kalerkantho

বুধবার । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

ইউরোপে রুশ গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে

অনলাইন ডেস্ক   

৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ২৩:৪৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ইউরোপে রুশ গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে

জার্মানিতে নর্ড স্ট্রিম ১ এর অংশ। ছবি: বিবিসি/রয়টার্স

জার্মানিতে গ্যাস সরবরাহ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ রাখছে রাশিয়া। নর্ড স্ট্রিম ১ পাইপলাইন মেরামতের জন্য তিন দিন গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রাখার পর শনিবার থেকে তা চালু করার কথা থাকলেও শেষ মুহূর্তে সিদ্ধান্ত পাল্টায় ক্রেমলিন।  

আজ শনিবার রাশিয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত জ্বালানি কম্পানি গাজপ্রম জানিয়েছে, ‘পাইপলাইনে ত্রুটি’ ধরা পড়ায় সরবরাহ বন্ধ থাকবে। ঠিক কবে নাগাদ গ্যাস সরবরাহ আবার শুরু হতে পারে তা জানায়নি প্রতিষ্ঠানটি।

বিজ্ঞাপন

 

গাজপ্রমের ভাষ্য, বাল্টিক সাগর উপকূলের পোর্টোভায়া কম্প্রেসর স্টেশনে ত্রুটি পাওয়া গেছে। সেখান থেকে গ্যাস লিক হচ্ছে। টারবাইন ইঞ্জিন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সমস্যা না সারিয়ে তোলা পর্যন্ত গ্যাস সরবরাহ করা সম্ভব হচ্ছে না।

কম্প্রেসর স্টেশনটির একটি ছবিও গাজপ্রম প্রকাশ করেছে। বাল্টিক সাগরের তলা দিয়ে চলে যাওয়া নর্ড স্ট্রিম ১ পাইপলাইনের মাধ্যমে ইউরোপে রাশিয়ার বৃহত্তম ক্রেতা দেশ জার্মানিতে গ্যাস সরবরাহ করা হয়।  

ইউক্রেনে হামলা শুরুর পর পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা আরোপ হলে মেরামতের কথা বলে কিছুদিন গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রাখে রাশিয়া। পরে সক্ষমতার মাত্র ২০ শতাংশে নামিয়ে আনা হয় সরবরাহ। এরপর দ্বিতীয় দফায় সরবরাহ ব্যবস্থা মেরামতের কথা বলে গ্যাস সরবরাহ পুরোপুরি বন্ধ করে দেয় দেশটি।  

জার্মানিতে গাজপ্রমের গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রাখার ঘোষণা এমন সময়ে দেওয়া হলো, যখন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি ও জাপানের জোট জি-৭ রাশিয়ার গ্যাসের দাম কমানোর পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে।  

রুশ তেলের দামের ‘গ্রহণযোগ্য স্তর’ ঠিক কী তা ঘোষণা করা হয়নি। তবে জি-৭ বলেছে, পরিকল্পনাটি ‘জরুরিভাবে’ প্রয়োগ করা হবে।

জি-৭-এর ঘোষণার প্রতিক্রিয়ায় রাশিয়া শুক্রবারই জানিয়ে দেয়, রুশ জ্বালানির মূল্য সীমিতকরণে (ক্যাপ) অংশ নেওয়া দেশগুলোতে জ্বালানি রপ্তানি করা হবে না।

ইউক্রেন যুদ্ধের পর থেকে প্রায় সারা বিশ্বে জ্বালানির দাম এখন আকাশছোঁয়া। নিত্যপণ্যের দামও বেড়েছে ইউরোপে। গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকলে জীবনযাত্রার ব্যয় আরো বাড়বে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ইউরোপের নিম্নবিত্তরা শীতে নিজেদের উষ্ঞ রাখার ব্যয় বহন করতে পারবে না, এমন শঙ্কাও আছে।  

গ্যাসের জন্য ইউরোপের অনেক দেশই নর্ড স্ট্রিম ১-এর ওপর পুরোপুরি নির্ভরশীল না হলেও সরবরাহ বন্ধে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে সবাই। কারণ তখন পাইকারি গ্যাসের দাম বেড়ে যেতে পারে।   

বিবিসির অর্থনীতিবিষয়ক সম্পাদক ফয়সাল ইসলাম নর্ড স্ট্রিম ১ পাইপলাইন অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ রাখাকে অত্যন্ত গুরুতর আখ্যা দিয়েছেন। কারণ স্নায়ুযুদ্ধের সময়ও রাশিয়া ইউরোপে গ্যাস সরবরাহ চালু রেখেছিল।  

রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্কের অচলাবস্থা ইউরোপীয় দেশগুলোকে নিজস্ব গ্যাস সরবরাহ ব্যবস্থায় জোর দিতে বাধ্য করেছে। এতে গত সপ্তাহে আন্তর্জাতিক গ্যাসের দাম কমেছে, তবে স্বাভাবিক মান অনুযায়ী তা এখনো বেশি।  

ইউক্রেনে হামলার অর্থায়নে মস্কোর সক্ষমতা কমানোর চষ্টোয় ইউরোপ রুশ জ্বালানি কেনা থেকে সরে আসতে চাইছে। কিন্তু সে চষ্টো খুব দ্রুত সফল না-ও হতে পারে বলে মত বিশেষজ্ঞদের।  

এদিকে রাশিয়ার গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকা অপ্রত্যাশিত নয় মন্তব্য করে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট চার্লস মিশেল বলেন, ‘গ্যাসকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করা হলেও ইইউর মতাদর্শ পাল্টাবে না। আমরা জ্বালানি স্বাধীনতার প্রতি গতি বাড়াব। ইউক্রেনের স্বাধীনতা এবং নিজেদের নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করাই আমাদের দায়িত্ব। ’

রাশিয়া অবশ্য গ্যাসকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করার অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করছে। সূত্র : বিবিসি ও এএফপি

 



সাতদিনের সেরা