বা তাঁদেরকে উদ্যোক্তা বলে।

৭। ব্যবসায় উদ্যোগ কী?

উত্তর : নতুন ব্যবসায় গঠন বা নতুন পণ্য, সেবা, পদ্ধতি বা বাজার সামনে রেখে একজন ব্যবসায়ীর নতুন উদ্যোগকে ব্যবসায় উদ্যোগ বলে।

৮। সৃজনশীল মানসিকতা কী?

উত্তর : নতুন কিছু সৃষ্টি করার বা দেওয়ার মতো সৃষ্টিশীল ও গঠনমূলক মনকেই উদ্যোক্তার সৃজনশীল মানসিকতা বলে।

৯। দূরদৃষ্টি কী?

উত্তর : ভবিষ্যৎ সমস্যা ও সম্ভাবনা সঠিকভাবে চিহ্নিত করে করণীয় নির্ধারণ করার সামর্থ্যকেই উদ্যোক্তার দূরদৃষ্টি বলে।

১০। কৃতিত্বার্জন চাহিদা কী?

উত্তর : একজন ব্যক্তিকে সাফল্য অর্জনে তাড়িত করে এমন অভ্যন্তরীণ স্পৃহা বা আকাঙ্ক্ষাকেই কৃতিত্বার্জন চাহিদা বলে।

১১। আত্মকর্মসংস্থান কী?

উত্তর : স্ব-উদ্যোগে নিজের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করাকেই আত্মকর্মসংস্থান বলে।

১২। নারী উদ্যোক্তা কে?

উত্তর : কোনো নারী একক মালিকানায় কোনো ব্যবসায় গঠন করলে অথবা অংশীদারি বা কম্পানি গঠনের ক্ষেত্রে উক্ত ব্যবসায়ের ৫১ শতাংশ শেয়ারের মালিক হলে তাকে নারী উদ্যোক্তা বলে।

অনুধাবনমূলক প্রশ্ন ও উত্তর

১। ব্যবসায় উদ্যোক্তাকে শিল্পের নেতা বলা হয় কেন?

উত্তর : যে ব্যক্তি বা ব্যক্তিরা নতুন ব্যবসায় গঠন বা নতুন পণ্য সেবা, পদ্ধতি বা বাজার সামনে রেখে ব্যবসার চিন্তাকে এগিয়ে নেন এবং তা বাস্তবায়ন করেন তাঁকে ব্যবসায় উদ্যোক্তা বা শিল্পোদ্যোক্তা বলে।

সদা চলমান সৃষ্টিজগতে প্রচলিত চিন্তা ও ধারণা আঁকড়ে ধরে বেশিদূর এগোনো সম্ভব নয়। তাই প্রয়োজন নব নব উদ্ভাবনের মাধ্যমে চিন্তা ও কর্মকে এগিয়ে নেওয়ার। যাঁরা এ ক্ষেত্রে এগিয়ে থাকেন, তাঁরাই নিজ নিজ ক্ষেত্রে নেতৃত্ব দেন। ব্যবসায় বা শিল্পক্ষেত্রে একজন উদ্যোক্তা অধিকতর ঝুঁকির বোঝা মাথায় নিয়ে নতুনত্বের প্রবর্তন ঘটান। এ জন্যই ব্যবসায় উদ্যোক্তাকে শিল্পের নেতা বলা হয়।

২। সৃজনশীল মানসিকতা একজন সফল উদ্যোক্তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ কেন?

উত্তর : নতুন কিছু সৃষ্টি করার বা দেওয়ার মতো সৃষ্টিশীল ও গঠনমূলক মনকেই উদ্যোক্তার সৃজনশীল মানসিকতা বা গুণ বলে।

একজন ভালো উদ্যোক্তা নতুন কিছু সৃষ্টি করার মতো সৃষ্টিশীল ও গঠনমূলক মনের অধিকারী হন। এ ছাড়া নতুন সৃষ্টি চিন্তাকে বাস্তবে রূপায়িত করার জন্য নতুন উপায়-পদ্ধতি উদ্ভাবনের সামর্থ্যও তাঁর থাকে। তাই এরূপ গুণ একজন সফল উদ্যোক্তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

৩। একজন উদ্যোক্তার ঝুঁকি গ্রহণের মানসিকতা থাকতে হয় কেন?

উত্তর : আর্থিক ক্ষতির সম্ভাবনাকে ঝুঁকি বলে। এই ক্ষতি মেনে নেওয়ার মতো মনকেই উদ্যোক্তার ঝুঁকি গ্রহণের মানসিকতা বলে।

ব্যবসায়ে নানা কারণে ঝুঁকি থাকে এবং একজন ব্যবসায়ীকে ঝুঁকির বোঝা মাথায় নিয়ে সব সময় পথ চলতে হয়; কিন্তু একজন উদ্যোক্তা শুধু ব্যবসায়ী নন, তিনি তাঁর সৃজনশক্তি দিয়ে নতুনত্ব প্রবর্তন করেন। তাই এর বাস্তবায়নে নতুন নতুন বাধা ও সমস্যা তাঁকে মোকাবেলা করতে হয়। অধিক ঝুঁকি গ্রহণের জন্য তাঁকে সব সময়ই মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকার প্রয়োজন পড়ে।

৪। একজন উদ্যোক্তার জন্য দূরদৃষ্টির গুণ অপরিহার্য কেন?

উত্তর : ভবিষ্যৎ সমস্যা ও সম্ভাবনা সঠিকভাবে চিহ্নিত করে করণীয় নির্ধারণ করার সামর্থ্যকেই উদ্যোক্তার দূরদৃষ্টি বলে।

একজন উদ্যোক্তা ইতিবাচক নতুন চিন্তা মাথায় রেখে তা বাস্তবায়নে প্রয়াসী হন। এ ক্ষেত্রে তিনি নতুন কিছু চিন্তাই শুধু করেন না, তার বাস্তবায়ন যোগ্যতা এবং সফলতা ও বিফলতা নিয়েও ভাবেন। বাধাগুলো কী আসতে পারে, কিভাবে তা দূর করা যেতে পারে—এগুলোও আগে থেকে ভেবে পথনির্দেশনা তৈরি করেন; অন্যথায় সাফল্য আসে না। তাই একজন উদ্যোক্তার জন্য দূরদৃষ্টির গুণ অপরিহার্য।

মন্তব্য