kalerkantho

শনিবার । ২০ আগস্ট ২০২২ । ৫ ভাদ্র ১৪২৯ । ২১ মহররম ১৪৪৪

উপনির্বাচনে দাপট বিজেপির

অনলাইন ডেস্ক   

২৬ জুন, ২০২২ ২২:২৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



উপনির্বাচনে দাপট বিজেপির

নানা ধরনের সমালোচনাকে পাশ কাটিয়ে ভারতের কেন্দ্রীয় ও প্রাদেশিক আইনসভার কয়েকটি উপনির্বাচনে উল্লেখযোগ্য সাফল্য পেয়েছে কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন বিজেপি। দিল্লি, উত্তর প্রদেশ, ঝাড়খণ্ড, অন্ধ্র প্রদেশ, ত্রিপুরা ও পাঞ্জাব রাজ্যের সাতটি বিধানসভা ও তিনটি লোকসভায় উপনির্বাচন হয়। গতকাল রবিবার দেশটির নির্বাচন কমিশন কর্তৃক ঘোষিত ফলাফলে দেখা যায়, পাঁচটি আসনে জয়লাভ করেছে বিজেপি।

লোকসভা উপনির্বাচন

উত্তর প্রদেশের দুটি লোকসভা উপনির্বাচনে জয়লাভ করেছে বিজেপি।

বিজ্ঞাপন

বিজেপির জন্য এই সাফল্য বেশ গুরুত্বপূর্ণ। কারণ গত লোকসভা নির্বাচনে এই দুই আসন দখল করেছিল রাজ্যের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদবের নেতৃত্বাধীন সমাজবাদী পার্টি (এসপি)।

এদিকে পাঞ্জাবের সাঙ্গুর লোকসভা আসনে পরাজিত হয়েছে রাজ্যে সদ্য ক্ষমতায় বসা আম আদমি পার্টি (আপ)। এই পরাজয় আপের জন্য অস্বস্তিকর। কারণ মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার পর আপের নেতা ভগবান্ত মানই এই আসন ছেড়ে দিয়েছিলেন।  

বিধানসভা উপনির্বাচন

উত্তর-পূর্ব ভারতের ত্রিপুরার চারটি আসনের মধ্যে তিনটিতেই জিতেছে বিজেপি। একটি আসনে জয় পেয়েছে কংগ্রেস। রাজ্যের সাবেক শাসক ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্ক্সবাদী)-সিপিআইএম নেতৃত্বাধীন বামফ্রন্ট ভোটের হিসাবে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে। সবচেয়ে খারাপ ফল হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসের। ত্রিপুরাকে লক্ষ্যবস্তু করা ঘাসফুলের সব আসনেই জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছে।

প্রথমবার ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে জয়ী হয়েছেন ত্রিপুরার নতুন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সাহা। বড়দোয়ালি কেন্দ্রে কংগ্রেসের দুইবারের বিধায়ক আশিস সাহাকে পরাজিত করেন মানিক। এই কেন্দ্রের তৃণমূলের শক্তিশালী প্রার্থী সংহিতা ভট্টাচার্য পেয়েছেন মাত্র ৯৮৬ ভোট। এই আসনে বাম প্রার্থী পেয়েছেন তিন হাজার ৩৭৬ ভোট। গত মাসে বিপ্লব দেবের আচমকা ইস্তফার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ত্রিপুরার নতুন মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে রাজ্যসভার সংসদ সদস্য মানিক সাহার নাম ঘোষণা করে বিজেপি। মুখ্যমন্ত্রী পদে থাকতে হলে তাঁকে উপনির্বাচনে জিততে হতো।

ত্রিপুরার যুবরাজনগর কেন্দ্রে জয়ী বিজেপি। এই আসনে বিজেপি প্রার্থী মলিনা দেবনাথ নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সিপিএমআইমের প্রার্থী শৈলেন্দ্র চন্দ্র নাথকে পরাজিত করেন। এই আসনে তৃণমূল পেয়েছে মাত্র এক হাজার ৮০ ভোট। ভোটের আগে উত্তপ্ত হয়েছিল ত্রিপুরার সুরমা। তৃণমূল কর্মীদের ওপর হামলার অভিযোগ ওঠে সেখানে। এই কেন্দ্রেও জিতেছেন বিজেপির স্বপন দাস।  

অন্যদিকে ত্রিপুরার আগরতলা কেন্দ্রে জয়লাভ করেছেন বিজেপি ছেড়ে সদ্য কংগ্রেসে ফেরা সুদীপ রায়বর্মণ। বিপ্লব দেবের মন্ত্রিসভার সাবেক এই সদস্য হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে বিজেপির অশোক সিংহকে পরাজিত করেন।

এ ছাড়া অন্ধ্র প্রদেশের আতমাকুর আসন ধরে রেখেছে রাজ্যের শাসক দল ওয়াইএসআর কংগ্রেস। এতে জয়ী প্রার্থী ওয়াইএসআর কংগ্রসের নেতা বিক্রম রেড্ডি। দিল্লির রাজিন্দরনগরে উপনির্বাচনে আসন ধরে রেখেছে ক্ষমতাসীন আপ। জয়ী প্রার্থী আপের নেতা দুর্গেশ পাঠক। ঝাড়খণ্ডের মান্দার বিধানসভায় ঝাড়খণ্ড বিকাশ মোর্চার (জেভিএম) কাছ থেকে আসন ছিনিয়ে নিয়েছে কংগ্রেস। জয়ী প্রার্থী কংগ্রেসের শিল্পী নেতা টিকরি।  

সূত্র : এনডিটিভি ও আনন্দবাজার পত্রিকা



সাতদিনের সেরা