kalerkantho

রবিবার । ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৫ ডিসেম্বর ২০২১। ২৯ রবিউস সানি ১৪৪৩

তুরস্কের গেদিক বিশ্ববিদ্যালয়ে 'পঞ্চাশে বাংলাদেশ : উন্নয়ন ও চ্যালেঞ্জ' শীর্ষক সেমিনার

অনলাইন ডেস্ক   

১৫ অক্টোবর, ২০২১ ১৪:৩৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তুরস্কের গেদিক বিশ্ববিদ্যালয়ে 'পঞ্চাশে বাংলাদেশ : উন্নয়ন ও চ্যালেঞ্জ' শীর্ষক সেমিনার

তুরস্কের গেদিক বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলাদেশ স্টাডিজ ও রিসার্চ সেন্টারে গতকাল বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) 'পঞ্চাশে বাংলাদেশ : উন্নয়ন ও চ্যালেঞ্জ'  শীর্ষক এক সেমিনারে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে কনসাল জেনারেল ড. মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম বাংলাদেশের অগ্রগতি, অর্জন ও সম্ভাবনার কথা তুলে ধরেন। অর্থনৈতিক উন্নয়ন, দারিদ্র্য বিমোচন, নারীর ক্ষমতায়ন, জলবায়ু পরিবর্তনের নেতিবাচক প্রভাব মোকাবেলা ও বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশের সাফল্য তিনি দৃঢ় কণ্ঠে ব্যক্ত করেন। 

তিনি আরো যোগ করেন, প্রতিটি দেশেরই নিজ নিজ চ্যালেঞ্জ রয়েছে, কিন্তু বাংলাদেশের জনগণ ও নেতৃত্বের সফলতা হলো চ্যালেঞ্জকে সুযোগে পরিবর্তন করা। এ বিষয়ে তিনি সরকারের রূপকল্প ২০২১, চ্যালেঞ্জ ২০৪১ এবং ব-দ্বীপ পরিকল্পনা ২১০০-এর কথা উল্লেখ করেন এবং তা বাস্তবায়নে বাংলাদেশের উদ্যোগ ও প্রতিশ্রুতির কথা বর্ণনা করেন। দেশের এ উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় শামিল হওয়ার জন্য তিনি তুরস্কের জনগণের আরো নিবিড়ভাবে সম্পৃক্ততার প্রত্যাশা করেন। বাংলাদেশ-তুরস্কের সম্পর্ককে আরো গভীরভাবে জানার জন্য তিনি দুই দেশের মধ্যকার শিল্প ও সাংস্কৃতিক সহযোগিতা বাড়ানোর ওপর জোর দেন। এ ক্ষেত্রে গেদিক বিশ্ববিদ্যালয়ে সদ্যঃপ্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশ স্টাডিজ ও রিসার্চ সেন্টার এক গুরুত্বপূর্ণ নিয়ামকের ভূমিকা পালন করতে পারে বলে অভিমত দেন তিনি। 

সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শহীদ বুদ্ধিজীবী মুনীর চৌধুরীর সন্তান এবং বিশিষ্ট মানবাধিকারকর্মী এবং সাংস্কৃতিক ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব আসিফ মুনীর। তিনি রোহিঙ্গা ইস্যুকে বাংলাদেশের জন্য অন্যতম প্রধান চ্যালেঞ্জ হিসেবে বর্ণনা করে এর ঐতিহাসিক পটভূমি ও এর অর্থনৈতিক, সামাজিক নিরাপত্তা ও পরিবেশগত প্রভাব ব্যাখ্যা করেন। এ সমস্যা সমাধানের কথা বলতে গিয়ে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৬তম অধিবেশনে তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রদত্ত সাম্প্রতিক বক্তব্যের কথা উল্লেখ করেন। তুরস্কের সরকার ও জনগণের সহযোগিতার কথা তুলে ধরে তিনি এ ইস্যু সমাধানে বিশ্ব সম্প্রদায়ের অর্থবহ সমর্থন ও সহযোগিতা কামনা করেন। 

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন গেদিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস রেক্টর প্রফেসর ড. আহমেদ কেসিক। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, গবেষক ছাড়াও সেমিনারে উল্লেখযোগ্যসংখ্যক ছাত্র-ছাত্রী অংশগ্রহণ করেন । 

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাস সংক্রান্ত বিধি-নিষেধ শিথিল হওয়ার পর এটিই গেদিক বিশ্ববিদ্যালয় আয়োজিত সরাসরি উপস্থিতিতে প্রথম কোনো সেমিনার, যা বাংলাদেশের সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে আয়োজন করা হয়।



সাতদিনের সেরা