kalerkantho

শনিবার । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ৯ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ২৭ সফর ১৪৪৪

অবৈধ অভিবাসীদের ডেমোক্র্যাট অঙ্গরাজ্যে পাঠানো হচ্ছে যে কারণে

অনলাইন ডেস্ক   

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ২১:১৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অবৈধ অভিবাসীদের ডেমোক্র্যাট অঙ্গরাজ্যে পাঠানো হচ্ছে যে কারণে

ভেনেজুয়েলা থেকে আসা অভিবাসীদের টেক্সাস থেকে পাঠানো হয় ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসের বাসভবনের সামনে-ছবি: ইপিএ/বিবিসি

যুক্তরাষ্ট্রে রিপাবলিকান দলের শাসনে থাকা কয়েকটি অঙ্গরাজ্য থেকে বেশ কয়েক হাজার অভিবাসীকে দেশের ডেমোক্র্যাটশাসিত কয়েকটি অঙ্গরাজ্যে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। সর্বশেষ ঘটনায় বাস ভরে আনা অভিবাসীদের খোদ ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসের বাসভবনের সামনে নামিয়ে দেওয়া হয়েছে। অনেক পর্যবেক্ষক বলছেন, মধ্যবর্তী নির্বাচন সামনে রেখেই রিপাবলিকানরা এই কাজ করছেন।  

সীমান্তের অঙ্গরাজ্য টেক্সাসের রিপাবলিকান গভর্নর গ্রেগ অ্যাবট প্রথম এভাবে অভিবাসী অন্যত্র পাঠিয়ে দেওয়ার আগাম ঘোষণা দেন।

বিজ্ঞাপন

এরপর আরো কয়েকজন রিপাবলিকান গভর্নর এই পথ অনুসরণ করেন। এ নিয়ে মার্কিন রাজনীতিতে ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকানদের বাগযুদ্ধ এখন চরমে।

অতিসম্প্রতি দুই বাসভর্তি অভিবাসীকে কমলা হ্যারিসের ওয়াশিংটন ডিসির বাসভবনের সামনে নামিয়ে দেওয়া হয়েছে। তার আগে আগেই ফ্লোরিডার গভর্নর দুটি বিমানে করে ডেমোক্র্যাটশাসিত ম্যাসাচুসেটস অঙ্গরাজ্যের অভিজাত ও জনপ্রিয় পর্যটন দ্বীপ মার্থা’স ভিনিয়ার্ডে একদল অভিবাসী পাঠিয়ে দেন। শিকাগো শহর ও নিউ ইয়র্ক মহানগরেও একইভাবে অভিবাসী পাঠানো হয়েছে।

অভিবাসী স্থানান্তরের এই পদক্ষেপের পেছনে অনেকে রাজনীতির যোগসূত্র খুঁজে পাচ্ছে। অভিবাসন ও সীমান্তবিষয়ক বিশেষজ্ঞ অ্যাডাম আইজ্যাকসন বলেছেন, নিছক অভিবাসন নয়, এ ঘটনার পেছনে আছে অন্য কারণ। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের মধ্যবর্তী নির্বাচনের আর মাত্র ছয়-সাত সপ্তাহ সময় রয়েছে। এ অবস্থায় সমর্থকদের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনার বীজ বুনতে চাইছে রিপাবলিকানরা।

রাজনৈতিক বাদানুবাদের মধ্যে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, রিপাবলিকান গভর্নররা ‘মানুষকে নিয়ে রাজনীতির খেলা খেলছেন। ’ অন্যদিকে টেক্সাসের গভর্নর অভিযোগ করেছেন, অভিবাসন নীতি নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের ‘সত্যিকারের কোনো পরিকল্পনা’ নেই।  

রিপাবলিকান শিবির বলছে, চলতি বছরে মেক্সিকো সীমান্ত দিয়ে আসা রেকর্ডসংখ্যক অভিবাসী ঠেকাতে কঠোর পদক্ষেপ নিতে বাইডেন প্রশাসনের ওপর চাপ বাড়াতে এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, এখন পর্যন্ত টেক্সাস, আরিজোনা ও ফ্লোরিডার রিপাবলিকান গভর্নররা অন্যত্র অভিবাসী পাঠিয়ে দিয়েছেন। তাদের সঠিক সংখ্যা এখনো পরিষ্কার নয়। তবে টেক্সাস ও আরিজোনা থেকে ৩০০ বাস ভর্তি করে ১৩ হাজারের মতো অভিবাসীকে ওয়াশিংটন ডিসি, শিকাগো ও নিউ ইয়র্ক শহরে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

অনেক অভিবাসী জানিয়েছেন, স্থানান্তরের পর তাদের কাজের সন্ধান দেওয়া ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ সব সহযোগিতার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।

দুই সন্তানসহ ভেনিজুয়েলা থেকে আসা ১৮ বছর বয়সী অভিবাসী ডার্লিং ভিয়েলমা টেক্সাস থেকে ওয়াশিংটন ডিসিতে যান এ মাসের শুরুতে। তিনি বলেন, ‘আমাকে রাস্তায় থাকতে হতো অথবা এখানে আসতে হতো। আমি তাই চলে এসেছি। ’ টেক্সাসের অনেক অভিবাসী একে সুযোগ হিসেবেই  দেখছেন। সূত্র : বিবিসি

 



সাতদিনের সেরা