kalerkantho

মঙ্গলবার ।  ১৭ মে ২০২২ । ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৫ শাওয়াল ১৪৪৩  

পূর্ব ইউক্রেনে গোলাবর্ষণ নিয়ে নতুন করে উত্তেজনা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২২ ২৩:১০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পূর্ব ইউক্রেনে গোলাবর্ষণ নিয়ে নতুন করে উত্তেজনা

সরকারি নিয়ন্ত্রণে থাকা শহর লুহানস্কে গোলাবর্ষণে ক্ষয়ক্ষতির ছবি -বিবিসি

রাশিয়া কিছু সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা দেওয়ার পর ইউক্রেন নিয়ে উত্তেজনা আবার বাড়তে শুরু করেছে। আজ শুক্রবার রুশ-সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদীদের নিয়ন্ত্রিত পূর্ব ইউক্রেনে গোলাবর্ষণ বাড়ার খবর পাওয়া গেছে। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, সেখানে পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে।  

অন্যদিকে আগে থেকে বলে আসার কথার পুনরাবৃত্তি করে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন বলেছেন, পূর্ব ইউক্রেনে যে গোলাবর্ষণ হয়েছে, তা হামলার অজুহাত খুঁজতে রাশিয়ার ‘মিথ্যা উসকানি’ তৈরির প্রচেষ্টা মাত্র।

বিজ্ঞাপন

 

পূর্ব ইউক্রেনে মস্কো সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদী ও ইউক্রেনের সেনাবাহিনী গত বৃহস্পতিবারই একে অপরের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে উসকানি দেওয়ার অভিযোগ করে। গতকালও পূর্ব ইউক্রেনে গোলাবর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। পূর্ব ইউক্রেনের স্বঘোষিত দোনেৎস্ক পিপলস রিপাবলিকের (ডিপিআর) বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা দানিস পুশিলিন বলেছেন, বড় আকারের সংঘাতের আশঙ্কায় বিদ্রোহী কর্তৃপক্ষ আজ থেকে এলাকার বেসামরিক নাগরিকদের রাশিয়ায় সরিয়ে নেওয়া শুরু করেছে। লুহানস্ক অঞ্চলে বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত এলাকায় এএফপির একজন সাংবাদিক বিস্ফোরণের শব্দ শুনেছেন এবং ক্ষতিগ্রস্ত বেসামরিক ভবনগুলো দেখেছেন।

একইসঙ্গে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন শুক্রবার মস্কোতে সাংবাদিকদের বলেন, পূর্ব ইউক্রেনে পরিস্থিতি খারাপের দিকে যাচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্র বরাবরই বলে আসছে, ইউক্রেনে রুশ হামলা আসন্ন এবং আক্রমণের জন্য রাশিয়া অজুহাত তৈরি করতে চাইছে। বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউসের লনে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন সাংবাদিকদের বলেন, আক্রমণ হতে পারে আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই। হামলা চালানোর জন্য রাশিয়া ভুয়া হামলার ঘটনা সাজানোরও প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

মস্কো ঘোষণা করেছে, প্রেসিডেন্ট পুতিন কাল শনিবার ব্যালিস্টিক এবং ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্রের মহড়ার তদারকি করবেন। আজ পুতিন তার মিত্র বেলারুশের প্রেসিডেন্ট আলেকজান্ডার লুকাশেঙ্কোকে মস্কোতে স্বাগত জানান। ওই দুই নেতা সামরিক সহযোগিতা নিয়ে আলোচনা করার পাশাপাশি মহড়া তদারকি করবেন বলে জানানো হয়।

এদিকে জাতিসংঘের প্রধান আন্তোনিও গুতেরেস আজ মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বলেছেন, রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনা যুদ্ধে রুপ নিলে তা হবে ‘বিপর্যয়কর’। ওই সম্মেলনে মস্কো এই বছর যোগ দিচ্ছে না।

ইউক্রেনের সীমান্ত থেকে রাশিয়া মঙ্গলবার প্রথম সেনা প্রত্যহারের ঘোষণা দিলেও যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, ওই সীমান্তে সৈন্যের সংখ্যা বরং আরও বাড়ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন আজ বলেছেন, ইউক্রেনের সীমান্তবর্তী অঞ্চলের দিকে ‘আরো’ রুশ বাহিনীকে অগ্রসর হতে দেখছে ওয়াশিংটন। তিনি বলেন, ‘সব সূচক ইঙ্গিত করে যে তিনি (রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিন) আক্রমণ চালানোর সক্ষমতা বজায় রাখবেন। ’
বৃহস্পতিবার রাশিয়া বলেছিল, তাদের সব সৈন্য প্রত্যাহার করতে সময় লাগবে। সূত্র: এএফপি, বিবিসি



সাতদিনের সেরা