kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০২২ । ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

ইতিহাসের মোড় ফেরার মুহূর্তে শ্রীলঙ্কা

অনলাইন ডেস্ক   

১০ জুলাই, ২০২২ ১০:৪৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ইতিহাসের মোড় ফেরার মুহূর্তে শ্রীলঙ্কা

প্রেসিডেন্টের বাসভবন ‘দখল করে’ নেওয়ার পর বিক্ষোভকারীদের উল্লাস। ছবি: ইপিএ/বিবিসি

শ্রীলঙ্কার জন্য এ এক অন্য রকম সময়। শনিবারের সারা দিনের বিক্ষোভ ও সহিংসতার পর দেশটির দুই শীর্ষ নেতা পদত্যাগে সম্মত হয়েছেন। খবরটি রাজধানী কলম্বোর প্রধান প্রতিবাদ বিক্ষোভের স্থানে আনন্দের ঢেউ বয়ে আনে। শহরের অনেক জায়গায় পটকা ফোটানো হয়।

বিজ্ঞাপন

শনিবার রাতেই অনেক প্রতিবাদকারী বাড়ি ফিরতে শুরু করে। তবে কয়েক হাজার মানুষ পথে থেকে যায়। কেউ কেউ গান গেয়ে, বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে ‘বিজয়’ উদযাপন করে।

ঘটনাপ্রবাহের এ এক চমকপ্রদ পরিবর্তন। কয়েক দিন আগেই রাষ্ট্রপতি গোতাবায়া রাজাপক্ষে এবং প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহের পার্লামেন্টের ভেতরে হাসিমুখের একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপকভাবে শেয়ার করা হয়েছিল।

অনেকেই তখন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছিলেন, এ দুজন লোককে খোশ মেজাজে দেখাচ্ছে। অথচ দেশের লাখ লাখ মানুষ প্রতিদিন তিন বেলা খাবারের জোগাড় করতে লড়াই করছে। তবে এক সপ্তাহ কিন্তু রাজনীতিতে দীর্ঘ সময়।

টানা কয়েক মাসের অস্থিরতার সময় রাষ্ট্রপতি রাজাপক্ষের পদত্যাগ ছিল বিক্ষোভকারীদের প্রধান দাবি। শ্রীলঙ্কার অর্থনৈতিক দুরবস্থার জন্য তারা রাজাপক্ষে পরিবারকে দায়ী করে আসছে। দেশটিতে মুদ্রাস্ফীতি বেড়ে আকাশচুম্বী হয়েছে। বিদেশি মুদ্রার অভাবে সরকার খাদ্য, জ্বালানি এবং ওষুধ আমদানি করতে হিমশিম খাচ্ছে।  

প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপক্ষে তার ক্ষমতার শীর্ষে থাকার সময় একজন নির্মম এবং ভীতিকর মানুষ ছিলেন। সাংবাদিকসহ কেউই তার ক্ষোভের শিকার হতে চাইতেন না।  

গোতাবায়ার শাসনের প্রধান সমালোচকদের গুরুতর নির্যাতন এমনকি গুম করা হয়েছে। তবে গোতাবায়া রাজাপক্ষ ও তার ভাই সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপক্ষ সহিংসতা বা গুমের সঙ্গে কোনো সম্পর্ক থাকার কথা বরাবরই অস্বীকার করে এসেছেন।  

রাষ্ট্রপতি রাজাপক্ষের নিরাপত্তার জন্য সরকারি বাসভবন থেকে পালিয়ে যাওয়া সত্যিই নাটকীয় বিষয়। মাত্র কয়েক মাস আগেও তা কল্পনা করা যেত না। ২০০৯ সালে বিচ্ছিন্নতাবাদী তামিল টাইগারদের সফলভাবে দমন করে সংখ্যাগরিষ্ঠ সিংহল বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের পূর্ণ সমর্থন পেয়েছিলেন তিনি।

রাজাপক্ষে ভাইদের তখন দেখা হয়েছে যুদ্ধজয়ী বীর হিসেবে। ইতিহাসের এক নাটকীয় মোচড়ে এখন ক্ষমতায় আনা সেই জনগণই তাদের পতন ঘটাচ্ছে।

সূত্র : বিবিসি


এই রকম আরো খবর


সাতদিনের সেরা