kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৯ নভেম্বর ২০২২ । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ ।  ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

ইরানের বিক্ষোভ: মরে গিয়েও রেহাই মেলেনি

অনলাইন ডেস্ক   

৬ অক্টোবর, ২০২২ ২৩:০৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ইরানের বিক্ষোভ: মরে গিয়েও রেহাই মেলেনি

নিকা শাকারামি-ছবি: বিবিসি

ইরানে হিজাববিরোধী আন্দোলন এখনো চলছে। চলমান বিক্ষোভে যাদের মৃত্যু হয়েছে, তাদের অনেকের মৃত্যুতে স্বজনরা যেন আরো বিপাকে পড়েছে।

নিহত এক কিশোরীর স্বজনদের কাছ থেকে জোরপূর্বক মিথ্যা বিবৃতি আদায় করার অভিযোগ উঠেছে। পরিবারটির ঘনিষ্ঠ এক সূত্র জানিয়েছে এই তথ্য।

বিজ্ঞাপন

গত ২০ সেপ্টেম্বর তেহরানের রাস্তা থেকে নিখোঁজ হন কিশোরী নিকা শাকারামি। নিখোঁজ হওয়ার আগে ফোনে বন্ধুকে জানিয়েছিলেন, পুলিশ তাড়া করেছে তাঁকে।

গত বুধবার রাতে রাষ্ট্রীয় টিভি প্রতিবেদনে তাঁর ফুফু আতাশ বলেন, ‘নিকা ভবন থেকে পড়ে মারা গেছেন। ’ অন্যদিকে তাঁর চাচা মোহসেন টিভিতে বক্তব্য দেন হিজাববিরোধী আন্দোলনের বিরুদ্ধে। ঠিক সেই সময় পাশ থেকে চাপা আওয়াজে কটু শব্দ ব্যবহার করে কাউকে বলতে শোনা যায়, ‘বলে ফেল’।

সূত্রের দাবি, দুজনের কাছ থেকেই ‘জোরপূর্বক স্বীকারোক্তি’ আদায় করা হয়েছে। পরিবারটিকে ব্যাপক জেরার মুখে পড়তে হয়েছে এবং কথা না শুনলে পরিবারের অন্য সদস্যদের মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, নিকা মারা যাওয়ার পর আতাশ ও মোহসেনকে আটক করেছিল ইরানের কর্তৃপক্ষ। সূত্রের দাবি, তাঁদের মুক্তি দেওয়ার আগেই টেলিভিশনে সম্প্রচারিত ওই বিবৃতি রেকর্ড করে রাখা হয়েছিল।

ভাতিজির মৃত্যুর পরপরই অনলাইনে বার্তা পোস্ট করাসহ গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেছিলেন আতাশ। সেটির জেরেই গ্রেপ্তার হন তিনি। বিবিসি পার্সিয়ানকে এর আগে তিনি জানিয়েছিলেন, রেভল্যুশনারি গার্ডস নিকাকে পাঁচ দিন আটকে রেখে পরে কারা কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করেছিল।

ইরানের বিচার বিভাগ বলছেন, যেদিন রাতে নিকা নিখোঁজ হন, সেদিন রাতে তিনি এক ভবনে আশ্রয় নেন। ওই ভবনে আটজন নির্মাণ শ্রমিক উপস্থিত ছিলেন। পরদিন সকালে ভবনের বাইরের প্রাঙ্গণে তাঁর মৃতদেহ পাওয়া যায়। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন বলছে, তাঁকে উঁচু কোনো স্থান থেকে ছুড়ে ফেলা হয়েছিল।

এদিকে বৃহস্পতিবার মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল জানিয়েছে, প্রতিবাদ শুরু হওয়ার পর থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর ইরানের দক্ষিণ-পূর্বের সিসতান-বালুচিস্তান প্রদেশের জাহেদান শহরে অন্তত ৮২ জনকে হত্যা করা হয়েছে।

পুলিশি হেফাজতে ইরানি তরুণী মাশা আমিনির মৃত্যুর পর ক্ষোভে রাস্তায় নেমে আসে ইরানের জনসাধারণ। দেশটির স্কুলছাত্রীরাও সম্প্রতি যোগ দিয়েছে এই বিক্ষোভে। সূত্র : এএফপি, বিবিসি

 

 



সাতদিনের সেরা