kalerkantho

শনিবার । ২৫ জানুয়ারি ২০২০। ১১ মাঘ ১৪২৬। ২৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

স্থাপত্যকলায় ভর্তি হতে চাও যারা

মো. জসিম উদ্দিন স্থাপত্য বিভাগ, তৃতীয় বর্ষ ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

১৬ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ডিসেম্বর ৩ তারিখ ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (ডুয়েট) ভর্তি পরীক্ষা। হাতে ১০-১২ দিন। স্থাপত্য বিভাগে যারা পরীক্ষা দেবে তাদের জন্য কিছু পরামর্শ।

ডুয়েটে ভর্তি পরীক্ষায় দুটি বিভাগ থাকে। একটি ডিপার্টমেন্ট, আরেকটি নন-ডিপার্টমেন্ট। ডিপার্টমেন্টে তোমার ডিপ্লোমার পড়া থেকে প্রশ্ন হবে আর নন-ডিপার্টমেন্টে একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণির বই থেকে। প্রতিদিন ডিপার্টমেন্ট ও নন-ডিপার্টমেন্ট পড়াশোনা করতে হবে।

নন-ডিপার্টমেন্টের মধ্যে পদার্থবিজ্ঞানে প্রস্তুতির জন্য আবু ইসহাক-নূর নবী তালুকদার স্যার ও শাহাজান-তপন স্যারের দুটি বইয়ের গাণিতিক সমস্যাগুলোর রিভিশন দিতে থাকো। গুরুত্বপূর্ণ ছোট ছোট সমাধান ও তথ্যগুলো নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নের জন্য নোট করে নাও। প্রতিদিন একবার করে সূত্রগুলোয় চোখ বুলিয়ে নাও। গুরুত্বপূর্ণ টপিকস ও অঙ্কগুলো লাইটার কলম দিয়ে দাগিয়ে রাখো।

রসায়নের প্রস্তুতির জন্য প্রথম পত্র ভালোভাবে বুঝতে হবে। এ ছাড়া জৈব যৌগ, ধাতু-অধাতু, বিক্রিয়া থেকেও প্রশ্ন আসে। গাণিতিক সমাধানগুলোও করে নাও। বিক্রিয়া ও সংকেত আলাদা নোট করো, যাতে প্রতিদিন চোখ বোলানো যায়। গুরুত্বপূর্ণ বিক্রিয়ার তালিকা করে রাখতে পারো। রসায়নের জন্য হাজারী নাগ ও থ্রি ড.-এর বইগুলো ভালো। রসায়নে যত চর্চা করবে তত ভালো করা সম্ভব।

গণিতের প্রস্তুতি ভালোভাবে নিতে হবে, কারণ গণিত পরিবর্তন করা হয় না। এ জন্য গণিত হলো তোমার নম্বর তোলার হাতিয়ার। মূল বইয়ের পাশাপাশি অন্য কোনো বই পড়ার দরকার নেই। আর ইংরেজিতে ভালো করা মানে অনেকাংশে এগিয়ে থাকা। বিগত প্রশ্নগুলোর সমাধান করতে হবে। ডিপার্টমেন্ট প্রস্তুতির জন্য গাণিতিক ও থিওরি পার্ট ভালোভাবে সম্পন্ন করতে হবে। এর জন্য ডিপার্টমেন্টের বইগুলা গুরুত্বপূর্ণ। এই সময়ে আর কোচিং পরীক্ষা না দেওয়াই ভালো। বাড়তি কিছুও পড়ার দরকার নেই।

আর্কিটেকচার ডিপার্টমেন্টে যেহেতু ড্রয়িং এবং থিওরি পার্ট থাকে তাই ড্রয়িং পার্টের জন্য বেশি সময় ও চর্চার প্রয়োজন হয়। প্রতিদিন  ড্রয়িংয়ের জন্য আলাদা সময় রাখো। তবে পোস্টার, লোগো ও কম্পোজিশন ডিজাইনের জন্য স্কেচের সঙ্গে সঙ্গে ধারণাও গুরুত্বপূর্ণ। দুশ্চিন্তা বা হতাশাই সফলতার প্রথম বাধা। প্রশ্ন যেমনই হোক, ঘাবড়ানো যাবে না। কমন প্রশ্নগুলো আগে দিতে হবে। এতে মনোবল বাড়বে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা