kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২ ডিসেম্বর ২০২১। ২৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

ভারি বৃষ্টি ও ভূমিধস, কেরালায় ১৫ জনের প্রাণহানি

অনলাইন ডেস্ক   

১৭ অক্টোবর, ২০২১ ১৭:০৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভারি বৃষ্টি ও ভূমিধস, কেরালায় ১৫ জনের প্রাণহানি

অতিবৃষ্টির কারণে ভূমিধসে ভারতের কেরালা রাজ্যের কোত্তায়াম ও ইদুক্কি জেলায় কমপক্ষে ১৫ জনের প্রাণহানি হয়েছে বলে জানা গেছে। এ কারণে আজ ও আগামীকাল আয়াপ্পা দেবতার ভক্তদের সাবারিমালা মন্দির ভ্রমণ করতে নিষেধ করা হয়েছে। চলছে উদ্ধার অভিযান।

কেরালার অধিকাংশ অঞ্চলে বৃষ্টির তীব্রতা সকালে কমে আসে, তবে রাত পর্যন্ত একটানা বৃষ্টি হয়েছে। তবে নতুন কোনো বন্যাকবলিত এলাকার সন্ধান মেলেনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ আজ সকালে টুইট করেন। তিনি লেখেন, ভারি বৃষ্টিপাত এবং বন্যার প্রেক্ষিতে আমরা কেরালার কিছু অংশের পরিস্থিতি ক্রমাগত পর্যবেক্ষণ করছি। অভাবী মানুষকে সাহায্য করার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার সব ধরনের প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। উদ্ধার অভিযানে সহায়তা করার জন্য এর মধ্যেই জরুরি উদ্ধার দল পাঠানো হয়েছে। সবার নিরাপত্তার জন্য প্রার্থনা।

মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন শনিবার উদ্ধারকাজ ত্বরান্বিত করার জন্য একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক করেছিলেন এবং বলেছিলেন যে কোত্তায়ামসহ রাজ্যে ভারি বৃষ্টির কারণে বন্যাকবলিত এলাকায় আটকে পড়া মানুষকে সরিয়ে নেওয়ার সমস্ত উপায় ব্যবহার করা হবে।

আশ্রয়শিবিরগুলোতে যথাযথভাবে কভিড প্রটোকল অনুসরণের নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, মাস্ক, স্যানিটাইজার, পানীয় জল, ওষুধ শিবিরে রাখতে হবে। তিনি আরো বলেন, যাদের অন্য কোনো রোগ আছে এবং যারা টিকা নেননি তাদের জন্য সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত।

ওয়ানাদ আসনের সাংসদ রাহুল গান্ধী টুইটে বলেন, আমার চিন্তা কেরালার মানুষের জন্য। দয়া করে নিরাপদ থাকুন এবং সমস্ত সুরক্ষা সতর্কতা অনুসরণ করুন।

জেলায় ভারি বৃষ্টির কারণে বাঁধের ধারে পানি বাড়ছে। এর মধ্যে পানির স্তর বৃদ্ধির কারণে মনিয়ার বাঁধের শাটার খোলা হয়েছে। কোত্তায়াম এবং ইদুক্কি জেলায় ভূমিধসের খবর পাওয়া গেছে। কোত্তায়ামে ১২ জন নিখোঁজ রয়েছে বলে জানা গেছে। কোত্তায়ামের খারাপ আবহাওয়ার কারণে উদ্ধার অভিযান বিলম্বিত হচ্ছে।
সূত্র : এনডিটিভি



সাতদিনের সেরা