kalerkantho

মঙ্গলবার ।  ১৭ মে ২০২২ । ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৫ শাওয়াল ১৪৪৩  

বিক্ষোভে উত্তাল শ্রীলঙ্কা, নেতাদের বাড়ি জ্বালিয়ে দিয়েছে বিক্ষোভকারীরা

অনলাইন ডেস্ক   

১০ মে, ২০২২ ০৯:২৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিক্ষোভে উত্তাল শ্রীলঙ্কা, নেতাদের বাড়ি জ্বালিয়ে দিয়েছে বিক্ষোভকারীরা

প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপক্ষের পদত্যাগের দাবিতে উত্তাল হয়ে আছে শ্রীলঙ্কা। গতকাল সোমবার তাঁর ভাই প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপক্ষে পদত্যাগ করলেও থামেনি সহিংসতা।

সরকার সমর্থকদের সঙ্গে সংঘর্ষের পর শ্রীলঙ্কায় বিক্ষুব্ধ জনতা শাসক রাজাপক্ষে ও সংসদ সদস্যদের বেশ কয়েকটি ভবন পুড়িয়ে দিয়েছে।

এর আগে গতকাল দেশটির জাদুঘর, রাজাপক্ষের পৈতৃক বাড়িসহ বিভিন্ন স্থানে ভাঙচুর চালিয়ে আগুন দেয় বিক্ষোভকারীরা।

বিজ্ঞাপন

সহিংসতায় অন্তত পাঁচজন নিহত হয়েছে এবং ১৯০ জন আহত হয়েছে।  

এ ছাড়া রাজধানী কলম্বোর বাইরে বিক্ষোভ চলাকালে বিক্ষোভকারীরা ক্ষমতাসীন দলের এক পার্লামেন্ট সদস্যের (এমপি) গাড়ি ঘিরে ধরলে ওই এমপি প্রথমে বিক্ষোভকারীদের দিকে এলোপাতাড়ি গুলি ছোড়েন, এরপর নিজের ওপরই গুলি চালান। আত্মঘাতী হওয়া এমপির নাম অমরাকীর্তি আথুকোরালা বলে জানিয়েছে শ্রীলঙ্কা পুলিশ।

মাহিন্দা রাজাপক্ষের সরকারি বাসভবনের বাইরে গাড়িতে আগুন দেয় বিক্ষোভকারীরা

বিক্ষোভকারীদের দমিয়ে রাখতে ব্যর্থ হয়েছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপক্ষে সরকারি বাসভবনে থাকা অবস্থায় বিক্ষোভকারীরা সেখানে ভাঙচুর চালানোর চেষ্টা করে।

কর্তৃপক্ষ সহিংসতা দমনের চেষ্টায় বুধবার সকাল পর্যন্ত কারফিউ জারি রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

স্বাধীনতার পর থেকে সবচেয়ে বড় আর্থিক সংকটে পড়েছে শ্রীলঙ্কা। বিরোধী দলগুলো এই দুর্দশার জন্য রাজাপক্ষে পরিবারের শাসনকেই দায়ী করে আসছে। বিরোধীদের অভিযোগ, অর্থনীতিতে ভুল ব্যবস্থাপনার কারণে শ্রীলঙ্কা ঋণের ভারে ডুবতে বসেছে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, গত শুক্রবার এক বিশেষ বৈঠকে প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া দেশজুড়ে চলা রাজনৈতিক সংকট সমাধানে প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দাকে পদত্যাগ করার অনুরোধ জানান। এরপর গতকাল পদত্যাগ করেন মাহিন্দা। তাঁর পদত্যাগের পর প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া একটি সর্বদলীয় মন্ত্রিসভা গঠনের জন্য পার্লামেন্টের সব রাজনৈতিক দলকে আমন্ত্রণ জানাবেন বলে ধারণা করছেন পর্যবেক্ষকরা।

গতকাল প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনের সামনে ক্ষমতাসীনদের একদল সমর্থক মাহিন্দাকে পদত্যাগ না করার জন্য অনুরোধ জানিয়ে স্লোগান দিতে থাকে। এরপর মাহিন্দার সঙ্গে তাদের বৈঠক হয়। এই বৈঠক শেষ করে তারা মিছিল নিয়ে গিয়ে প্রেসিডেন্ট কার্যালয়ের সামনে সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীদের ওপর হামলা চালায়। হামলাকারীদের সেখান থেকে সরাতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ও জলকামান ব্যবহার করে।

সূত্র : বিবিসি।



সাতদিনের সেরা