kalerkantho

রবিবার । ২২ চৈত্র ১৪২৬। ৫ এপ্রিল ২০২০। ১০ শাবান ১৪৪১

ওয়েবে পড়ালেখা । অনলাইনে গণিত

২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ওয়েবে পড়ালেখা । অনলাইনে গণিত

পারপাল ম্যাথ

ঠিকানা Purplemath.com। বর্ণের ক্রমানুসারে সাজানো আছে গণিতের বিভিন্ন চ্যাপ্টার। শুরু থেকে অ্যাডভান্স লেভেল পর্যন্ত সব বিষয়ই পাওয়া যাবে। ধাপে ধাপে শেখার তালিকাও আছে। শুরুতে সংখ্যার ধারণা থেকে ধীরে ধীরে শেখানো হয়েছে চলক, সমীকরণ, গ্রাফ, লিনিয়ার প্রগ্রামিং, কোয়াড্রেটিক, মেট্রিক্স, দ্বিঘাত সমীকরণ, ত্রিকোণমিতি ইত্যাদি। ছবি, গ্রাফ ও সূত্র আছে প্রতিটি অধ্যায়ে। আছে একটি কুইজ বিভাগও। মূল মেন্যুতে পাবে স্টাডি স্কিলস কুইজ। আছে বাড়ির কাজ তৈরির নির্দেশিকা।

এই সাইটের বাঁ দিকে পাওয়া যাবে বিভিন্ন পরীক্ষাভিত্তিক গণিত কোর্সের লিংক। সবই বিনা মূল্যে শেখা যাবে। এর মধ্যে কিছু সাইটে অবশ্য নিবন্ধন করে নিতে হবে।

 

ইউসুমুরা

ওহাইয়ো ইউনিভার্সিটিতে গণিত পড়ান ইউ সুমুরা। একাই গড়ে তুলেছেন yutsumura.com সাইটটি। শুরুর টপিক তালিকায় আছে লিনিয়ার অ্যালজেবরা, গ্রুপ থিওরি, রিং থিওরি, ফিল্ড থিওরি ও মডিউল থিওরির লিংক। একটু ওপরের পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের জন্য সাজানো হয়েছে এ সাইটের পড়াশোনা। লিংকে ক্লিক করলে পাওয়া যাবে অনেক সমস্যা ও সেগুলোর সমাধান। গণিতের সমীকরণগুলো বেশ পরিচ্ছন্ন করে উপস্থাপন করা হয়েছে এখানে। শুধু গাণিতিক সমস্যা ও সমাধান দিয়েই সাইটটি সাজিয়েছেন ইউ সুমুরা।

 

গণিতের ভল্ট

উচ্চতর গণিতের নানা বিষয় তো আছেই, সেই সঙ্গে এ সাইটে পাবে একটা বড়সড় শব্দকোষ। মূল মেন্যুর ভল্ট বিভাগের জেনারেল ম্যাথ বাটনে ক্লিক করলে পাবে সংখ্যার ধারণাসহ নানা তত্ত্বের আলোচনা। কম্পিউটারের গ্রাফিকস ডিজাইনের নেপথ্যে যে গাণিতিক সূত্র কাজ করে সেগুলোও পাবে এ সাইটে। বিভিন্ন তত্ত্বের আলোচনার পাশাপাশি সেগুলোর ব্যবহারের কথাও আছে। লগারিদম নিয়ে আগাগোড়া সব পাবে সাইটটির এই লিংকে https://mathvault.ca/logarithm-theory/।

 

নাম্বারফাইল

এটি ইউটিউব চ্যানেল। সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা ৩২ লাখেরও বেশি। এনিমেশন ও লেকচারের মাধ্যমে উপস্থাপন করা হয়েছে গণিতের জটিল সব বিষয়। তবে প্রতিটি আলোচনায়ই পাবে মজার উপস্থাপনা। চ্যানেলটির লিংক https://www.youtube.com/user/numberphile।

—আশিকুর রহমান

চাঁদা নেই?

ক্লাসরুমে অঙ্ক করতে গিয়ে দেখলে জ্যামিতি বক্সে চাঁদা নেই। এদিকে কারো কাছ থেকে চাঁদা ধার করার সুযোগও নেই। কী করবে? আছে উপায়। তোমার যেকোনো একটা হাত হলেই চলবে। এবার ছবির মতো প্রসারিত করো হাতটা। যেটার কোণ নির্ণয় করতে চাও তার ওপর চাঁদার মতো করে হাতটা রাখো এবং কোণ নির্ণয় করো।

এ ক্ষেত্রে তোমার কনিষ্ঠ আঙুল হবে ০ ডিগ্রি, বৃদ্ধাঙুল হবে ৯০ ডিগ্রি। এরপর অনামিকা, মধ্যমা, তর্জনী অর্থাৎ বাকি আঙুলগুলো হবে যথাক্রমে ৩০ ডিগ্রি, ৪৫ ডিগ্রি ও ৬০ ডিগ্রি। এভাবে কোণ মাপা একেবারে নিখুঁত না হলেও কাজ চালিয়ে নেওয়া যাবে নিশ্চিত।            

—কাজী ফারহান পূর্ব

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা