kalerkantho

সোমবার। ২৭ জানুয়ারি ২০২০। ১৩ মাঘ ১৪২৬। ৩০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

চতুর্দশ অধ্যায় : জীব প্রযুক্তি

৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সৃজনশীল প্রশ্ন

অহনার পিতা একজন জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ার। একদিন অহনা তার পিতার কাছে রিকম্বিনেন্ট DNA সম্পর্কে জানতে চায়। তিনি অহনাকে রিকম্বিনেন্ট DNA প্রযুক্তি এবং এর অবদান সম্পর্কে বিস্তারিত বর্ণনা করেন।

ক.        GMO কী?

খ.        প্রচলিত প্রজনন ও জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের মধ্যে ২টি পার্থক্য লেখো।              ২

গ.         উদ্দীপকে উল্লিখিত প্রযুক্তির মাধ্যমে কাঙ্ক্ষিত বৈশিষ্ট্য স্থানান্তর প্রক্রিয়ার ধাপগুলো বর্ণনা করো। ৩

ঘ.         কৃষিতে উদ্দীপকের প্রযুক্তির অবদান মূল্যায়ন করো।      ৪

উত্তর : ক. GMO-এর পূর্ণনাম হলো Genetically Modified Organism.

খ.        নিচে প্রচলিত প্রজনন ও জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের মধ্যে দুটি পার্থক্য দেওয়া হলো—

গ.         উদ্দীপকের প্রযুক্তিটি হলো রিকম্বিনেন্ট DNA প্রযুক্তি। এই প্রযুক্তিটির মাধ্যমে কাঙ্ক্ষিত বৈশিষ্ট্য স্থানান্তর প্রযুক্তির ধাপগুলো নিচে বর্ণনা করা হলো—

১।        কাঙ্ক্ষিত DNA নির্বাচন।

২।         একটি বাহক নির্বাচন, যার মাধ্যমে কাঙ্ক্ষিত DNA খণ্ডটি স্থানান্তর করা সম্ভব।

৩।        নির্দিষ্ট স্থানে DNA অণুকে ছেদন করার জন্য প্রয়োজনীয় রেস্ট্রিকশন এনজাইম নির্বাচন।

৪।        ছেদনকৃত DNA খণ্ডগুলো সংযুক্ত করার জন্য DNA লাইগেজ এনজাইম নির্বাচন।

৫।        কাঙ্ক্ষিত DNA-সহ বাহক DNA-এর অনুলিপনের জন্য একটি পোষক নির্বাচন।

৬।        কাঙ্ক্ষিত DNA খণ্ড সমন্বয়ে প্রস্তুতকৃত রিকম্বিনেন্ট DNA-এর বহিঃপ্রকাশ মূল্যায়ন।

 

ঘ. কৃষিতে রিকম্বিনেন্ট DNA প্রযুক্তির অবদান নিচে দেওয়া হলো—

১।        এই প্রযুক্তির সাহায্যে ক্ষতিকর পোকা-মাকড় প্রতিরোধী ফসলের জাত উদ্ভাবন করা হয়েছে। যেমন—বিটি ভুট্টা, বিটি তুলা, বিটি ধান (চীনে উদ্ভাবিত) ইত্যাদি। এসব ফসল লেপিডোপটেরা ও কলিওপটেরা বর্গের অন্তর্ভুক্ত ক্ষতিকর কীটপতঙ্গের বিরুদ্ধে প্রতিরোধক্ষম। উল্লেখ্য, Bacillus thuringiansis (Bt) নামক ব্যাকটেরিয়ার জিন শস্যে প্রবেশ করানোর কারণে কৌলিগতভাবে পরিবর্তিত শস্যগুলোকে Bt corn, Bt Cotton ইত্যাদি নামে অভিহিত করা হচ্ছে।

২।         এই প্রযুক্তির সাহায্যে ভাইরাস প্রতিরোধী ফসলের জাত উদ্ভাবন করা হয়েছে। যেমন—ভাইরাল কোট প্রোটিনে জিন স্থানান্তরের মাধ্যমে টমেটো মোজাইক ভাইরাস (TMV), টোব্যাকো মোজাইক ভাইরাস (TMV) এবং টোব্যাকো মাইল্ড গ্রিন মোজাইক ভাইরাস (TMGMV) প্রতিরোধী ফসলের জাত উদ্ভাবন করা হয়েছে। রিং-স্পট ভাইরাস (PRSV) প্রতিরোধে সক্ষম পেঁপের জাত উদ্ভাবন করা হয়েছে। লেট ব্লাইট ছত্রাক প্রতিরোধী জিন স্থানান্তরের মাধ্যমে লেট ব্লাইট প্রতিরোধী গোল আলুর জাত উদ্ভাবনের লক্ষ্যে গবেষণা চলছে।

৩।        জিনগত রূপান্তরের মাধ্যমে ফসলের পুষ্টিমান উন্নয়ন করা হয়েছে। যেমন—ধানে ভিটামিন ‘এ’ বিটা ক্যারোটিন জিন স্থানান্তর করা হয়েছে। ধানে লৌহ বা আয়রন যোগ করারও প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা