kalerkantho

শুক্রবার । ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৮ রবিউস সানি ১৪৪১     

এসএসসি ২০২০

পদার্থবিজ্ঞানের প্রস্তুতি

মো. মিকাইল ইসলাম নিয়ন সহকারী শিক্ষক (ভৌত বিজ্ঞান) ঝিনুক মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, চুয়াডাঙ্গা

১৬ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পরীক্ষার সময় অবশ্যই মনে রাখতে হবে—এমন সব তথ্য আলাদা করে লিখে রাখবে। পরীক্ষার আগে সেগুলো বারবার দেখে নিজেকে আত্মবিশ্বাসী করে তুলতে হবে। বহু নির্বাচনী প্রশ্নোত্তরগুলো তোমরা বারবার অনুশীলন করবে এবং সৃজনশীল প্রশ্নোত্তরগুলো খাতায় লিখে নিজেকে নিজে যাচাই করবে। পরীক্ষায় একটি অধ্যায়ের পাশাপাশি একাধিক অধ্যায়ের সমন্বয়েও প্রশ্ন হতে পারে। তাই একাধিক অধ্যায়ের সৃজনশীল প্রশ্নোত্তর অনুশীলন করতে হবে। পরীক্ষায় জ্ঞান ও অনুধাবনমূলক প্রশ্ন সরাসরি কমন পাওয়া যায়। তাই জ্ঞান ও অনুধাবনমূলক প্রশ্নোত্তর অনুশীলন মূল বই থেকে করতে হবে, যা তোমাকে পরীক্ষায় ১০০% কমন পেতে সহায়তা করবে। উদ্দীপক হচ্ছে পাঠ্য বিষয়ের আলোকে তৈরি একটি বাস্তব অবস্থা। এটি কখনো কখনো সারণি, টেবিল, ডায়াগ্রাম, চিত্র, ছবি মন্তব্য ইত্যাদি হতে পারে। প্রয়োগ ও উচ্চতর দক্ষতা স্তরের প্রশ্নের উত্তর করার ক্ষেত্রে যাতে শিক্ষার্থীকে অবশ্যই উদ্দীপকের সাহায্য নিতে হয় প্রশ্ন দুটি সেভাবেই করা হবে। পদার্থবিজ্ঞান সৃজনশীল প্রশ্নে প্রায় ৭০-৮০ শতাংশ নম্বর থাকে গাণিতিক সমস্যার ওপর ভিত্তি করে। এ কারণে প্রতিটি অধ্যায়ের সূত্রাবলি সঠিকভাবে জানা এবং তা প্রয়োগ করার দক্ষতা অর্জন করতে হবে। আলোর প্রতিফলন ও আলোর প্রতিসরণ অধ্যায় দুটির রশ্মিচিত্র অঙ্কন করার সময় অবশ্যই দিকনির্দেশের জন্য তীর চিহ্ন ব্যবহার করতে হবে।

বহু নির্বাচনী প্রশ্ন-২৫, ২৫টি প্রশ্ন থাকবে। প্রতিটি অংশের মান ১।

সৃজনশীল প্রশ্ন-৫০। ৮টি প্রশ্ন থাকবে। ৫টির উত্তর দিতে হবে। প্রতিটি প্রশ্নের মান ১০। প্রতিটি সৃজনশীল প্রশ্নে ৪টি অংশ থাকবে। জ্ঞানমূলক-১, অনুধাবনমূলক-২, প্রয়োগমূলক-৩, উচ্চতর দক্ষতামূলক-৪।

বহু নির্বাচনী অংশ : এ বিষয়ে অধ্যায় সংখ্যা ১৪টি। এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্রে ২৫টি বহু নির্বাচনী প্রশ্ন থাকবে। সর্বশেষ নির্দেশনা অনুসারে, এসএসসি পরীক্ষায় প্রতি অধ্যায় থেকে ১-৩টি বহু নির্বাচনী প্রশ্ন থাকবে।

 

অধ্যায়ভিত্তিক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো

প্রথম অধ্যায় : এসআই-এর মৌলিক একক, মাত্রা, স্লাইড ক্যালিপার্স, স্ক্রু গেজ।

দ্বিতীয় অধ্যায় : পর্যায়বৃত্ত গতি, স্কেলার রাশি ও ভেক্টর রাশি, বেগ-সময় লেখচিত্র।

তৃতীয় অধ্যায় : বল ও ত্বরণের সম্পর্ক, ক্রিয়া ও প্রতিক্রিয়া বল, ভরবেগের সংরক্ষণ সূত্র, ঘর্ষণ ও ঘর্ষণ বল।

চতুর্থ অধ্যায় : গতিশক্তি, বিভব শক্তি, শক্তির সংরক্ষণশীলতা নীতি, ক্ষমতা, কর্মদক্ষতা।

পঞ্চম অধ্যায় : প্লবতা, প্যাসকেলের সূত্র, আর্কিমিডিসের সূত্র, বস্তুর ভাসন ও নিমজ্জন।

ষষ্ঠ অধ্যায় : সেলসিয়াস, ফারেনহাইট ও কেলভিন স্কেলের মধ্যে সম্পর্ক। পদার্থের তাপীয় প্রসারণ, তাপধারণ ক্ষমতা ও আপেক্ষিক তাপ, তাপ পরিমাপের মূলনীতি, সুপ্ততাপ।

সপ্তম অধ্যায় : তরঙ্গসংশ্লিষ্ট রাশি, তরঙ্গবেগ ও তরঙ্গদৈর্ঘ্যের মধ্যে সম্পর্ক, প্রতিধ্বনি, প্রতিধ্বনির ব্যবহার, শ্রাব্যতার সীমা।

অষ্টম অধ্যায় : সমতল দর্পণে সৃষ্ট প্রতিবিম্ব, গোলীয় দর্পণের প্রতিবিম্ব, দর্পণের ব্যবহার, বিবর্ধন।

নবম অধ্যায় : আলোর প্রতিসরণের সূত্র, প্রতিসরণাঙ্ক, ক্রান্তি কোণ ও পূর্ণ অভ্যন্তরীণ প্রতিফলন, উত্তল লেন্সে প্রতিবিম্ব গঠন, অবতল লেন্সে প্রতিবিম্ব গঠন, লেন্সের ক্ষমতা, চোখের ত্রুটি ও প্রতিকার।

দশম অধ্যায় : তড়িৎ আবেশ, কুলম্বের সূত্র, তড়িৎ ক্ষেত্র, তড়িৎ বিভব।

একাদশ অধ্যায় : তড়িচ্চালক শক্তি ও বিভব পার্থক্য, ওহমের সূত্র, রোধের নির্ভরশীলতা, আপেক্ষিক রোধ, তুল্যরোধ ও বর্তনীতে তুল্যরোধ নির্ণয়, তড়িৎ ক্ষমতা।

দ্বাদশ অধ্যায় : তাড়িত চুম্বক ,তাড়িত চৌম্বক আবেশ, ট্রান্সফর্মার।

ত্রয়োদশ অধ্যায় : তেজস্ক্রিয়তা, আলফা কণা, বিটা কণা ও গামা রশ্মির বৈশিষ্ট্য, তেজস্ক্রিয়তার ব্যবহার ও বিপদ।

চতুর্দশ অধ্যায় : এক্সরে ,আলট্রাসনোগ্রাফি, এমআরআই, আইসোটোপ এবং এর ব্যবহার।

পদার্থবিজ্ঞান বিষয়ে এসএসসি পরীক্ষায় সৃজনশীল অংশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় : ২, ৪, ৫, ৬, ৭, ৯, ১০, ১১।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা