kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

ভারতের শক্তিশালী গ্রামে স্বাগত

অনলাইন ডেস্ক   

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ১১:১২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভারতের শক্তিশালী গ্রামে স্বাগত

দিল্লির একটি গ্রামের যুবকদের কাছে ভারোত্তোলন শখের খেলা। কয়েক প্রজন্ম ধরে দিল্লির অসোলা ফতেহপুরের গ্রামের মানুষদের দিন শুরু হয় কসরত করে। সকাল আর বিকালে দুই ঘণ্টা করে কসরত করেন তারা। বলতে পারেন এটি তাদের শখের খেলা।

বিজ্ঞাপন

শুধু বড়রা নয় তাদের দেখাদেখি ছোটরাও শিখে ফেলছে এই খেলা। বৃদ্ধরাও কম যান না। তারা  ব্যায়াম করেন, ইট তোলেন, ধূলা মেখে লড়াই করেন, কেউ আবার ৩৫০ কেজি পর্যন্ত ওজন তোলেন। মজার ব্যাপার হলো সময় কাটাতেও ব্যায়াম করেন তারা। স্বাস্থ্যের বিষয়ে সবাই সচেতন। ভাল খাওয়া-দাওয়া করা, নেশা থেকে দূরে থাকা এটাই তাঁদের সুস্বাস্থ্যের কারণ বলে জানান গ্রামের বাসিন্দারা।

সংবাদমাধ্যমকে অসোলা-ফতেহপুরের গ্রামের মানুষরা জানান, তাদের গ্রামে কেউ মদ্যপান করেন না। সিগারেট, বিড়ি বা তামাকজাতীয় কোনো নেশা তাদের নেই। গ্রামের বেশিরভাগ বাসিন্দারাই নিরামিষভোজী।  

দিল্লির একটি নাইটক্লাবের কর্মকর্তা বলেন, অসোলা-ফতেহপুরের মানুষরা কাজ করেন ভারতের বিভিন্ন নাইটক্লাব অথবা বারে নিরাপত্তা কর্মী (বাউন্সার) হিসেবে। এ কাজের প্রতি এখানকার যুবকদের আলাদা চাহিদা রয়েছে।  

ওই গ্রামের তনওয়ার নামে এক যুবক জানান, কয়েক বছর আগে অলিম্পিকে কুস্তি লড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন তিনি। কোনো কারণে তা আর হয়ে ওঠেনি। এর পরেই নিরাপত্তা কর্মী হিসেবে চাকরি নেন। সেখানে তিনি পেশীশক্তিও দেখাতে পারবেন পাশাপাশি ভাল উপার্জনও করতে পারবেন বলে জানান। তনওয়ার তার গ্রামের প্রথম বাউন্সার। তনওয়ারের দাবি তাকে দেখেই পরে গ্রামের যুবকরা বাউন্সারের কাজ নিচ্ছেন। শুধুমাত্র দিল্লির ক্লাব এবং বারেই আমার গ্রামের ৩০০ ছেলে বাউন্সারের (নিরাপত্তা কর্মী) কাজ করছে বলে জানান তিনি।

 

খেলাধুলা এবং সেনাবাহিনীর চাকরিও তাদের পছন্দ। দিল্লির এই গ্রামের বাসিন্দারা মনেপ্রাণে বিশ্বাস করেন, স্বাস্থ্যই সম্পদ এবং সাথে রোজগার। তনওয়ারের গ্রামের ঐতিহ্যই হচ্ছে সুস্থ্য সবল ভাবে বাঁচা। ব্যায়াম করলে মন ভাল থাকে, শরীর ভাল থাকে এবং ছোটখাট আঘাতে কষ্ট কম পায়। জ্বর বা অন্য অসুখও সহজে কাহিল করতে পারে না। ছেলেমেয়ে নির্বিশেষে তাই তারা সবাই ব্যায়াম করেন।  

সূত্র : আনন্দবাজার

 

 



সাতদিনের সেরা