kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জুন ২০২২ । ১৪ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

যে নির্বাচনে ভোটার মাত্র ৩২৯!

অনলাইন ডেস্ক   

১৫ মে, ২০২২ ১৮:৫৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যে নির্বাচনে ভোটার মাত্র ৩২৯!

এপ্রিলে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে নির্বাচিত এমপিরা শপথ নিচ্ছেন। তারাই নির্বাচিত করেন প্রেসিডেন্ট-ছবি: এএফপি

দীর্ঘদিন পর অনুষ্ঠিত হচ্ছে পূর্ব আফ্রিকার শৃঙ্গ' অঞ্চলের দেশ সোমালিয়ার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। এটি সেদেশে কিছুটা ‘বিরল’ তো বটেই, পদ্ধতিতেও আর দশটি গতানুগতিক নির্বাচনের চেয়ে আলাদা। গোটা দেশ থেকে মাত্র ৩২৯ জন ভোট দেন সোমালিয়ার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে। এ ছাড়াও ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয় ব্যাপকভাবে সুরক্ষিত একটি স্থানে।

বিজ্ঞাপন

গতকাল রবিবারই এবারের ভোট হওয়ার কথা।  

ব্যতিক্রমধর্মী এ নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় মূলত সোমালিয়ার নিরাপত্তাগত সমস্যা ও দেশটির গণতান্ত্রিক গ্রহণযোগ্যতার অনুপস্থিতি উঠে এসেছে।  

সবমিলিয়ে এবারের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রার্থী ৩৬ জন। এদের মধ্যে বিজয়ীকে লড়তে হবে দেশে বিরাজমান খরা পরিস্থিতির সঙ্গে। তার আরেকটি বড় কাজ হবে জঙ্গি গোষ্ঠী আল শাবাবের প্রভাব খর্ব করা। আল কায়েদার সঙ্গে যুক্ত উগ্র ইসলামপন্থী এ সংগঠনটি দেশটির বড় অংশ জুড়ে নিজেদের আধিপত্য বজায় রেখেছে। রাজধানী মোগাদিসু ও অন্যান্য এলাকায় প্রায়ই আক্রমণ চালিয়ে আসছে তারা।   

সোমালিয়ায় ‘এক ব্যক্তি এক ভোট’ ধরনের গণতান্ত্রিক নির্বাচন ১৯৬৯ সালের পর আর হয়নি। সেবারের ওই ভোটের পর অভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে এসেছিল স্বৈরশাসন। দেখা দিয়েছিল গোষ্ঠীভিত্তিক মিলিশিয়া বাহিনী ও ইসলামি উগ্রবাদীদের মধ্যে সংঘর্ষ। এ অস্থিরতা সোমালিয়ায় প্রত্যক্ষ নির্বাচন আয়োজন করতে না পারার অন্যতম কারণ।  
সোমালিয়া এবার তৃতীয়বারের মতো নিজ দেশের মাটিতে পরোক্ষভাবে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আয়োজন করেছে। এর আগের দুটি নির্বাচন প্রতিবেশী রাষ্ট্র কেনিয়া ও জিবুতিতে হয়েছিল।

যেভাবে হওয়ার কথা নির্বাচন  

সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহামেদ আব্দুল্লাহি ‘ফারমাজো’র চার বছরের মেয়াদ শেষ হওয়ার পরপরই এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। তবে রাজনৈতিক মতপার্থক্য ও অস্থিরতার কারণে নির্বাচন পিছিয়ে যায় এবং ফারমাজো ক্ষমতায় থেকে যান। তিনি এবারের নির্বাচনেরও প্রার্থী।  

রবিবারের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ভোটার মূলত এমপিরা। তাঁরা নিজেরা আবার নির্বাচিত হয়েছেন দেশের প্রভাবশালী গোষ্ঠীগুলোর মনোনীত প্রতিনিধিদের মাধ্যমে। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ভোটগ্রহণের স্থান নির্ধারিত হয়েছে সুরক্ষিত হালানে ক্যাম্প বিমানবন্দরের হ্যাঙ্গার। ভোটগ্রহণ হওয়ার কথা গোপন ব্যালটে। কয়েক দফা ভোটের মধ্য দিয়ে একজন প্রার্থীকে বিজয়ী ঘোষণা করার কথা।

প্রসঙ্গত, প্রতি ধাপে বাদ পড়া প্রার্থীরা ‘কিং-মেকারের’ ভূমিকা পালন করতে পারেন। নিজ সমর্থকদের তাঁর পছন্দের প্রার্থীকে সমর্থন দেওয়ার অনুরোধ জানাতে পারেন। বিগত নির্বাচনগুলোতে অর্থের বিনিময়ে  ভোট কেনাবেচার অভিযোগও উঠেছিল।  

সূত্র: বিবিসি।



সাতদিনের সেরা