kalerkantho

সোমবার । ৮ আগস্ট ২০২২ । ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯ । ৯ মহররম ১৪৪৪

নূপুরকে ভর্ৎসনার জন্য ব্যক্তিগত আক্রমণের মুখে বিচারপতি

অনলাইন ডেস্ক   

৪ জুলাই, ২০২২ ১২:৫৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নূপুরকে ভর্ৎসনার জন্য ব্যক্তিগত আক্রমণের মুখে বিচারপতি

বিচারপতি জেবি পারদিওয়ালা

মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) কে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে বিজেপি থেকে বরখাস্ত হওয়া মুখপাত্র নূপুর শর্মাকে তীব্র ভর্ৎসনা করে সে দেশের সুপ্রিম কোর্ট। তার পরই বিচারপতিদের সিদ্ধান্তকে নিয়ে তাঁদের ব্যক্তিগত আক্রমণ শুরু হয়।  

নূপুরকে ভর্ৎসনা করেছিল সুপ্রিম কোর্টের যে বেঞ্চ, তার অন্যতম সদস্য বিচারপতি জেবি পারদিওয়ালা এবার বিষয়টি নিয়ে মুখ খুললেন। একটি অনুষ্ঠানে তিনি বলেছেন, রায়ের কারণে বিচারপতিদের ওপর ব্যক্তিগত আক্রমণের ঘটনা ভয়ঙ্কর পরিণামের ইঙ্গিতবাহী।

বিজ্ঞাপন

নূপুরের আবেদনের শুনানিতে বিচারপতি পারদিওয়ালা এবং বিচারপতি সূর্যকান্ত বেশ কিছু কঠোর বাক্য ব্যবহার করেছিলেন। তার পরই সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত আক্রমণ শুরু হয়।

নূপুর সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানিয়েছিলেন, তার বিরুদ্ধে ভারতে যত অভিযোগ দায়ের হয়েছে, তা যেন একসঙ্গে দিল্লিতে স্থানান্তর করা হয়। নিজের ও পরিবারের নিরাপত্তাহীনতারও দাবিও করেছিলেন তিনি।

ভারতের সুপ্রিম কোর্ট সেই আবেদনের শুনানিতে পাল্টা প্রশ্ন তোলে, এখনও নূপুরকে গ্রেপ্তার করা হয়নি কেন? পাশাপাশি এই কারণে ভারতে হওয়া অশান্তির জন্যও নূপুরকেই দায়ী করে শীর্ষ আদালত।

রবিবার একটি অনুষ্ঠানে গিয়ে এই প্রসঙ্গে বিচারপতি বলেন, রায়ের কারণে বিচারপতিদের ওপর ব্যক্তিগত আক্রমণের ঘটনা ভয়ঙ্কর পরিণামের ইঙ্গিতবাহী। যেখানে আইন এ বিষয়ে কী ভাবছে তা না ভেবে সংবাদমাধ্যম কী ভাবছে, তা নিয়ে বিচারপতিদের ভাবতে হবে। যা আইনের শাসনের পরিপন্থী। সামাজিক ও ডিজিটাল মাধ্যম বিচারপতিদের রায়ের গঠনমূলক সমালোচনার বদলে ব্যক্তিগত পছন্দ অপছন্দ নিয়ে আলোচনার জায়গা হয়ে উঠেছে।

তিনি আরও জানান, আইনের শাসন বজায় রাখার জন্য সারা ভারতে ডিজিটাল ও সামাজিক মাধ্যমকে বাধ্যতামূলকভাবে নিয়ন্ত্রিত করার প্রয়োজন হয়ে উঠেছে।
সূত্র: আনন্দবাজার।



সাতদিনের সেরা