kalerkantho

শুক্রবার । ১১ আষাঢ় ১৪২৮। ২৫ জুন ২০২১। ১৩ জিলকদ ১৪৪২

৪৭ কেজি ওজনের মিষ্টি কুমড়া

জাহেদুল আলম, রাউজান   

২৬ এপ্রিল, ২০১৭ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



৪৭ কেজি ওজনের মিষ্টি কুমড়া

রাউজান উপজেলার শামসুল আলম নামের এক কৃষক তাঁর ক্ষেতে বিশাল আকারের একটি মিষ্টি কুমড়া উত্পাদন করেছেন। এটির ওজন হয়েছে ৪৭ কেজি। বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে রাউজান বিশ্ববিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এ বি এম ফজলে করিম চৌধুরীর হাতে ওই মিষ্টি কুমড়া তুলে দিয়ে এই কৃষক উপহার পেয়েছেন নগদ পাঁচ হাজার টাকা।

উপজেলার চিকদাইর ইউনিয়নের বাচাইয়্যার দোকান এলাকায় কৃষক শামসুলের বাড়ি। রাউজান উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. বেলায়েত হোসেন ও উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা কাজী আতিকুর রহমান চৌধুরী কালের কণ্ঠকে বলেন, চিকদাইর ইউনিয়নের কৃষক শামসুল আলম তাঁর ক্ষেতে একটি মিষ্টি কুমড়া যত্ন নিয়ে বড় আকৃতির করে তোলেন। ওই মিষ্টি কুমড়াকে বড় করে তোলার জন্য তিনি ক্ষেতের অন্য মিষ্টি কুমড়াগুলো আর বড় হতে দেননি।

৪৭ কেজি ওজনের একটি মিষ্টি কুমড়া রাউজানে উত্পাদন হয়েছে-এমন খবরে উপজেলা কৃষি অফিসের পক্ষ থেকে বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে স্থানীয় সংসদ সদস্যকে উপহার দেওয়ার জন্য কৃষক শামসুল আলমের সাথে যোগাযোগ করা হয়। কৃষি কর্মকর্তারা মিষ্টি কুমড়াটি ১২০০ টাকায় তাঁর কাছ থেকে কিনে নেওয়ার প্রস্তাব দিয়ে বলেন, ‘ফজলে করিম এমপি মহোদয় রাউজানে উত্পাদিত ফলন হিসেবে মিষ্টি কুমড়াটি দেখে বেশ খুশি হবেন।’

এ কথা শুনে শামসুল বিক্রি করতে রাজি হয়ে যান। জানা যায়, উপজেলা সদরে আয়োজিত বাংলা নববর্ষের অনুষ্ঠানে রাউজান উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ও কৃষক শামসুল আলম ওই মিষ্টি কুমড়া ফজলে করিম চৌধুরীর হাতে তুলে দেন। এ সময় এতো বড় মিষ্টি কুমড়া দেখে উপস্থিত সবাই মুগ্ধ হন।

স্থানীয় সংসদ সদস্য এ বি এম ফজলে করিম চৌধুরী বলেন, ‘এতো বড় মিষ্টি কুমড়া রাউজানে উত্পাদন হয়েছে জেনে খুবই ভালো লাগছে। ভালো ফলনে কৃষকদের সবরকম সহযোগিতা করতে চাই।’

কৃষক শামসুল আলম বলেন, ‘রাজশাহী থেকে বীজ এনে, সারসহ বিভিন্ন কীটনাশক প্রয়োগ করে পরীক্ষামূলকভাবে মিষ্টি কুমড়াটি বড় করার চেষ্টা করি। তাতে সফল হয়েছি।’

তিনি জানান, মিষ্টি কুমড়াটি এলাকার সংসদ সদস্যকে দিতে পেরে তাঁর বেশ ভালো লাগছে। সংসদ সদস্য ফজলে করিম চৌধুরীও খুশি হয়ে তাঁকে পাঁচ হাজার টাকা পুরস্কৃত করেছেন বলে জানান তিনি।